Categories
দেশ

নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর দেশজুড়ে কৃষক অসন্তোষ বেড়েছে ৭০০%: চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ

নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর দেশজুড়ে কৃষক অসন্তোষ বেড়েছে ৭০০%: চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: কথা রাখেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২০১৪–র নির্বাচনী প্রচারে তাঁর প্রতিশ্রুতি ছিল, আয় বাড়বে কৃষকদের। বাড়েনি। পথে নামতে বাধ্য হয়েছেন কৃষকরা। কেন্দ্রে বিজেপি ক্ষমতায় আসার কয়েকমাস পর থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছোটখাটো কৃষক আন্দোলন মাথাচারা দিয়েছে। ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর রিপোর্ট বলছে, ২০১৪ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে কৃষক প্রতিবাদের সংখ্যা ৬২৮ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪,‌৮৩৭, অর্থাৎ বেড়েছে ৭০০%।
সংবাদমাধ্যম ‘‌দ্য প্রিন্ট’–এর প্রতিবেদনে লেখা হচ্ছে, তখন মূলত রাজ্যে কিংবা আঞ্চলিক স্তরেই ছোট–মাঝারি কৃষক আন্দোলন দানা বেঁধেছে। যা কিনা হামেশাই জাতি–রাজনীতির অংশ হয়ে উঠত, যেকারণে ওই আন্দোলন কখনই বড় আকার পায়নি।

তবে ২০১৭ সালের দু’‌টি ঘটনার পর কৃষক–ক্ষোভের একটা দমকা হাওয়া সারা দেশে বয়ে গিয়েছিল। দিল্লির যন্তর–মন্তরে কয়েক সপ্তাহ ধরে অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়েছিলেন তামিলনাড়ুর কৃষকরা। প্রতিবাদী কৃষকদের গলায় ঝোলানো ছিল কঙ্কালের খুলির মালা, মুখে মৃত ইঁদুর!‌ তারপর ওই বছরেরই জুন মাসে মান্ডসুরে মধ্যপ্রদেশ পুলিশের হাতে ছ’‌জন কৃষকের মৃত্যু। মূলত এই দু’‌টি ঘটনার পর থেকেই ভিত মজবুত করার লক্ষ্যে নেমে পড়েছিল কৃষক সংগঠনগুলো।

পদযাত্রার পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কৃষকদের একত্রিত করেছে সংগঠনগুলো। গজিয়ে উঠেছে শয়ে শয়ে আরও ছোট–মাঝারি সংগঠন। গ্রামাঞ্চলে বিক্ষোভ কর্মসূচির পাশাপাশি শহরাঞ্চলে প্রতিবাদ দানা বেঁধেছে। ছোট–মাঝারি কৃষক সংগঠনগুলিকে এক ছাতার তলায় নিয়ে এসে তৈরি হয়েছে ‘‌অল ইন্ডিয়া কিসান সঙ্ঘর্ষ কো–অর্ডিনেশন কমিটি’‌। ২০টি রাজ্যের প্রায় ২৫০টি কৃষক সংগঠন এই কমিটির অন্তর্গত।

এই পরিস্থিতিতে কৃষক সমস্যাকে এড়িয়ে যাওয়ার সাহস নেই মোদি সরকারের, আর তাই এই কৃষি বিল। তাতে আসলে আগুনে ঘি–ই ঢালা হয়েছে, বলছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ন্যূনতম সহায়ক মূল্যও বাড়িয়েছে কৃষি মন্ত্রক।

কৃষি বিলের আসল উদ্দেশ্য বোঝাতে আসরে নেমেছেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর। বলেন, ‘‌এই বিলে কৃষকদের ক্ষতি হবে, এমন কোনও বিষয় নেই। ছোট কৃষকদের লাভের কথা ভেবেই বিল আনা হয়েছে।’ উল্টোদিকে রাহুল গান্ধীর বক্তব্য, ‘‌ক্রুটিপূর্ণ জিএসটি ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে ধ্বংস করেছে। নতুন কৃষি আইন আমাদের কৃষকদের ক্রীতদাস বানাবে।’ ভোট–রাজনীতির খেলায় আবারও কৃষকদের দুর্দশা চাপা পড়ে যাবে না তো?‌ প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

