Categories
দেশ

বিজেপির আইটি সেল দুর্বৃত্তদের আখড়া, ফেক আইডি দিয়ে আমাকেও নিশানা করে: বিস্ফোরক দলেরই সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী

বিজেপির আইটি সেল দুর্বৃত্তদের আখড়া, ফেক আইডি দিয়ে আমাকেও নিশানা করে: বিস্ফোরক দলেরই সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: JEE-NEET হোক বা লাদাখে চিনা আগ্রাসনের মধ্যেই চিনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সঙ্গে রাজনাথ সিংয়ের বৈঠক- বারবার দলের বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তবে, এবার তাঁর ট্যুইট রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিয়েছে। বিজেপির যে আইটি সেলের বিরুদ্ধে অহরহ অভিযোগ তোলেন বিরোধীরা, সেই আইটি সেলের বিরুদ্ধে এবার সরব হলেন স্বয়ং দলীয় সাংসদ স্বামী!

দলের আইটি সেলের বিরুদ্ধে এবার রীতিমতো ফুঁসে উঠলেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। অভিজ্ঞ এই নেতার অভিযোগ, তাঁর বিরুদ্ধাচারণের উদ্যোগ নিয়েছেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। তাঁর অভিযোগ, ফেক টুইট ব্যবহার করে বিজেপির আইটি সেল তাঁর বিরুদ্ধে এই কাজ করে চলেছে। শুধু তাই নয়, বিজেপির আইটি সেল বেলাগাম নোংরামি করে চলেছে বলেও অভিযোগ তাঁর। সেইসঙ্গেই বিজেপির আইটি সেলকে দুর্বৃত্তের আখড়াও বলেন তিনি।

এদিন ট্যুইটে স্বামী লিখেছেন, ‘বিজেপির আইটি সেল দুর্বৃত্তদের আখড়া। আইটি সেলের কিছু সদস্য ভুয়ো ট্যুইট করে আমাকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করছে। এখন যদি আমার অনুগামীরা পালটা ব্যক্তিগত স্তরে আক্রমণ করা শুরু করে, তার দায় আমার নয়। যেমন দলের দুর্বৃত্ত আইটি সেলের দায় বিজেপির নয়।’

স্বামীর এই ট্যুইটের পরই এক বিজেপি সমর্থক স্বামীকে এই ধরনের আক্রমণ করা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করেন। কিন্তু এরপরই আরও ক্ষুব্ধ হয়ে স্বামী লেখেন, ‘আমি উপেক্ষা করছি, কিন্তু বিজেপির উচিৎ আইটি সেলের দুর্বৃত্তদের বরখাস্ত করা। এক মালব্য বেলাগাম নোংরামি চালাচ্ছে। আমাদের দল মর্যাদা পুরুষোত্তমের, রাবণ বা দুঃশাসনের নয়।’ শুধু অবশ্য ট্যুইট নয়, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাকে এ বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতেও অনুরোধ করেছেন স্বামী।

Categories
দেশ

বেসরিকরণে দেশের নয়, মোদির স্পেশাল কিছু বন্ধুর বিকাশ ঘটছে : প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা রাহুল গান্ধীর

বেসরিকরণে দেশের নয়, মোদির স্পেশাল কিছু বন্ধুর বিকাশ ঘটছে : প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা রাহুল গান্ধীর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: একের পর এক সরকারি সম্পত্তির বেসরকারিকরণের প্রস্তাবে রাহুল গান্ধির নিশানায় মোদি সরকার ৷ ফের আরও ২৬টি কোম্পানি থেকে কেন্দ্রের নিজের অংশ বিক্রি করার সিদ্ধান্ত সামনে আসতেই সমালোচনায় সরব বিরোধীরা ৷

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধির অভিযোগ, দেশের যুবসমাজের কর্মসংস্থানের আশা শেষ করে দিচ্ছে এই সরকার ৷ একের পর এক সরকারি সম্পত্তির বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্তে দেশের নয়, মোদিজির কাছের মানুষ, কিছু বিশেষ বন্ধুরই সুবিধে হচ্ছে বলে দাবি রাহুলের ৷

