Categories
দেশ

কেন্দ্রের কৃষি বিলের বিরোধিতা করে মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিম্রত কর বাদল

কেন্দ্রের কৃষি বিলের বিরোধিতা করে মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিম্রত কর বাদল

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: পদত্যাগ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিম্রত কর বাদল। বিতর্কিত কৃষিখাত বিলের বিরোধিতা করেই তিনি এহেন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে খবর ।

আজ সংসদে এই ঘোষণা দেওয়ার সময়, তার স্বামী এবং দলীয় প্রধান সুখবীর বাদল বলেছেন, আকালীরা সরকার ও বিজেপিকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে তবে “কৃষকবিরোধী রাজনীতির” বিরোধিতা করবে। লোকসভায় এই বিতর্কিত বিলের বিরোধিতা করার পাশাপাশি অকালি দল এই বিলের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন । বিজেপির দাবি করা কৃষক খাতে আমূল পরিবর্তন আনা বিল আসলে কৃষক বিরোধী তাই এহেন সিদ্ধান্ত নিয়েছে অকালি তরফে বলে জানা গেছে।

কৃষকদের উদ্বেগের সমাধান করতে আবেদন জানালেও বিজেপি তাদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে তাই সংসদে তাদের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে অকালি দলের তরফে জানান হয় এদিন ।

Categories
বিশ্ব

আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার পাচ্ছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি আমিনা এরদোগান

আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার পাচ্ছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি আমিনা এরদোগান

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় দশজন মুসলিম ব্যাক্তিত্বের একজন হিসেবে এবার আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার পাচ্ছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রজব তাইয়েব এরদোগানের সহধর্মিনী ও দেশটির ফার্স্ট লেডি আমিনা এরদোগান।

রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) পাকিস্তান ও বেলজিয়াম থেকে যৌথভাবে পরিচালিত দ্যা ইনস্টিটিউট অব পিস অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট (আইএনএসপিএডি) জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে দশজন শীর্ষস্থানীয় মুসলিম ব্যক্তিত্বের সাথে আন্তর্জাতিক শান্তি পুরষ্কার-২০২০ এর জন্য আমিনা এরদোগানকেও মনোনীত করা হয়েছে।

আইএনএসপিএডি’র সভাপতি মুহাম্মাদ তাহির তাবাসসুম বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন, পরিবেশ, সংস্কৃতি, শিল্পকলা ও সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় এ পুরস্কারের জন্য আমিনা এরদোগানকে মনোনীত করা হয়েছে।

এ তালিকায় আরও রয়েছেন, মালয়েশিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মাদ, বাহরাইনের মহিলা পরিষদের প্রধান শাইখা নূরা আল খলিফা, মুসলিম ওয়ার্ল্ড লীগের সেক্রেটারি-জেনারেল মুহাম্মাদ বিন আবদুল কারিম আল ইসা, মার্কিন কংগ্রেস উইমেন ইলহান ওমর, বৃটেনের হাউজ অব লর্ডসের সদস্য লর্ড নাজির আহমেদ, মুসলিম ইনস্টিটিউট অফ পাকিস্তানের চেয়ারম্যান সাহেবজাদা সুলতান আহমেদ আলী এবং উচ্চ শিক্ষার আন্ডার সেক্রেটারি এবং কাতারের দোহা আন্তর্জাতিক কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ইব্রাহিম বিন সালাহ আল নওমি।

Categories
দেশ

নরেন্দ্র মোদীর শেষ তিন বছরে ৪,১৩২ জন আধা সামরিক সেনা মৃত্যু বরণ করেছেন

নরেন্দ্র মোদীর শেষ তিন বছরে ৪,১৩২ জন আধা সামরিক সেনা মৃত্যু বরণ করেছেন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শেষ তিন বছরে ২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত আধা সামরিক বাহিনীর ৪,১৩২ জন সদস্য ডিউটিরত অবস্থায় শহীদ হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) লোকসভায় এই তথ্য জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই। তিনি বলেন, নিহতদের মধ্যে গেজেটেড অফিসার, তাদের অধ:স্তন অফিসার ও অন্যান্য পদের সেনা রয়েছে।