Categories
দেশ

উমর খালিদের মুক্তির দাবি জানাল দেশের প্রথম সারির দুই শতাধিক শিক্ষাবিদ, লেখক এবং চলচ্চিত্র ব্যক্তি

উমর খালিদের মুক্তির দাবি জানাল দেশের প্রথম সারির দুই শতাধিক শিক্ষাবিদ, লেখক এবং চলচ্চিত্র ব্যক্তি

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: নাগরিকত্ব আইন সিএএ ও এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মুখ, জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রনেতা উমর খালিদের মুক্তি দাবি করে মোদি সরকারের উদ্দেশে বিবৃতি দিয়েছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের দুই শতাধিক শিক্ষাবিদ, লেখক এবং চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব।

এদের মধ্যে অন্যতম নোয়াম চমস্কি, মীরা নায়ার, অমিতাভ ঘোষ, সালমন রুশদি, অরুন্ধতী রায়, রত্না পাঠক শাহ, পি সাইনাথেরা। উত্তর পশ্চিম দিল্লির সাম্প্রদায়িক সহিংসতা মামলার চার্জশিটে উমর খালিদ-সহ সিএএ-এনআরসি-বিরোধী আন্দোলনের অনেক নেতাকেই আসামি করেছে বিজেপি সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন দিল্লি পুলিশ।

বিশিষ্ট ২০০ জন তাদের বিবৃতিতে লিখেছেন, নাগরিকদের সমানাধিকার লঙ্ঘনকারী এনআরসি-সিএএ-র বিরোধিতা করার জন্যই দিল্লি পুলিশ উমর খালিদকে দাঙ্গায় উস্কানির মতো মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতার করেছে। সরকারের উচিত অবিলম্বে তাকে মুক্তি দেওয়া। এই কাজ করে দিল্লি পুলিশ তাদের সাংবিধানিক শপথও ভঙ্গ করেছে। বিবৃতিতে লেখা হয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে হিংসার ঘটনার পরে সেপ্টেম্বরে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া এই সাহসী মানবাধিকার কর্মীর পাশে আমরা আছি।

বৃহস্পতিবার উমর খালিদকে ২২ অক্টোবর পর্ষন্ত জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে ওই দেশের আদালত। জেলের মধ্যে তার উপরে হামলা হতে পারে আশঙ্কা করে খালিদের জন্য সেখানে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করার আর্জি জানিয়েছেন তার আইনজীবী।

Categories
দেশ

মোদি সরকারের কৃষি বিল কৃষক বিরোধী: দেশজুড়ে পথ অবরোধ, অবস্থান-বিক্ষোভ কৃষকদের

মোদি সরকারের কৃষি বিল কৃষক বিরোধী: দেশজুড়ে পথ অবরোধ, অবস্থান-বিক্ষোভ কৃষকদের

 

 

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: কৃষি বিল সংসদের দুই কক্ষে পাশ হওয়ার পরেই দেশের একাধিক কৃষক সংগঠনের সমন্বয় কমিটি আন্দোলনের ডাক দিয়েছে। ঘোষণা করা হয়েছিল, আজ ২৫ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকারকে বোঝানো হবে দেশের কৃষক, ক্ষেতমজুরদের শক্তি। এদিন সকাল থেকেই দেশজুড়ে চলছে কৃষি বিল বিরোধী বিক্ষোভ। এবার বিরোধীদের সুরে সুর মিলিয়ে এই বিলের প্রতিবাদে ইতিমধ্যে সোচ্চার হয়েছেন, হরিয়ানা বিজেপির দুই নেতা পরমিন্দর সিং ধুলে এবং রামপাল মাজরা। তাঁদের দাবি, কেন্দ্রের এই কৃষি বিল ‘কৃষক বিরোধী’।

 