বেসরকারিকরণ ইস্যুতে আরও একবার বিরোধীদের নিশানায় মোদি সরকার ৷ এদিন কেন্দ্রের এয়ার ইন্ডিয়া, ভারতীয় রেলওয়ে সহ একাধিক কোম্পানির বেসরকারিকরণের প্রস্তাবের পর ফের আরও ২৬ কোম্পানির বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে রাহুল ট্যুইটে লেখেন, ‘‘মোদি সরকারের একের পর এক অবিবেচক, অনাবশ্যক সিদ্ধান্তের ফল ভুগছে দেশ ৷ তার মধ্যে একটি সরকারি সম্পত্তির বেসরকারিকরণ ৷ দেশের যুবসমাজ চাকরি চাইছে, তখন তাদের কর্মসংস্থানের জমা পুঁজি শেষ করে একের পর এক PSUs-র থেকে নিজেদের অংশ বিক্রি করে দিচ্ছে মোদি সরকার৷ এত কে লাভবান হচ্ছে? শুধুমাত্র হাতে গোনা কয়েকটি লোক, যারা মোদিজির ‘খাস’ ৷ এই সিদ্ধান্তে লাভবান হচ্ছেন শুধুমাত্র মোদিজির কিছু ‘মিত্রোঁ’৷ ’’

তাঁর দাবি, সরকারি চাকরি বাঁচাতে, দেশের যুব সমাজের ভবিষ্যত বাঁচাতে এখনই বেসরকারিকরণ বন্ধ করা দরকার ৷

Categories
রাজ্য

সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় ভরসা নেই? করোনা আক্রান্ত খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় ভরসা নেই? করোনা আক্রান্ত খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: গতকাল রাতেই সংবাদ পাওয়া গিয়েছে যে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক করোনা আক্রান্ত । তাঁর মৃদু উপসর্গ রয়েছে তবুও তিনি ঝুঁকি না নিয়ে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাঁর আরোগ্য কামনা করছেন দলের কর্মী থেকে বিরোধীদলের মানুষজন সকলেই।

কিন্তু ফের উঠলো একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, সরকারি হাসপাতাল ছেড়ে ইএম বাইপাসের বেসরকারি হাসপাতালে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ভর্তি হলেন কেন? তবে কি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর আস্থা হারাচ্ছেন তার দলের রথী-মহারথীরাই? প্রশ্ন তুললেন বিজেপি রাজ্য যুব মোর্চার সহ-সভাপতি তরুণ জ্যোতি তিওয়ারি ।

তরুণ জ্যোতি তিওয়ারির বক্তব্য, “দমকল মন্ত্রীর মতই রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করলেন না। কেন? রাজ্যের মন্ত্রীদের রাজ্যের সরকারি হাসপাতাল গুলোর উপর ভরসা নেই আর রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন যে পশ্চিমবঙ্গের সরকারি চিকিৎসা ব্যবস্থা নাকি বিশ্বসেরা।”

রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অর্থাৎ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথার ওপর বিশ্বাস করতে পারছেন না তার দলের মানুষরাই। এমনটাই বক্তব্য তরুণজ্যোতির। এছাড়াও তিনি আরও বলেছেন, “রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কথা তার পরিষদীয় মন্ত্রীরাই যখন বিশ্বাস করতে পারেন না তখন মানুষ কিভাবে বিশ্বাস করবে?”