উল্লেখিত সময়ে সবচেয়ে বেশি মারা গেছে কাশ্মীরে অবস্থানরত সিআরপিএফ, ১,৫৯৭ জন। এর পরে রয়েছে বিএসএফ ৭২৫ জন, সিআইএএফ ৬৭১ জন, আইটিবিপি ৪২৯ জন, এসএসবি ৩২৯ জন ও আসাম রাইফেলস সদস্য ৩৮১ জন।

সূত্র: পিটিআই

Categories
দেশ

ভোটের প্রচারে গিয়ে জনতার হাতে গলাধাক্কা খেয়ে পালিয়ে বাঁচলেন জেডিইউ দলের বিধায়ক

ভোটের প্রচারে গিয়ে জনতার হাতে গলাধাক্কা খেয়ে পালিয়ে বাঁচলেন জেডিইউ দলের বিধায়ক

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিহারে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি এখন তুঙ্গে। প্রতিটি রাজনৈতিক দলই নির্বাচনের আগে প্রচারের প্রস্তুতিতে নেমে পড়েছে। তবে বিজেপির জোট সঙ্গী নীতীশ কুমারের রাষ্ট্রীয় জনতা দল ইউনাইটেডের একজন বিধায়ক প্রচারের কাজে বেরিয়ে মহাবিপদে পড়লেন। জনতার দরবারে ভোট চাইতে গিয়ে তাঁকে রীতিমত পালিয়ে বাঁচতে হল।

আমজনতার অভিযোগ, গত পাঁচ বছরে ওই বিধায়ক এলাকার উন্নয়নে কোনও কাজ করেননি। বহুদিন ধরেই এলাকার লোকজন সেই বিধায়ককে ঘেরাও করার সুযোগ খুঁজছিল। এদিন জেডিইউ এর বিধায়ক উমেশ কুশোয়া এলাকায় প্রচারের কাজে বেরোতেই লোকজন তাঁকে ঘিরে ধরে। তারপর তাঁর কাছে গত পাঁচ বছরের কাজের হিসাব চাইতে শুরু করেন সাধারণ মানুষ।

বিধায়ক উমেশ কুশোয়ার সঙ্গে থাকা জেডিইউ সমর্থকদের বেধড়ক মারধর করেন এলাকার বাসিন্দারা। স্থানীয় বাসিন্দারা সাফ জানিয়ে দেন, এবার কোনওমতেই তাঁরা একটি ভোটও জেডিইউ-এর নেতাকে দেবেন না। কারণ গত পাঁচ বছরে তাঁদের এলাকায় উন্নয়নমূলক একটি কাজও করেননি সেই বিধায়ক। উন্মত্ত সাধারণ জনতাকে কোনওরকমে বুঝিয়ে-সুঝিয়ে এলাকা ছাড়েন বিধায়ক উমেশ। পুলিশ ও দেহরক্ষীদের সাহায্যে শেষমেষ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন তিনি। কিন্তু তিনি এলাকা ছাড়ার পরও সাধারন মানুষ রাগে ফুঁসছে থাকেন। বিহারের বৈশালী জেলার এই ঘটনা নিয়ে হইচই পড়ে গিয়েছে।

Categories
দেশ

সেনা হত্যাকারী চীনের থেকে ঋণ নিয়ে উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন মোদি সরকার: কটাক্ষ আসাদ উদ্দিন ওয়েসির

সেনা হত্যাকারী চীনের থেকে ঋণ নিয়ে উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন মোদি সরকার: কটাক্ষ আসাদ উদ্দিন ওয়েসির