শুক্রবার সকাল থেকেই গোটা দেশজুড়ে রাস্তায় নেমে পড়েছেন লক্ষ লক্ষ কৃষক। পঞ্জাব, হরিয়ানা, রাজস্থানের মতো কৃষি প্রধান রাজ্যে বিক্ষোভ চলছিলই। এদিন তা আরও তীব্র আকার নিয়েছে। পশ্চিম ও উত্তর ভারতের একাধিক রাজ্যে রেল লাইনে বসে পড়েছেন কৃষকরা।

 

 

এদিকে, শুধু হরিয়ানাই নয়, একাধিক বিজেপি শাসিত রাজ্যেও আজ বিশাল বিশাল মিছিল বেরিয়েছে কৃষি বিল প্রত্যাহারের দাবিতে। বিহার, উত্তরপ্রদেশ, কর্ণাটক, কেরল, তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশেও কৃষক বিক্ষোভ চলছে পাল্লা দিয়ে। ত্রিপুরার রাজধানী শহর আগরতলায় একাধিক জায়গায় বাম গণসংগঠনগুলোর রাস্তা অবরোধে যান চলাচল স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে বলে খবর। পশ্চিমবঙ্গের সব জেলাতেই বাম কংগ্রেসের কৃষক সংগঠন ও কোথাও কোথাও তৃণমূল কংগ্রেসও কৃষি বিলের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করে।

Categories
বিশ্ব

সিংহের লেজ নিয়ে নাড়াচাড়া করবেন না: ট্রাম্পকে হুঁশিয়ারি ইরানের

সিংহের লেজ নিয়ে নাড়াচাড়া করবেন না: ট্রাম্পকে হুঁশিয়ারি ইরানের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সামরিক উপদেষ্টা ও সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেইন দেহকান হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, তার দেশের বিরুদ্ধে আমেরিকার যেকোনো বিদ্বেষী পদক্ষেপের ‘অনুশোচনামূলক জবাব’ দেয়া হবে। তিনি ‘সিংহের লেজ নিয়ে নাড়াচাড়া করা’র ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সতর্ক করে দিয়েছেন।

ইরানের কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেঃ জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার পক্ষে সাফাই গেয়ে সম্প্রতি ট্রাম্প জাতিসংঘে যে বক্তব্য দিয়েছেন দেহকান তার বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় হামেদান প্রদেশে দেয়া এক বক্তৃতায় বলেন, “যে জাতিসংঘের হওয়া উচিত ছিল শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার কেন্দ্রবিন্দু সেখানে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প গর্বের সঙ্গে জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার নির্দেশ প্রদানের কথা ঘোষণা করেন। অথচ এই ট্রাম্পই আবার নিজেকে বিশ্ব নেতা, মানবাধিকার ও সভ্যতার বিনির্মাণকারী দাবি করেন।”

ট্রাম্পের সরাসরি নির্দেশে চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি জেনারেল সোলাইমানিকে ইরাকের রাজধানী বাগদাদে ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসী মার্কিন সেনারা। এমন সময় তাকে শহীদ করা হয় যখন তিনি ইরাক সরকারের আমন্ত্রণের রাষ্ট্রীয় অতিথি হিসেবে বাগদাদ সফরে গিয়েছিলেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সামরিক উপদেষ্টা দেহকান আরো বলেন, “আমেরিকা এ পর্যন্ত তার কৃতকর্ম থেকে অনেক শিক্ষা পেয়েছে। তারপরও ধারনা করা হচ্ছে দেশটি কিছু ভুল ও অপরিপক্ক হিসাবনিকাশের ওপর ভিত্তি করে ইরানের বিরুদ্ধে নতুন করে একটি ফ্রন্ট গঠনের চেষ্টা করছে। কিন্তু আমেরিকার এই পদক্ষেপের অনুশোচনামূলক জবাব দেয়া হবে।”

Categories
দেশ

এটা চার্জশিট নয়, এটা আসলে চিটশিট: দিল্লি হিংসার চার্জশিট নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে আক্রমণ বৃন্দা কারাতের