Categories
বিশ্ব

নরেন্দ্র মোদী আমার বন্ধু, ভারতীয় বংশোদ্ভূতরা আমাকেই ভোট দেবেন: ট্রাম্প

নরেন্দ্র মোদী আমার বন্ধু, ভারতীয় বংশোদ্ভূতরা আমাকেই ভোট দেবেন: ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: সামনেই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ইতোমধ্যেই কোভিড-১৯ পরিস্থিতি সামলাতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যর্থতা নিয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে বিশ্বজুড়েই। আর তাই এই সময়ে এসে মার্কিনীদের মন জয় করার চেষ্টায় আছেন ট্রাম্প। এতে বাদ পড়ছেন না সেখানে বসবাসকারী ভারতীয় বংশোদ্ভূতরাও।

শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) প্রেসিডেন্ট বাসভবন হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, ভারত থেকেও আমাদের অনেক সমর্থন আছে। প্রধানমন্ত্রী মোদীরও অসামান্য সমর্থন আছে আমাদের। আমার মতে, ভারতীয়রা (ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনরা) ট্রাম্পকেই ভোট দেবেন।

ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের কাছে ট্রাম্পকন্যা ইভাঙ্কা, ছেলে জুনিয়র ট্রাম্প নির্বাচনী প্রচার করবেন কিনা, সেই প্রশ্নের জবাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি ভারতকে জানি এবং আপনি যাদের কথা বলেছেন, তাদের বুঝি আমি। ওরা দারুণ মানুষ। আমি জানি, ওদের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত ভালো। আমারও তাই।

তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ট্রাম্পের প্রতিপক্ষ ক্যাম্পের উপ-রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী ও কট্টর ইসরাইল সমর্থক কমলা হ্যারিস নিজে একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত। এর ফলে আমেরিকায় বসবাসকারী ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের ভোট হাতছাড়া হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ট্রাম্প। সেজন্যই তাদের সঙ্গে যে ‘সম্পর্ক’ আছে, তাতে জোর দিচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বিশেষজ্ঞদের এই পর্যবেক্ষণ যে অমূলক নয়, তার প্রমাণও পাওয়া যায় ট্রাম্পের কথায়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী আমার বন্ধু এবং উনি খুব ভালো কাজ করছেন। কোনও কিছু সহজ নয়। কিন্তু উনি খুব ভালো কাজ করছেন। অবশ্য এখানেই শেষ নয়। ২০১৯ সালের গত বছর সেপ্টেম্বরে হিউস্টনে ‘হাউডি মোদী’-র স্মৃতি রোমন্থন করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আপনারা জানেন, হিউস্টনে একটি অনুষ্ঠান হয়েছিল আমাদের। সেটা দুর্দান্ত অনুষ্ঠান ছিল। আমায় আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং তা অবিশ্বাস্য ছিল। প্রধানমন্ত্রী মোদী অত্যন্ত উদার ছিলেন।

Categories
দেশ

ভিআরএসের নামে ৩০ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক এসবিআই: বিরোধিতায় বিভিন্ন কর্মী সংগঠন

ভিআরএসের নামে ৩০ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক এসবিআই: বিরোধিতায় বিভিন্ন কর্মী সংগঠন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: টেলিকম সংস্থা BSNL’র পর এবার দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক স্টেট ব্যঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (SBI) এর জন্য স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প নিয়ে এসেছে কেন্দ্র। দেশের ব্যাঙ্কিং সেক্টরে একাধিক সংস্কারের অঙ্গ হিসেবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বেসরকারিকরণের পাশাপাশি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির পরিচালন ব্যবস্থাকে কর্পোরেট ধাঁচ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। যেখানে স্বেচ্ছাবসর বা VRS নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। সম্প্রতি ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক তাদের স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প ঘোষণা করে দিয়েছে। কী রয়েছে এসবিআই-র এই ভিআরএস প্ল্যানে?