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বৃহস্পতিবার সংসদে সরকার জানিয়েছে করোনা পরিস্থিতিতে চিনের বেজিংয়ে অবস্থিত ব্যাংক থেকে ৯ হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে সরকার। চিনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত সংঘর্ষের মাঝে এই দিনের ঘটনা যে বিরোধিতা ভাল চোখে নেবে না। সেটা অনুমান করা যায়। এই ইস্যুকে হাতিয়ার করে বৃহস্পতিবার টুইটারে সরব হয়ে উঠলেন লোকসভার সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়েসি। এদিন টুইটে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন, যে চিন দেশের ২০ জন সেনাকে হত্যা করেছে তাদের থেকে টাকা ধার নিয়ে সরকার মুখের মত জবাব দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার আসাদউদ্দিন ওয়েসি লিখেছেন সেখানে সরকারকে রীতিমতো কটাক্ষ করেছেন তিনি। তিনি লেখেন, ‘গত ১৫ জুন লাদাখ সীমান্তে চিনের সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা শহিদ হন। তাদের সঙ্গে চরম অন্যায় ও নৃশংস ব্যবহার করা হয়েছে। এর ঠিক চার দিন পর গত ১৯ জুন প্রধানমন্ত্রী সেই চিনের থেকে ৫৫২১ কোটি টাকা ধার নিয়ে একেবারে মুখের মত জবাব দিয়েছেন চিন সরকারকে।’ এরপর খুব ধরে তিনি বলেন, ‘এটা ভারতীয় সেনার আত্মত্যাগকে অপমান করার মত ঘটনা।’

উল্লেখ্য, চিনের বেজিংয়ে অবস্থিত এশিয়ান ইনফ্রস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক (এআইআইবি) থেকে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার কথা বুধবার সংসদে স্বীকার করেছিলেন অনুরাগ ঠাকুর। এক প্রশ্নের উত্তরে অনুরাগ ঠাকুর সংসদে জানান, ‘দেশের পরিকাঠামো খাতে উন্নয়নের জন্য চীনের এআইআইবি ব্যাংকের সঙ্গে দুটি ঋণ চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত সরকার। যার মধ্যে প্রথম চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ৮ মে। টাকার অংক ছিল ৩৬৭৬ কোটি।’

অনুরাগ ঠাকুর আরও, ‘জানান প্রথম খাতের এই ঋণের টাকা খরচ করা হয়েছে করোনা মোকাবিলায় চিকিৎসা খাতে। এবং দ্বিতীয় চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ১৩ জুন। এই চুক্তিতে টাকার অংক ছিল ৫৫১৪ কোটি টাকা।’

Categories
দেশ

দিল্লি হিংসার তদন্তে পুলিশের ভূমিকা পক্ষপাতমূলক: রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ বিরোধীরা

দিল্লি হিংসার তদন্তে পুলিশের ভূমিকা পক্ষপাতমূলক: রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ বিরোধীরা

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: দিল্লির হিংসায় পুলিশের দেওয়া চার্জশিটে অসন্তুষ্ট বিরোধী শিবির। তাই বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করলেন বিরোধী নেতারা। হিংসার তদন্ত ও তাতে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে মতামত তাঁরা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতিকে ।

বিরোধী নেতাদের মধ্যে কংগ্রেসের আহমেদ প্যাটেল, সিপিআইয়ের ডি রাজা, সিপিআই(এম)-এর সীতারাম ইয়েচুরি, ডিএমকে-র কানিমোঝি এবং আরজেডির মনোজ ঝা বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়ে জমা দিয়েছেন স্মারকলিপি। তাঁদের অভিযোগ, দিল্লির হিংসাকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। রাজনীতিবিদ, অর্থনীতিবিদ, সাধারণ জনগণ ও শিক্ষার্থীদের নিশানা করা হচ্ছে।

বুধবারই ফেব্রুয়ারিতে হওয়া হিংসার ঘটনায় চার্জশিট পেশ করেছে দিল্লি পুলিশ। ১৭ হাজার ৫০০ পাতার ওই দীর্ঘ চার্জশিট ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। তাতে যে ১৫ জনের নাম আছে তাঁরা সকলেই নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে যোগ দিয়েছিলেন। যা নিয়ে দিল্লির বর্তমান পুলিশ আধিকারিকদের কাঠগড়ায় তুলেছেন প্রাক্তন পুলিশ কর্তা জুলিও রিবেরো।