এটা চার্জশিট নয়, এটা আসলে চিটশিট: দিল্লি হিংসার চার্জশিট নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে আক্রমণ বৃন্দা কারাতের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: “এটা চার্জশিট নয়, এটা আসলে চিটশিট( প্রতারণা পত্র)।” দিল্লি দাঙ্গা মামলায় দিল্লি পুলিশ কর্তৃক জমা দেওয়া শেষ চার্জশিটে তাঁর নাম থাকা প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে একথা বললেন সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাত।

সংবাদমাধ্যমে সিপিআইএম নেত্রী বলেন, “আমি বলছি এটা কোনো চার্জশিট নয়, এটা চিটশিট। ভারত সরকার দিল্লি পুলিশের সাহায‍্যে, যা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশে চলে, দেশের মানুষের সাথে প্রতারণা করছে।”

বৃন্দা কারাত আরও বলেন, “কপিল মিশ্রের মতো যারা এই সাম্প্রদায়িক সহিংসতার জন্য প্রকৃতপক্ষে দায়ী তারা এই একই চিটশিটে হুইসেলব্লোয়ার্স হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। আমরা যারা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ দেখিয়েছি তাদের ভারত-বিরোধী, সংবিধান-বিরোধী আখ‍্যা দেওয়া হয়েছে। আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হচ্ছে, সুতরাং এটি কেবল মানুষকে প্রতারণা করছে।”

দিল্লি দাঙ্গায় আদালতে দিল্লি পুলিশ শেষ যে চার্জশিট জমা দিয়েছে সেখানে বৃন্দা কারাত ছাড়াও প্রবীণ কংগ্রেস নেতা সালমান খুরশিদ, বিশিষ্ট আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ, সিপিআই-এমএল পলিটব্যুরোর সদস্য কবিতা কৃষ্ণন, ছাত্র কর্মী কাওলপ্রীত কৌর, বিজ্ঞানী গওহর রাজার নাম যোগ করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। একজন বিশেষ সাক্ষীর বয়ানের ভিত্তিতে চার্জশিটে এই বিশিষ্টজনদের নাম উল্লেখ করেছে পুলিশ। এই সাক্ষীর পরিচয় বা কোন ধরনের উস্কানিমূলক বক্তৃতা দেওয়া হয়েছে সেসমস্ত কিছুই উল্লেখ করেনি পুলিশ।

Categories
দেশ

ঘোষণা বিহারের বিধানসভা নির্বাচন: তিন দফার শুরু ২৮ অক্টোবর, ফলাফল ১০ নভেম্বর

ঘোষণা বিহারের বিধানসভা নির্বাচন: তিন দফার শুরু ২৮ অক্টোবর, ফলাফল ১০ নভেম্বর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিহার ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। ২৮ অক্টোবর হবে প্রথম দফার ভোট। দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফার ভোট হবে যথাক্রমে ৩ এবং ৭ নভেম্বর। ফল ঘোষণা ১০ নভেম্বর। করোনা আবহে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি বজায় রেখেই এই নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার।

প্রথম দফায় (২৮ অক্টোবর) ১৬ জেলার ৭১ বিধানসভার জন্য ভোট গ্রহণ করা হবে। ১৭ জেলার ৯৪ কেন্দ্রের ভোট হবে দ্বিতীয় দফায় (৩ নভেম্বর) এবং তৃতীয় দফায় (৭ নভেম্বর) হবে ১৫ জেলার ৭৮ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ।
বিহার বিধানসভা ভোটে এবার মোট ৭২ মিলিয়ান ভোটার তাঁদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করবেন। মোট ২৪৩ আসনের মধ্যে ৩৮টি তফশিলি জাতি ও ২ তফশিলি উপজাতির জন্য সংরক্ষিত।

কোভিড স্বাস্থ্য বিধি বজায় রেখে বিহার ভোটে ৭ লক্ষ স্যানিটাইজার ইউনিট, ৪৬ লক্ষ মাস্ক, ৬ লক্ষ পিপিই কিট, ৬.৭ ফেস শিল্ড, ২৩ লক্ষ গ্লাভসের আয়োজন রাখা হচ্ছে। ৭.২ একবার ব্যহার্য গ্লাভসেরও আয়োজন থাকবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা।