জানা গিয়েছে, ১ ডিসেম্বর থেকে প্রায় ৩০ হাজার কর্মীকে স্বেচ্ছাবসর দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। তার জন্য তৈরি হয়ে গিয়েছে ভিআরএস-২০২০ খসড়া।

১) যে কর্মীরা একটি নির্দিষ্ট জায়গায় আটকে রয়েছেন এবং নিজেদের কর্মদক্ষতার শীর্ষে নেই, প্রস্তাবিত ‘সেকেন্ড ইনিংস ট্যাপ ভিআরএস-২০২০’পরিকল্পনার আওতায় তাঁদের সম্মানের সঙ্গে চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হবে। একইসঙ্গে ব্যক্তিগত কারণে বা ব্যাঙ্কের বাইরে কোনও ব্যক্তিগত-পেশাদারি জীবন কাটাতে চাইলেও সুযোগ মিলবে।

২) ভিআরএস খসড়া অনুযায়ী, কাট-অফ দিনের নিরিখে যে স্থায়ী অফিসার এবং কর্মী ২৫ বছরের চাকরি জীবন পূরণ করেছেন বা যাঁদের বয়স ৫৫ বছরের বেশি, তাঁরা প্রকল্পের জন্য বিবেচিত হবেন।

৩) ১ ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারির শেষ পর্যন্ত স্বেচ্ছাবসর গ্রহণের আবেদন জমা নেওয়া হবে।

৪) স্বেচ্ছাবসরের যে যোগ্যতা তুলে ধরা হয়েছে এই খসড়ায় তাতে দেখা যাচ্ছে ভিআরএস প্ল্যানের আওতায় আসছেন এসবিআই এর ৩০ হাজার ১৯০ জন কর্মী।

৫) ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছে কর্মীদের স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণের আবেদন মঞ্জুর হবে, তাঁদের চাকরি জীবনের অবশিষ্ট সময়ের ৫০ শতাংশ বেতন দেওয়া হবে। তবে সর্বাধিক ১৮ মাসের বেতন মিলবে। অর্থাৎ, নির্ধারিত বয়সের ৩৬ মাস বা দেড় বছর আগে স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণ করলে সংশ্লিষ্ট অফিসার বা কর্মী ৫০ শতাংশ বেতন পাবেন। কেউ যদি ৫৬ বা ৫৭ বছর বয়সে অবসর গ্রহণ করেন, তাহলে তিনি সর্বাধিক ১৮ মাসের বেতন পাবেন।

এছাড়া গ্র্যাচুইটি, পেনশন, প্রভিডেন্ট ফান্ড সহ একাধিক সুবিধা পাবেন কর্মীরা। এই নয়া প্রকল্পের আওতায় যাঁরা স্বেচ্ছায় অবসর নেবেন, তাঁরা দু’বছরের কুলিং-অফ পিরিয়ডের পর আবারও ব্যাঙ্কে যোগ দিতে পারবেন। যেদিন তিনি অবসর নেবেন, সেদিন থেকে ওই দু’বছরের মেয়াদ হিসেব হবে।

ভিআরএসের নামে কর্মী ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনার তীব্র বিরোধিতা করেছে বিভিন্ন কর্মী সংগঠন। তাদের অভিযোগ, অতিমারি করোনার জেরে মানুষের পেশাগত জীবন যখন অনিশ্চয়তার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে, দেশে কর্মসংস্থানের পরিস্থিতি আরও কঠিন, তখন ভিআরএস প্রকল্পের ঘোষণা কর্মীদের আরও চাপে ফেলবে।

এদিকে করোনার ধাক্কায় খুব প্রয়োজন ছাড়া কোনও কেন্দ্রীয় মন্ত্রক, দফতর, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বা সংস্থায় নতুন পদ তৈরি বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সময়ে দাঁড়িয়ে এই ভিআরএস প্ল্যানের তীব্র বিরোধিতা করছেন ব্যঙ্ক কর্মীরা। ব্যাঙ্ক কর্মী সংগঠন ন্যাশনাল অর্গানাইজ়েশন অব ব্যাঙ্ক ওয়ার্কার্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট অশ্বনি রানারের অভিযোগ, বর্তমান পরিস্থিতিতে মানুষের রুজি-রোজগার নিয়ে আশঙ্কার সময় স্বেচ্ছাবসরের সিদ্ধান্ত আসলে এসবিআই কর্তৃপক্ষের কর্মী বিরোধী মনোভাবকে প্রকাশ।