রেবেইরো দাবি করেছেন, বিজেপির যে নেতাদের উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার জন্য ছাড় দেওয়া হয়েছে তারা যদি মুসলিম বা বামপন্থী হতেন তাহলে নিশ্চয়ই পুলিশ তাঁদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনত।

Categories
রাজ্য

‘ব্রাহ্মণরা দান গ্রহণ করেন না’: তৃণমূল সরকারের পুরোহিত ভাতা নিয়ে আক্রমণ আরএসএসের

‘ব্রাহ্মণরা দান গ্রহণ করেন না’: তৃণমূল সরকারের পুরোহিত ভাতা নিয়ে আক্রমণ আরএসএসের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: সোমবার নবান্ন থেকে পুরোহিত ভাতার ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার সেই ইস্যুতেই রাজ্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ।

পশ্চিমবঙ্গের আরএসএস মুখপাত্র জিষ্ণু বসু বলেন, “ব্রাহ্মণরা দান গ্রহণ করেন না। তাঁরা সমাজের যে হিত সাধন করেন তার জন্য দক্ষিণা নেন। সমাজ তাঁদের সেই দক্ষিণা দেয়। এটা সরকারের কাজ নয়।”

তাঁর কথায়, পশ্চিমবাংলায় বাংলাভাষী হিন্দুরা বিপন্ন। সরকারের উদ্দেশে আরএসএস মুখপাত্র আরও বলেন, যদি সাহায্য করার দরকার হয় তাহলে নদিয়া, সন্দেশখালিতে যে হিন্দু তফশিলীরা হার্মাদদের হাতে মার খাচ্ছেন, খুন হচ্ছেন, তাঁদের সাহায্য করুন। এই ভাতা ঘোষণার মাধ্যমে সরকার ‘ফাজলামো’ করছে বলেও কটাক্ষ করেন জিষ্ণুবাবু।

ইমাম ভাতা নিয়ে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে বিজেপি, আরএসএস তথা হিন্দুত্ববাদীদের সমালোচনার শেষ নেই। অনেকের মতে, ইমাম ভাতার মতো সিদ্ধান্ত আসলে তোষণের রাজনীতিকেই মান্যতা দিয়েছে।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, লোকসভা ভোটের ফলাফল থেকে স্পষ্ট সংখ্যালঘু ভোটের প্রায় ১৪ আনা তৃণমূল পেলেও উত্তরবঙ্গ ও জঙ্গলমহলে হিন্দু ভোট এককাট্টা হয়েছে বিজেপির দিকে। রাজবংশী থেকে আদিবাসী, সব অংশের ভোট গিয়েছে পদ্ম শিবিরে। তাঁদের বক্তব্য, হিন্দু মনে দাগ কাটতেই এ হেন সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

যদিও তৃণমূল যাতে সেই কাজ নিশ্চিন্তে না করতে পারে তা রুখতে ময়দানে নেমে পড়ল আরএসএস। সঙ্ঘের উদ্দেশ্য এখন জনমানসে এই ধারণা তৈরি করা যে, ব্রাহ্মণদের ভাতা দিয়ে আসলে সনাতনী হিন্দু সংস্কৃতিকেই জলাঞ্জলি দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার।

Categories
দেশ

নির্বাচিত হয়ে সংসদে যোগ দেওয়ার পূর্বেই করোনায় মৃত্যু হল বিজেপির রাজ্য সভার সাংসদের

নির্বাচিত হয়ে সংসদে যোগ দেওয়ার পূর্বেই করোনায় মৃত্যু হল বিজেপির রাজ্য সভার সাংসদের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হল বিজেপির কর্নাটক থেকে রাজ্যসভার সাংসদ অশোক গাস্তির। বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুর মণিপাল হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন পেশায় আইনজীবী অশোক। এমাসের দুতারিখ কোভিড–১৯ পজিটিভ ধরা পড়ার পর ওই হাসপাতালেই ভর্তি ছিলেন তিনি।