নিউ নর্মালে ভারতীয় নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সরাসরি অনলাইন ব্যবস্থার প্রয়োগ শুরু হচ্ছে বিহার থেকেই। প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র তোলা ও জমার কাজ অফলাইন-অনলাইনে করতে পারবেন। সিরিউরিটির অর্থও অনলাইনে জনা করা যাবে। অফলাইনে মনোনয়ন জনা করা হলে প্রার্থীর সঙ্গে মাত্র দু’জনকে থাকার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে মাত্র তিন জন প্রচার কাজ সারতে পারবেন। কনভয়ে পাঁচটির বেশি গাড়ি ব্যবহার করা যাবে না। প্রচারের জন্য বড় জমায়েত করা যাবে না। এক একটি বুখে ভোটারের সংখ্যা ১৫০০ থেকে কমিয়ে ১০০০ করা হয়েছে।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা বলেন, দুনিয়াজুড়ে অন্তত ৭০ দেশে নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বর্তমানে যা পরিস্থিতি তাতে এটুকু অন্তত স্পষ্ট যে এখনই পুরোপুরি তা নিয়ন্ত্রণে আসবে না। কিন্তু, করোনার জন্য গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াও দীর্ঘ সময় ধরে বন্ধ থাকতে পারে না। তাই ভারসাম্য রাখতেই ভোট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আগামী ২৯ নভেম্বর বিহারের বর্তমান বিধানসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তার আগেই নতুন বিধানসভা গঠন করতে হবে।

করোনা আবহে মুজফ্ফরপুরের এক সমাজকর্মী ভোট বন্ধ করার দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন। কিন্তু বিচারপতি অশোক ভূষণের নেতৃত্বে তিন বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ সেই আবেদন খারিজ করে দেয়। ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, আদালত নির্বাচন কমিশনের কাজে হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের নেতৃত্বেই এনডিএ এবার ভোটে লড়ছে। মোদী থেকে নাড্ডা- আগেই তা ঘোষণা করেছেন। বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জিতনরাম মাঁঝির ‘হিন্দুস্তান আওয়াম মোর্চা’এবার এনডিএ-তে যোগ দিয়েছে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উপেন্দ্র কুশওয়াহার আরএলএসপি-ও শাসক শিবিরে যোগ দিতে পারে বলে খবর। এদিকে আরজেডি-র নেতৃত্বাধীন বিরোধী মহাজোটে রয়েছে কংগ্রেস ও বামেরা। তবে তাদের আসন রখা এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

Categories
বিশ্ব

ফের মোদী সরকারের স্ক্যানারে জাকির নায়েক: দেশবিরোধী বক্তব্যের অভিযোগে বন্ধ হতে চলেছে তাঁর সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া

ফের মোদী সরকারের স্ক্যানারে জাকির নায়েক: দেশবিরোধী বক্তব্যের অভিযোগে বন্ধ হতে চলেছে তাঁর সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ফের মোদী সরকারের স্ক্যানারে ইসলামিক বক্তা জাকির নায়ক। পিস টিভি মোবাইল অ্যাপ, পিস টিভির নামে ইউ টিউব চ্যানেল ফেসবুক পেজ। এই সব কটি মাধ্যম ব্যবহার করে জাকির নায়েক যুবসমাজের উদ্দেশে জেহাদি ভাষণ দেয়। কেন্দ্রের কাছে এমনই রিপোর্ট জমা দিল ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো। জাকির নায়েকের সব কটি যোগাযোগ মাধ্যম এবার ব্যান করার কথা ভাবতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। অনেক আগেই পিস টিভি ব্যান করেছে সরকার। ওই চ্যানেলের মাধ্যমে  জাকির নায়েক যুবসমাজক কট্টরপন্থী জেহাদি হওয়ার আহ্বান জানাাাায় বলে অভিযোগ ছিল।