Categories
রাজ্য

মালদা ও মুর্শিদাবাদের গঙ্গা ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ ও পুর্নবাসনের দাবি জামাআতে ইসলামির

মালদা ও মুর্শিদাবাদের গঙ্গা ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ ও পুর্নবাসনের দাবি জামাআতে ইসলামির

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বেশকিছু দিন যাবৎ মালদা জেলার কালিয়াচক – ৩ ব্লক ও মুর্শিদাবাদের সামসেরগঞ্জ ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকায় গঙ্গা ভাঙ্গন চলছে। ইতিমধ্যেই কয়েকশো বাড়ি গঙ্গাগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। অসংখ্য পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সহায় – সম্বলহীন অবস্থায় বহু মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করতে বাধ্য হচ্ছে।

অনেকেই সব কিছু হারিয়ে পথে বসেছে। অসংখ্য পরিবার আশ্রয় শিবিরে স্থান নিয়েছে। এই ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য সরকারি ক্ষতিপূরণ ও স্থায়ী পূনর্বাসনের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানালেন জামাআতে ইসলামি হিন্দের পশ্চিমবঙ্গ শাখার আমীরে হালকা মাওলানা আব্দুর রফিক সাহেব। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় সরকারের কাছ থেকে আশানুরূপ সাহায্য ও সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না যা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। আমীরে হালকা মাওলানা আব্দুর রফিক আরো বলেন, অবিলম্বে রাজ্য সরকারকে আপৎকালীন ত্রান শিবিরের ব্যবস্থা করে মানুষের থাকার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপনা করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, খাদ্য সামগ্রী সহ সমস্ত মৌলিক প্রয়োজন এমন সামগ্রী ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের কাছে সরকারকে পৌঁছে দিতে হবে। আমীরে হালকা মাওলানা আব্দুর রফিক বিবৃতিতে আরও বলেন, যাদের ঘর – বাড়ি গঙ্গা গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে তাদের স্থায়ী পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। এইক্ষেত্রে রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকার নিজেদের দায় – দায়িত্ব এড়াতে পারেনা।

তিনি জানান, গঙ্গা ভাঙ্গন রোধে ও সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকারকে মাস্টার প্ল্যান তৈরি করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় বাজেট বরাদ্দ করতে হবে। এই জন্য রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারকে নিজেদের মধ্যে সমন্নয় সাধন করে অবিলম্বে এই মাস্টার প্ল্যান তৈরি করে সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে হবে।

আমীরে হালকা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় জামাআতে ইসলামি হিন্দ সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের ত্রাণ কার্যক্রমকে অব্যাহতি রেখে আরো জোরদার করার আহ্বান জানান।

Categories
রাজ্য

ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতার বিজেপি বিধায়ক ও তার স্ত্রী

ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতার বিজেপি বিধায়ক ও তার স্ত্রী

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: এক মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উত্তরাখণ্ডে গ্রেপ্তার বিজেপি বিধায়ক। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, এক মহিলা অভিযোগ জানানোর পর দাওয়ারাবাট থেকে জিতে আসা বিজেপি বিধায়ক মহেশ নিয়োগীকে ধর্ষণ ও অন্যান্য অপরাধের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেহরাদুনের পুলিশ সুপার (শহর) শ্বেতা চৌবে বলেছেন, স্থানীয় এক আদালতের নির্দেশের পর রবিবার আইপিসি ৩৭৬ ও ৫০৬ ধারায় নেহরু কলোনি থানায় নিয়োগীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। শুধু নিয়োগীকে নয়, অপরাধ মূলক কাজের জন্য তার স্ত্রী রীতা নিয়োগীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। যদিও বিজেপি বিধায়কের দাবি তাকে মিথ্যা কেসে ফাঁসিয়েছে কংগ্রেস।