এর আগে তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারীর সাংসদ এইচ বসন্তকুমার ২৮ আগষ্ট করোনা যুদ্ধে পরাজিত হয়ে মারা যান। সাংসদ অশোক গাস্তির মৃত্যুতে আরো একজন সাংসদের মৃত্যু হল।

উত্তর কর্নাটকের রাইচুরের বাসিন্দা ৫৫ বছরের অশোক, এবারই প্রথম সাংসদ হয়েছিলেন। এর আগে তিনি স্থানীয় বিজেপির বুথ স্তরের কর্মী ছিলেন। রাইচুরে বিজেপিকে সংগঠিত করে দলের শক্তি বৃদ্ধির যোগ্যতার স্বীকৃতি হিসেবে তাঁকে রাজ্যসভার সাংসদ হিসেবে মনোনীত করেছিল বিজেপি। মাত্র কয়েক মাস আগে জুনেই তিনি রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হন। তারপর গত ২২ জুলাই সাংসদ পদে শপথ গ্রহণ করেন। সেসময় লকডাউন এবং করোনা মহামারী চলতে থাকায় সংসদের অধিবেশন বসেনি।

এবারই প্রথমবার সংসদে প্রবেশের কথা ছিল অশোকের। রাজ্যসভার সাংসদ হিসেবে তাঁর মনোনয়নের পর খুশিতে উদ্বেল অশোক সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দাবি করেছিলেন, ‘‌একজন বুথ স্তরের কর্মীর এই সুযোগ শুধুমাত্র বিজেপিতেই সম্ভব।

এটা বিজেপির অনেক কর্মীদের মনে আশা জুগিয়েছে। আমি বিজেপির শীর্ষ নেতাদের ধন্যবাদ জানাই।’‌ আরএসএস এবং এবিভিপি–র সদস্য অশোক গাস্তি ১৮ বছর বয়সে বিজেপিতে যোগ দিয়ে কর্নাটকের যুব মোর্চার সভাপতি হয়েছিলেন। ২০১২–এ কর্নাটক পিছিয়ে পড়া সমাজ কমিশনের সভাপতি হয়েছিলেন।

Categories
দেশ

গোমাংস বিক্রির অভিযোগে গণপিটুনি! অসম সরকারকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ মানবাধিকার কমিশনের

গোমাংস বিক্রির অভিযোগে গণপিটুনি! অসম সরকারকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ মানবাধিকার কমিশনের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: গোমাংস বিক্রির অভিযোগে বেধড়ক গণপিটুনির ঘটনায় অসম সরকারকে এক লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বলে নির্দেশ দিল ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস কমিশন। গত বছর এপ্রিলে অসমের বিশ্বনাথ জেলার এই ঘটনায় কমিশন এও জানিয়েছে, মুখ্যসচিব এখনও শো-কজ নোটিসের জবাব দেননি। পুলিশের ডিজিও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ করা হয়েছে সে নোটিস জমা দেননি।

গত বছর সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওয় দেখা যায়, রাস্তার ধারে হাঁটু মুড়ে বসে তাঁকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য ভিক্ষে চাইছেন ৬৮ বছরের শৌকত আলি। তবে তাতে বিন্দুমাত্র ভ্রূক্ষেপ না করে চলছে অকথ্য অত্যাচার। মারধর করা হচ্ছে তাঁকে, রয়েছেন কিছু পুলিশকর্মীও।

তদন্তে জানা যায়, আসল ঘটনাটি ২০১৯ সালের ৭ এপ্রিলের। শৌকত আলি বাজারে গরুর মাংস বিক্রি করছিলেন বলে দাবি করে জনতা। প্রসঙ্গত, অসমে গোমাংস বিক্রি করা এবং খাওয়া আইনত বৈধ। কিন্তু তবু শৌকতের কাছে বিফ বিক্রি করার লাইসেন্স আছে কি না জিজ্ঞেস করে উত্তেজিত জনতা তাঁর কাছে জানতে চায়, “তুমি কি বাংলাদেশি? তোমার নাম কি এনআরসি-তে রয়েছে?”