পিস টিভি বন্ধ হওয়ার পর এবার সোশ্যাল মিডিয়াকেই হাতিয়ার করেছে জাকির নায়েক। সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক প্ররোচনামূলক ভিডিয়ো আপলোড করছে  এই ইসলামিক ধর্মগুরু। আর তা হিংসা ছড়াচ্ছে বলে জানিয়েছে আইবি।তিনি এখন মালয়েশিয়ায় আশ্রয়ে আছেন বলে জানতে পেরেছে গোয়েন্দারা। সেখানেও নিষিদ্ধ আছে তাঁর প্রকাশ্য সভা।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সূত্রে জানা গিয়েছে, জাকির নায়ক তাঁর একাধিক সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে মুসলিম যুবকদের নিয়োগ করে তাঁদের মধ্যে দেশ বিরোধী মনোভাব গড়ে তুলছেন। এবং ভারত বিরোধী কাজে উস্কানি দিচ্ছেন। গোয়েন্দারা জানিয়েছেন বিভিন্ন জিহাদি গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগ রয়েছে জাকির নায়েকের। এবং একাধিক জিহাদি সংগঠনের কাছ থেকে আর্থিক সাহায্য পেয়ে থাকেন তিনি।

Categories
বিশ্ব

সৌদি আরবে গণতান্ত্রিক সরকার গঠনের লক্ষ্যে গঠিত হল বিরোধী দল: চিন্তায় রাজ পরিবার

সৌদি আরবে গণতান্ত্রিক সরকার গঠনের লক্ষ্যে গঠিত হল বিরোধী দল: চিন্তায় রাজ পরিবার

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: সৌদি থেকে নির্বাসিত হয়ে একাধিক দেশে বসবাসরত ভিন্ন মতালম্বীরা রাজনৈতিক দল গঠনের ঘোষণা দিয়েছে। দলটিতে আছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে নির্বাসিত সৌদি নাগরিকেরাও।

আলজাজিরা জানিয়েছে, সৌদি রাজনৈতিক দলটির নাম ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি পার্টি। বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের শাসনামলে এ প্রথম কোনো বিরোধী দল গঠন হলো।

পুরোপুরি রাজতন্ত্র শাসিত সৌদি আরব কোনো বিরোধী দলের অস্তিত্বকে বরদাশত করে না। এর মধ্যে দেশটিতে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মত প্রকাশের স্বাধীনতা আরও বেশি খর্ব হয়েছে। এর মধ্যে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ক্ষমতারোহনের প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযান চালানো হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে সৌদি আরবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন বুধবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি পার্টির ঘোষণা দেন নির্বাসিতরা।এদিন এক বিবৃতিতে সদ্য গঠিত সৌদি বিরোধী দলটি জানায়, আমরা ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি পার্টির ঘোষণা দিচ্ছি, যার লক্ষ্য সৌদি আরবে একটি গণতান্ত্রিক সরকার গঠন করা।

রাজনৈতিক দলটির শীর্ষে আছে লন্ডনভিত্তিক সৌদি মানবাধিকার কর্মী ইয়াহিয়া আসিরি, ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব মাদাবি আল-রশিদ, গবেষক সাঈদ বিন নাসের আল-গামদি, যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সৌদি সংগঠক আব্দুল্লাহ আলাউদ, কানাডা ভিত্তিক সৌদি সংগঠক ওমর আব্দুলআজিজসহ আরও অনেকে।

এর আগে ২০০৭ ও ২০১১ সালে উপসাগরীয় দেশটিতে রাজনৈতিক দল গঠনের প্রচেষ্টা দেখা দিয়েছিল। কিন্তু সেই প্রচেষ্টাকে রুখে দেয় সৌদি সরকার এবং এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

তবে আরব বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী শাসক পরিবারের সামনে একেবারেই দুর্বল মনে হলেও করোনাকালীন অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক দল গঠনের বিষয়টি সৌদি সরকারের জন্য নতুন একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবেই ধরা হচ্ছে।

