Categories
দেশ

বিরোধীদের প্রবল আপত্তি সত্ত্বেও ‘বিতর্কিত’‌ কৃষি বিলে সই করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ

বিরোধীদের প্রবল আপত্তি সত্ত্বেও ‘বিতর্কিত’‌ কৃষি বিলে সই করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিরোধীদের অনুরোধে পাত্তা না দিয়েই ‌‘‌বিতর্কিত’‌ তিনটি কৃষি বিলে সই করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। বিরোধীদের চরম বিরোধিতা সত্ত্বেও গত সপ্তাহে রাজ্যসভায় দু’‌টি বিল পাশ করিয়ে নেয় কেন্দ্র। তারপরেই রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে বিরোধীদের একটি দল।

রামনাথ কোবিন্দের কাছে তাঁদের আবেদন, তিনি যেন এই ‘‌কৃষক–বিরোধী’‌ বিলে সই না করেন!‌ বিরোধীদের দাবি, তিনটি বিলকেই সংসদীয় সিলেক্ট কমিটিতে পাঠিয়ে পুনর্বিবেচনা করা হোক। রাজি হয়নি মোদি সরকার।

এরই মধ্যে রবিবার রাজ্যসভা টিভি ফুটেজ সামনে আসে। তাতে দেখা যাচ্ছে, যেনতেন প্রকারেণ রাজ্যসভায় কৃষি বিল পাস করানোর জন্য নিয়মনীতির তোয়াক্কা করেনি সরকার। শুরু থেকেই এই অভিযোগ করেছিল বিরোধীরা।

Categories
দেশ

ব্রাহ্মন্যবাদের বিরুদ্ধে ফেসবুক পোস্ট: গুজরাটে খুন বামসেফ নেতা দলিত আইনজীবী

ব্রাহ্মন্যবাদের বিরুদ্ধে ফেসবুক পোস্ট: গুজরাটে খুন বামসেফ নেতা দলিত আইনজীবী

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: খুন হওয়া দেবজি মহেশ্বরী অখিল ভারত পশ্চাৎ ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কর্মচারী ফেডারেশন (বিএএমসিইএফ) এবং ভারতীয় আইনী পেশাদার সংঘের সিনিয়র কর্মী ছিলেন।

মুম্বাইয়ের মালাড ওয়েস্টের একটি স্টেশনারী শপের এক কর্মচারীকে শনিবার গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, গুজরাটের কাঁচ জেলায় একটি দলিত আইনজীবী ও কর্মীকে তার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের কারণে খুন করার অভিযোগের ২৪ ঘণ্টারও কম সময় পরে।

দলিত আইনজীবী ‘ব্রাহ্মণবিরোধী পোস্ট’ করায় খুন হয়েছিলেন: জানায় পুলিশ। দেবজি মহেশ্বরীর ফেসবুক পোস্টের সর্বশেষ পোস্টটি ছিল বিএএমসিইএফ জাতীয় প্রেসিডেন্ট ওমান মেশরামের একটি ভিডিও যাতে বলা হয়েছে যে তফসিলি জাতি, তপশিলী উপজাতি এবং অন্যান্য পিছিয়ে পড়া শ্রেণির সদস্যরা হিন্দু নন।