এখানেই শেষ নয়। এর পরে জনসমক্ষে জোর করে তাঁকে শুয়োরের মাংসও খাওয়ানো হয় বলে অভিযোগ। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৫ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর পরে গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে বিরোধী নেতা দেবব্রত সইকিয়ার অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে মানবাধিকার কমিশন। ডিজিপি-র কাছে ঘটনার রিপোর্ট তলব করা হয় চার সপ্তাহে। মুখ্যসচিবকেও শো কজ করা হয়। কোনও উত্তরই আসেনি এখনও।

শৌকত আলির ভাই সাহাবুদ্দিন আলির লিখিত অভিযোগও রয়েছে এ বিষয়ে। তিনি দাবি করেছিলেন, তাঁর দাদা বাজারে একটি ছোট দোকানে রান্না করা গরুর মাংস বিক্রি করেন। এটাই গত তিন দশক ধরে তাঁদের পারিবারিক ব্যবসা। কখনও কোনও সমস্যা হয়নি এতদিন।

 

শেষমেশ বুধবার মানবাধিকার কমিশন রায় দেয়, যে ঘটনা ঘটেছে তাতে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে ওই ব্যক্তির। তাঁর জাত, ধর্ম নিয়ে অপমান করা হয়েছে। সরকারের তরফে ১ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ দিতে হবে শৌকত আলিকে। টাকা দেওয়ার প্রমাণ কমিশনের কাছে দাখিল করতে হবে ৬ সপ্তাহের মধ্যে।

 

The wall

Categories
দেশ

দিল্লি হিংসায় উস্কানিমূলক বক্তব্যের পরও চার্জশিটে নাম নেই কেন বিজেপি নেতাদের? প্রশ্ন প্রাক্তন পুলিশকর্তার

দিল্লি হিংসায় উস্কানিমূলক বক্তব্যের পরও চার্জশিটে নাম নেই কেন বিজেপি নেতাদের? প্রশ্ন প্রাক্তন পুলিশকর্তা জুলিও রিবেইরোর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: গত ফেব্রুয়ারিতে দিল্লিতে হওয়া দাঙ্গার চার্জশিট দাখিল করেছে দিল্লি পুলিশ। ১৭ হাজার পাতার চার্জশিটে ১৫ জন অভিযুক্তের নাম রয়েছে। কিন্তু উল্লেখযোগ্যভাবে সেখানে নাম নেই কোনও বিজেপি নেতার নাম। কেন নাম থাকবে তাদের। পুলিশের প্রাক্তন আধিকারিক জুলিও রেবেইরো প্রশ্ন তোলেন, এই দাঙ্গার আগে বিজেপির নেতারা যে উসকানিমূলক বক্তৃতা করেছিলেন তাঁদের নাম নেই কেন এই চার্জশিটে।

পদ্মভূষণ পুরস্কারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক রেবেইরো একসময় মুম্বই, গুজরাত এবং পঞ্জাব পুলিশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি সিআরপিএফের শীর্ষস্থানেও ছিলেন। প্রথম চিঠিতে তিনি দিল্লির তিন বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র, অনুরাগ ঠাকুর ও প্রবেশ বর্মার নাম উল্লেখ করে প্রশ্ন তোলেন, তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে না কেন। কারণ, এই তিন নেতাই দিল্লি দাঙ্গার আগে উসকানিমূলক বক্তব্য রেখেছিলেন।

তিনি স্পষ্টই জানিয়েছেন, এই ধরনের বক্তব্য যদি অন্য কেউ দিতেন, তাহলে তাঁদের নাম চার্জশিটে ঢুকিয়ে দেওয়া হত। কিন্তু এঁরা বিজেপি নেতা বলেই তাঁদের নাম নেই চার্জশিটে। যদিও দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে স্পষ্টই জানানো হয়েছে, তদন্তে যাঁদের দোষ পাওয়া গিয়েছে, তাঁদের নামই রাখা হয়েছে। সঠিক পথেই পক্ষপাতহীনভাবে এই তদন্ত করা হচ্ছে।