Categories
দেশ

‘‌আমার গোবরে জন্ম, তাই করোনা আমায় ধরবে না’‌: বিজেপি মন্ত্রীর মন্তব্যে হাসির রোল নেট দুনিয়ায়

‘‌আমার গোবরে জন্ম, তাই করোনা আমায় ধরবে না’‌: বিজেপি মন্ত্রীর মন্তব্যে হাসির রোল নেট দুনিয়ায়

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: জানুয়ারি মাস থেকে ক্রমাগত করোনা ভাইরাস নিয়ে নতুন নতুন তথ্য সামনে আসছে। কিন্তু ভারতের একাধিক নেতা মন্ত্রী থেকে সেলেব্রিটি, করোনা তাড়ানো নিয়ে তাঁরা হাস্যকর মন্তব্য বারবার করেছেন। তথ্য নয়, যা নিছক মজা হিসাবে বিখ্যাত হয়ে আসছে সেই জানুয়ারি মাস থেকেই।

এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন মধ্যপ্রদেশের বিজেপির মন্ত্রী ইমারতি দেবী বলেছেন, তাঁর গোবরে জন্ম, তাই তাঁকে করোনা ছুঁতে পারবে না। এই যুক্তি শুনে হাসির রোল উঠেছে নেট দুনিয়ায়। ক’‌দিন আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সরাসরি শরীরে জীবাণুনাশক ইনজেক্ট করতে বলে বিতর্ক তৈরি করেছিলেন।

ভারতের অনেক বিজেপি নেতাও বারবার বলেছেন, গোমূত্র খেলেই করোনা সেরে যাবে। কিন্তু সে কথার প্রমাণ কেউ দিতে পারে নি। এবার গোবর নিয়ে নতুন তত্ত্ব খাড়া করলেন এই মন্ত্রী। গোবরে জন্ম বলে নাকি তাঁর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অত্যাধিক বেশি। আর সেই কারণেই তাঁকে ছুঁয়ে দেখতে পারবে না করোনা, এমনই দাবি তাঁর।

Categories
দেশ

বিহার বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে এনডিএ জোট শরীকদের মধ্যে তুমুল অশান্তি: কপালে ভাঁজ নীতিশের

বিহার বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে এনডিএ জোট শরীকদের মধ্যে তুমুল অশান্তি: কপালে ভাঁজ নীতিশের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিহারের নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, এনডিএ শরিক লোক জনশক্তি পার্টি ও জনতা দল (ইউনাইটেড)–এর মধ্যে অশান্তি ততই ঘোরালো হয়ে উঠছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসওয়ানের ছেলে চিরাগ পাসওয়ান বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধে লাগাতার আক্রমণ শানিয়ে যাচ্ছেন বিগত কয়েকমাস ধরে। বাবার কাছ থেকে দলের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই চিরাগ বিভিন্ন ইস্যুতে সমালোচনা করে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রীর।

করোনাভাইরাস অতিমারী নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে দুর্নীতি, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, অর্থনৈতিক ব্যর্থতা ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনায় প্রবল সোচ্চার হয়ে উঠেছেন এলজিপি’র নেতা। চতুর্থবারের জন্য নীতীশ কুমারের মুখ্যমন্ত্রীত্বের দাবিকেও অন্যায্য বলে প্রকাশ্যেই তার অভিমত প্রকাশ করছেন বিহারের দলিত নেতার পুত্র। আগামী নির্বাচনে জনতা দল ইউনাইটেড–এর সঙ্গে আদৌ লোক জনশক্তি পার্টি নির্বাচনী গাঁটছড়া বাঁধবে কিনা সেই সিদ্ধান্তও এখন প্রশ্নচিহ্নের মুখে পড়েছে।