মুম্বইয়ের পুলিশ জানিয়েছে, রাভাল, যিনি খুবি হিংস্র রাপারের বাসিন্দা, ব্রাহ্মণ্যবাদ সম্পর্কে তাঁর মতামত নিয়ে মহেশ্বরীর সাথে সংঘর্ষ করেছিলেন। “মহেশ্বরী তাঁর ফেসবুক পেজে ব্রাহ্মণ্যবাদের সমালোচনামূলক পোস্ট লিখেছেন এবং শেয়ার করেছেন। রাওয়াল এই মতামতগুলির সাথে একমত নন এবং মহেশ্বরীকে বেশ কয়েকবার সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে এই জাতীয় পোস্ট প্রকাশ্যে লেখা থেকে বিরত থাকতে হবে, ”ক্রাইম ব্রাঞ্চের এক কর্মকর্তা বলেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, গত এক মাস ধরে মহেশ্বরী ও রাওয়াল দু’জনেরই বারবার সংঘর্ষ হয়েছিল। “রাওয়াল, যিনি ব্রাহ্মণ তিনি মহেশ্বরীকে বলেছিলেন যে তারা দু’জনই একই গ্রামের বাসিন্দা হওয়ায় সমস্যা তৈরি না করতে। তিনি একবার তাকে তার অফিসে হুমকিও দিয়েছিলেন। তবে মহেশ্বরী তাকে বলেছিলেন যে তিনি পিছু হটবেন না এবং তাঁর পছন্দমতো কাজ করার জন্য তাকে চ্যালেঞ্জ জানালেন, ”কর্মকর্তা বলেছিলেন।

Categories
দেশ

আদিবাসী খ্রীষ্টান যুবকের মাথা মুড়িয়ে “জয় শ্রী রাম” বলতে বাধ্য করলো গোরক্ষকরা

আদিবাসী খ্রীষ্টান যুবকের মাথা মুড়িয়ে “জয় শ্রী রাম” বলতে বাধ্য করলো গোরক্ষকরা

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ঝাড়খণ্ডের সিমডেগা জেলায় সাতজন আদিবাসী খ্রিস্টানকে গো হত্যার অভিযোগ এনে চুল কেটে, নির্মম মারধোর করে “জয় শ্রীরাম” বলতে বাধ্য করল তথাকথিত গোরক্ষকরা। পুলিশ সুপার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন এই ঘটনায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছে, অভিযুক্ত ৯ জনের মধ্যে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ, আরো ১০ জন ব্যক্তির উল্লেখ আছে এফআইআরে , তাঁদের কোনো নাম পাওয়া যায়নি।

ঘটনাটি ঘটে সেপ্টেম্বর মাসের ১৬ তারিখ, ১৭ তারিখ পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হয়। কিন্তু ঘটনাটি জনসমক্ষে আসে প্রাক্তন জেলা পরিষদ সদস্য ও সমাজকর্মী নীল জাস্টিন বেক স্থানীয় একটি নিউজ পোর্টালকে ঘটনাটি জানানোর পরে।

বিজেপি সরকারের আমলে এরকম ঘটনা ঝাড়খণ্ডে অসংখ্য ঘটতো। সরকার পরিবর্তনের পর ঝাড়খণ্ডে এরকম ঘটনা এটি প্রথম। উল্লেখ্য, ২০০৫ থেকে ঝাড়খণ্ডে গো হত্যা আইন অনুযায়ী নিষিদ্ধ, বিজেপি সরকার থাকা কালে ২০১৭ সাল থেকে আইনটি দৃঢ় ভাবে আরোপ করা হয়।

ঘটনার শিকার দীপক কিল্লু (২৬) জানান , তিনি ১৬ তারিখ দেখেন প্রায় ২৫ জনের একটি দল তাদের গ্রামে ঢুকছে হাতে লাঠিসোঁটা নিয়ে। তারা সকলেই আশ পাশের গ্রামের বাসিন্দা। দীপক দেখেন দলটি তাদের গ্রামের দিকে যাচ্ছে। তিনি কিছুক্ষণ পরে সেখানে উপস্থিত হন ও দেখেন গ্রামের বাসিন্দা রাজ সিং কিল্লুকে তারা মারধোর করছে এবং জাতি ধর্ম নিয়ে গালাগালি দিচ্ছে, সাথে রাজ সিং-এর স্ত্রী জ্যাকলিন কিল্লুকে উদ্দেশ্য করেও তারা একই ধরনের মন্তব্য করছে। তিনি প্রতিবাদ করলে তাঁকেও মারতে শুরু করে তারা। দেখানো হয় একটি মিথ্যা ভিডিও, দাবি করা হয় দীপকদের গ্রামে গো হত্যা করা হয়েছে। তাঁরা বারেবারে জানান ভিডিওটি মিথ্যা, কোনো গো হত্যার ঘটনা সেখানে ঘটেনি।