Categories
বিশ্ব

মধ্যপ্রাচ্যে সন্ত্রাসবাদের মূল কারিগর সৌদি আরব: ইরান

মধ্যপ্রাচ্যে সন্ত্রাসবাদের মূল কারিগর সৌদি আরব: ইরান

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ইরান শক্তিশালী সন্ত্রাসী নেটওয়ার্ক গড়ে পুরো মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিরতা তৈরি করেছে সৌদির রাজপুত্র সালমান বিন আব্দুল আজিজের এমন মন্তব্যকে ’বিকারগ্রস্ত আলাপ’ আখ্যা দিয়েছে তেহরান। জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে ইরানের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন রাজপুত্র সালমান বিন আব্দুল আজিজ। তার এমন বক্তব্যে বেশ চটেছে ইরান।

সালমানের ভাষণের প্রতিক্রিয়ায় ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ অভিযোগ করেন, ‘এই অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদের মূল কারিগর সৌদি আরব। বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে দিনের পর দিন আর্থিকসহ প্রয়োজনীয় সহায়তা দিয়ে আসছে দেশটি। রিয়াদ নিজেদের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের অপরাধের দায়ভার অন্যের উপর চাপিয়ে আসছে’।

সুন্নী মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ সৌদি আরব এবং শিয়া অধ্যুষিত ইরান বছরের পর বছর ধরে ইয়েমেনসহ এই অঞ্চলে বেশ কয়েকটি প্রক্সি যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনের সশস্ত্র গোষ্ঠী হাউথিদের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে সেখানে হাউথিদের সহায়তা দিয়ে আসছে তেহরান।

সৌদির কর্মকাণ্ডে নিন্দা জানিয়ে খতিবজাদেহ আরও বলেন, ‘সৌদি অন্যায়ভাবে কয়েক বছর ধরে ইয়েমেনের অগনিত নারী ও শিশুসহ নিরপরাধ বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছে। সেখানে বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে। তাদেরকে দেশত্যাগ করতে বাধ্য করছে বাদশাহ আজিজের সরকার’।
তিনি আরও যোগ করেন, ইরানের উপর অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্র যে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে তাতে সৌদি আরব উল্লাস করে।

Categories
রাজ্য

করোনা আক্রান্ত রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী: হাসপাতালে ভরতি হতে পারেন আজ

করোনা আক্রান্ত রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী: হাসপাতালে ভরতি হতে পারেন আজ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: লকডাউনের পর থেকে বেশ কয়েকটা মাস নিজে বাড়িতেই ছিলেন। এমনকী রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠক অথবা দলের কর্মসূচিতেও খুব একটা দেখা যায় না রাজ্যের পরিবহণ ও সেচমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে।

এবার তিনিও করোনায় আক্রান্ত হলেন। বৃহস্পতিবার সন্ধেবেলা কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট হাতে পান পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। কোভিডে আক্রান্ত তাঁর বয়স্কা মা-ও। তাঁকে রাতেই হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে বলে পরিবার সূত্রে খবর। আজ হাসপাতালে ভরতি হতে পারেন শুভেন্দু অধিকারী।

কাঁথির অধিকারী পরিবার সূত্রে খবর, তেমন কোনও উপসর্গ না থাকলেও দিন কয়েক আগে সন্দেহ হওয়ায় শুভেন্দু অধিকারী করোনা পরীক্ষা করান। বৃহস্পতিবার সন্ধেবেলা সেই পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। জানা গিয়েছে, এদিনই হলদিয়ায় তাঁর একটি কর্মসূচি ছিল। কিন্তু তাতে যোগ দেননি শুভেন্দু অধিকারী। এরপর সন্ধেবেলা রিপোর্ট পেতেই কোলাঘাটের একটি সরকারি গেস্ট হাউসে তিনি আইসোলেশনে চলে যান। একইসঙ্গে কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাঁর মা গায়েত্রী অধিকারীর।

পরিবার সূত্রে আরও খবর, দিন কয়েক আগেই মন্ত্রীর মায়ের অস্ত্রোপচার হয়েছে, তাঁর স্থূলতাজনিত সমস্যাও আছে। তাই করোনা রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ার পর আর ঝুঁকি না নিয়ে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার পরই গায়েত্রী দেবীকে এক নামী বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করানো হয়। তাঁকে সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।