এই আক্রমণের সামনে চুপ করে বসে নেই নীতীশ কুমার। দলিত ভোটে ভাঙ্গন ধরাতে ইতিমধ্যেই মহাগাঁটবন্ধন থেকে বের করে নিয়ে এসেছেন জিতন রাম মাঝিকে। গত শুক্রবার লোক জনশক্তি পার্টির একটি বিজ্ঞাপন ঘিরে এই কাজিয়া এক নতুন মাত্রা পেয়েছে। দৈনিক সংবাদপত্রের এক পাতা জোড়া বিজ্ঞাপনে এলজিপি’র পক্ষ থেকে বলা হয়েছে ‘’ওরা লড়ছে আমাদের ওপর শাসন চালানোর জন্য, আমরা লড়ছি বিহারের অহঙ্কারের জন্য।‘’

লোক জনশক্তি পার্টির সুপ্রিমো কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও তারই পুত্র তথা রাজ্যের দলীয় প্রধান এনডিএ–র শরিককে কীভাবে আক্রমণ করতে পারেন এই প্রশ্নের জবাবে বিভিন্ন দলীয় জনসভায় এবং সংবাদমাধ্যমে চিরাগ জানিয়েছেন, তিনি বিজেপি’র প্রতি অনুগত জনতা দল (ইউনাইটেড)–এর প্রতি নন। কারণ নীতীশ কুমারের দল লালু প্রসাদের রাষ্ট্রীয় জনতাদলেরই আর একটি প্রতিরূপ।

Categories
দেশ

তিনি কী রাজনীতি করবেন? কোন দলে যোগ দেবেন? অকপটে জানালেন ডাঃ কাফিল খান

তিনি কী রাজনীতি করবেন? কোন দলে যোগ দেবেন? অকপটে জানালেন ডাঃ কাফিল খান

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: তিনি একজন সামান্য চিকিৎসক ছিলেন। কিন্তু ক্রমে গোটা দেশ তাঁকে চিনেছে তাঁর প্রতিবাদী চরিত্রের জন্য। উত্তর প্রদেশের চিকিৎসক ডক্টর কাফিল খানকে চেনে না, এমন লোক এখন দেশে খুঁজে পাওয়া মুশকিল। নানা কারণে তিনি সবসময়েই কথার মধ্যে থাকেন। সম্প্রতি জেল থেকে তিনি মুক্তি পেয়েছেন তিনি।

শাসক দলের বিরোধিতায় আগাগোড়া সরব কাফিল খানের রাজনৈতিক কোনও পরিচয় নেই, মানে কাফিল সরাসরি কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন। কিন্তু সম্প্রতি আওয়াজ উঠেছে, তিনি নাকি কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেন। বিরোধী দল কংগ্রেসের সঙ্গে তাঁর ভাল সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। তাই তাঁর কংগ্রেসে যোগ দেওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা।

কিন্তু তিনি সেই গুজবে জল ঢেলে দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, কংগ্রেসে কেন, কোনও দলেই তিনি যোগ দিচ্ছেন না। তিনি একজন চিকিৎসক ছিলেন, আজীবন চিকিৎসাই করে যাবেন বলে জানিয়েছেন। সম্প্রতি এলাহবাদ হাইকোর্ট তাঁকে মুক্তি দেয়। জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় তাঁকে ধরে রাখার মামলা নস্যাৎ করে দেয়। সেখানে বলা হয়, সঙ্গে সঙ্গে কাফিল খানকে মুক্ত করতে। আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর রাখা বক্তব্য একেবারেই দেশ বিরোধী নয়। কোনও ভাবেই ওই ভাষণ থেকে হিংসা, রক্তপাত ঘটা সম্ভব নয়।

তারপর থেকেই শুরু হয় জল্পনা। মনে করা হয় বিরোধী শিবিরে কোনও এক রাজনৈতিক মঞ্চে দেখা যাবে কাফিল খানকে। কিন্তু তিনি সেই বিষয়ে জল ঢেলে দিয়েছেন। বলেছে, তিনি চিকিৎসক আছে, চিকিৎসকই থাকবেন, কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেবেন না। আপাতত জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর তিনি রাজস্থানে রয়েছেন।