দীপকের অভিযোগ এরপর ওই দলটি রাজ এবং আরও পাঁচজনকে টানতে টানতে নিয়ে যায় স্থানীয় মাহাতো টোলা নামক জায়গায়।সেখানে তাদের কান ধরে ওঠবস করানো হয়, মাথা অর্ধেক কামিয়ে দেওয়া হয়, আর সাথে চলে অমানুষিক মারধোর। এরপর তাঁদের বাধ্য করা হয় “জয় শ্রীরাম” ধ্বনি দিতে। কিছুক্ষণ পরে পুলিশ এসে তাঁদের উদ্ধার করে।

Categories
রাজ্য

গাড়ির কাগজপত্র সঙ্গে নেই, রাস্তায় পুলিশ ধরেছে? ১ লা অক্টোবর থেকে চালু হচ্ছে নতুন নিয়ম

গাড়ির কাগজপত্র সঙ্গে নেই, রাস্তায় পুলিশ ধরেছে? ১ লা অক্টোবর থেকে চালু হচ্ছে নতুন নিয়ম

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: গাড়ি চালানোর সময় ড্রাইভিং লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, ইনসিওরেন্স পেপার ও পলিউশন সার্টিফিকেট-এর মত জরুরী কাগজপত্র ড্রাইভার-এর সঙ্গে থাকার দরকার নেই। পয়লা অক্টোবর থেকে এই নিয়ম চালু হচ্ছে। এই ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় একটি অ্যাক্ট জারি করেছে। সেখানে বলা হয়েছে, ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং ই-চালান সমেত একাধিক গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র এবার থেকে পোর্টালের মাধ্যমে তদারকি করা হবে।

রাজ্য পরিবহণ বিভাগ ও ট্রাফিক পুলিসের কাছে একটি নোটিফিকেশন এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে পয়লা অক্টোবর থেকে গাড়ির চালকের কাছে কাগজপত্র চাওয়ার দরকার নেই। কেন্দ্রীয় সরকার এই নিয়ে একটি সফটওয়্যার আনছে। ট্রাফিক পুলিস কর্মীরা সেই সফটওয়্যার-এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট গাড়ির কাগজপত্র চেক করে নিতে পারবেন। একটি বিশেষ মেশিন থাকবে ট্রাফিক পুলিস কর্মীদের কাছে। সেখানে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিলেই গাড়ি সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য পেয়ে যাবেন পুলিসকর্মী। যে সমস্ত পুলিস কর্মীর কাছে ওই মেশিন থাকবে না তাঁরা নিজেদের মোবাইল ফোনে সেই সফটওয়্যার ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। সেখানে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিলেও গাড়ির সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য বেরিয়ে আসবে।

এছাড়া কেন্দ্রীয় সরকার ১৯৮৯-এর মোটর ভেহিক্যাল অ্যাক্ট-এ একাধিক সংশোধন আনছে। এবার থেকে ই-চালানের মাধ্যমে গাড়ির চালকদের জরিমানা দেওয়ার সুবিধা করে দিতে চাইছে পরিবহন বিভাগ। এর ফলে গাড়ির চালকদের চালান জমা করতে সুবিধা হবে। এমনকী পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির সম্ভাবনাও কমবে বলে আশা করা যায়।

Categories
রাজ্য

করোনায় আক্রান্ত রাজ্য বিজেপির মহিলা নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল: গত ৫ দিনে সংস্পর্শে আসাদের টেস্ট করার আবেদন

করোনায় আক্রান্ত রাজ্য বিজেপির মহিলা নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল: গত ৫ দিনে সংস্পর্শে আসাদের টেস্ট করার আবেদন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: অতিমারী করোনার কবলে এবার বিজেপি রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী তথা প্রখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পাল। রবিবার সকালে ফেসবুকে নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান বিজেপি নেত্রী। তিনি লেখেন- ‘আমি কোভিড পজিটিভ…. অনুরোধ করব গত ৫ দিনে যাঁরা আমার সংস্পর্শে এসেছেন তাঁরা দয়া করে টেস্ট করুন… ধন্যবাদ’।

গত পাঁচ দিন যাঁরা বিজেপি নেত্রীর সংস্পর্শে এসেছেন তাঁদের করোনা পরীক্ষা করানোর অনুরোধ জানিয়েছেন অগ্নিমিত্রা পাল।

সূত্রের খবর, অগ্নিমিত্রা পালের করোনার হালকা উপসর্গ রয়েছে। আপতত হোম আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি। তবে কীভাবে সংক্রমিত হলেন বিজেপি নেত্রী- তা এখনও স্পষ্ট নয়। গতকালই পশ্চিমবঙ্গের মহিলা মোর্চার রাজ্য কমিটি ঘোষণা করেন অগ্নিমিত্রা পাল।

Categories
দেশ

এবার করোনা আক্রান্ত বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী: আছেন কোয়ারেন্টিনে

এবার করোনা আক্রান্ত বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী: আছেন কোয়ারেন্টিনে

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: করোনাভাইরাস আক্রান্ত হলেন বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী। শনিবার গভীর রাতে তাঁর এই সংক্রমণ ধরা পড়ার কথা জানিয়ে ট্যুইট করেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

বিগত কিছুদিনে তাঁর সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের কোভিড-১৯ সংক্রমণের পরীক্ষা করানোর আর্জি জানিয়েছেন তিনি।
উমা ভারতীয় জানিয়েছেন, গত তিনদিন ধরে তাঁর সামান্য জ্বর হচ্ছিল। এজন্য তিনি করোনা পরীক্ষা করান। হিমালয়ে তাঁর চলতি সফরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সহ সমস্ত কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিধি নেনে চলার পরও তাঁর করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে।

উমা ভারতী জানিয়েছেন, তিনি এখন হরিদ্বার ও ঋষিকেশের মাঝে বন্দেমাতরম কুঞ্জে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। চারদিন পর আরও একবার পরীক্ষা করাবেন। এরপর ফল পজিটিভ এলে তিনি চিকিৎসকদের পরামর্শ নেবেন বলে জানিয়েছেন।

Categories
রাজ্য

গঙ্গা ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত ২০০ পরিবারকে পুনর্বাসন দেয়া হয়েছে এবং আরও ৭০০ পরিবারকে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে: দুই সাংসদ

গঙ্গা ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত ২০০ পরিবারকে পুনর্বাসন দেয়া হয়েছে এবং আরও ৭০০ পরিবারকে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে: দুই সাংসদ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ইতিমধ্যে গঙ্গা ভাঙ্গনের সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে সামশেরগঞ্জ, লালগোলা, ফারাক্কা সহ মালদা জেলার বিস্তীর্ণ এলাকায়। অনেক ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছি ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে ইতিমধ্যে সেখানে ভাঙ্গন প্রতিরোধে অস্থায়ী কাজও শুরু করেছে রাজ্য সেচ দপ্তর।

স্থায়ী সামাধান হিসেবে গঙ্গাধার পাকা করার চিন্তা-ভাবনা চলছে। সামসেরগঞ্জে প্রায় ৫০০ বাড়ি তলিয়ে গিয়েছে। লালগোলায় বর্ডার এলাকায় বড় ভাঙন হয়েছে। বেশ কিছু এলাকা নদীগর্ভে চলে গিয়েছে ফারাক্কায় ১৫০ টি বাড়ি গঙ্গায় তলিয়ে গিয়েছে।

মুর্শিদাবাদে গঙ্গা ভাঙ্গন নিয়ে সাংবাদ মাধ্যমে যৌথ বিবৃতিতে এমনি মন্তব্য করলেন মুর্শিদাবাদের দুই সাংসদ আবু তাহের খান ও খলিলুর রহমান

দুই সাংসদ আরো বলেন ইতিমধ্যে ২০০ পরিবারকে পুনর্বাসন দেওয়া হয়েছে। নদী গর্ভে বাড়ি চলে যাওয়া আরও ৭০০ পরিবারকে পুনর্বাসন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। জেলাশাসকের সঙ্গে কথা বলে সামশেরগঞ্জ ফারাক্কা সহ একাধিক এলাকায় ভেস্ট ল্যান্ড বা সরকারি জমির সন্ধান চলছে নদীগর্ভে বাড়িঘর তলিয়ে যাওয়া ঐ সমস্ত পরিবারকে সরকারি পাট্টা সহ বাড়ি দেয়া হবে। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের খাদ্য দেয়ার কাজ চালু রয়েছে।

দুই সাংসদ আরো বলেন মুর্শিদাবাদের গঙ্গা ভাঙ্গন রোধ নিয়ে ইতিমধ্যে কেন্দ্রকে চিঠি দেয়া হয়েছে ফারাক্কা থেকে মুর্শিদাবাদের দিকে অর্থাৎ নিচের দিকে ৮০ কিলোমিটার এবং ব্রিজের উপর দিকে ৪০ কিলোমিটার গঙ্গায় ভাঙ্গন রোধে দায়িত্ব ফারাক্কা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষের। বিষয়টি সম্পর্কে ফারাক্কা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষ এবং এনটিপিসি ছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারকে জানানো হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এবং নয়াদিল্লিতে জলসম্পদ মন্ত্রকে গিয়ে স্থায়ী ভাঙ্গন রোধ নিয়োগ কথা বলব। গঙ্গা ভাঙ্গনের বিষয়টি সংসদেও তোলা হয়েছে আগামীতে আবার তোলা হবে।

সৌজন্যে পুবের কলম

Categories
রাজ্য

মুর্শিদাবাদে জঙ্গিযোগ নিয়ে রঙ চড়িয়ে এ নিয়ে নোংরা রাজনীতির খেলা চলছে: সাংসদ খলিলুর রহমান ও আবু তাহের খান

মুর্শিদাবাদে জঙ্গিযোগ নিয়ে রঙ চড়িয়ে এ নিয়ে নোংরা রাজনীতির খেলা চলছে: সাংসদ খলিলুর রহমান ও আবু তাহের খান

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: যে মাদ্রাসার ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে সেটা একটা জরাজীর্ণ মাদ্রাসা দশজনও পড়ুয়াও নেই। সেখানে কিভাবে ওই মাদ্রাসার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। খারিজি মাদ্রাসা গুলোতো চাঁদা দিয়েই চলে। এখনো পর্যন্ত রাজ্যের একটা মাদ্রাসাতেও জঙ্গী কার্যকলাপের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এই ধরনের রাজনীতির বিরুদ্ধে জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। বাংলা তথা ভারতে খারিজি মাদ্রাসা গুলোতে ইসলামের নৈতিক ও চরিত্রগত পাঠ শেখানো হয় মুর্শিদাবাদে এমন খারিজি মাদ্রাসা অনেক রয়েছে যেখানে দুই হাজার থেকে তিন হাজার পর্যন্ত ছাত্র পড়াশোনা করে। পড়ুয়াদের তিন বেলা খাওয়া দাওয়া সহ সমস্ত ব্যবস্থা মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ করে থাকে। সেগুলি সবই ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের যাকাতের অর্থ বা অন্যান্য অনুদান দ্বারা পরিচালিত হয় ওই মাটির তৈরি খারিজি মাদ্রাসা নিয়ে মানুষকে বোকা বানানো হচ্ছে যা বলার মত ভাষা নেই ওই মাদ্রাসার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ একেবারে ভিত্তিহীন। বিজেপি সরকার উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মুসলিম সমাজকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এই অভিযোগ করেছে এটা নিয়ে নোংরা রাজনীতি হচ্ছে মানুষ হয়রান হচ্ছে।

মুর্শিদাবাদের জঙ্গিযোগ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে এমনই যