এবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে ১০৯ কোটি টাকা আর্থিক দূর্নীতির অভিযোগ: উঠলো পদত্যাগের দাবি

    এবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে ১০৯ কোটি টাকা আর্থিক দূর্নীতির অভিযোগ: উঠলো পদত্যাগের দাবি

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: এবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে বড় দুর্নীতির অভিযোগ সামনে এল। এবার কয়েকশাে কোটি টাকার দুর্নীতিতে অভিযােগ উঠল পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল ধনখড়ের বিরুদ্ধে। শিবসেনার মুখপত্র সামনাতে দাবি করা হয়েছে, ইন্ডিয়ান মিউজিয়ামের জন্য ১০৯ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সেই টাকা শেষ হয়ে গেলেও মিউজিয়ামের কোনও কাজ হয়নি। তাহলে কোন খাতে এত টাকা ব্যয় হল? সেই বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারছেন না মিউজিয়ামের কর্তারা। অডিট রিপাের্টে বিষয়টি একরকম স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

    রাজ্যপালের বিরুদ্ধে অভিযােগ, মিউজিয়ামের ট্রাস্টি বাের্ডের চেয়ারম্যান হওয়া সত্ত্বেও বিষয়টি নিয়ে কোনও তদন্তের নির্দেশ দেননি জগদীপ ধনখড়। গােটা ঘটনাটাই তিনি বেমালুম চেপে গিয়েছেন। সামনায় আরও দাবি করা হয়েছে, রাজ্যপাল নিজে এই আর্থিক কেলেঙ্কারিতে যুক্ত আছেন। তাই তিনি তদন্ত না করে অন্যান্য দোষীদের আড়াল করার চেষ্টা করছেন। ধনকরের পদত্যাগ দাবি করেছে শিবসেনা।

    এশিয়ার প্রাচীনতম এবং ভারতের বৃহত্তম ভারতীয় জাদুঘর নামে পরিচিত এটির নকশার কারণে সারা বিশ্বে বিখ্যাত। তবে জাদুঘরের ঐতিহাসিক ঐতিহ্য ধীরে ধীরে যাদুর মতো অদৃশ্য হয়ে যাচ্ছে। এভাবেই এশিয়ার বৃহত্তম জাদুঘর সম্পর্কিত প্রায় ১০৯ কোটি টাকার কেলেঙ্কারির একটি ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। এই জাদুঘরটির রক্ষণাবেক্ষণ এবং নিয়ম নিয়ন্ত্রণে রাখার বিষয়ে অনেকগুলি কেলেঙ্কারীর ঘটনা ঘটছে তবে এই বিভাগের সাথে সংশ্লিষ্ট সমস্ত কর্মকর্তা এবং এর চেয়ারম্যান (গভর্নর) নীরব রয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গ শিবসেনার নেতা প্রদীপ মণ্ডল এই মামলায় দায়ীদের অপসারণের পাশাপাশি সিবিআই তদন্তেরও দাবি জানিয়েছেন।

    বাংলায় রাজ্যপাল হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পর থেকেই তৃণমূল সরকারের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছেন ধনকর। রাজ্যপালের বিরুদ্ধে প্রবল অসন্তুষ্ট রাজ্যের শাসকদল। এবার রাজ্যপালের বিরুদ্ধেই আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ আনা হল। এখন দেখার বিষয়টি কতদূর গড়ায়।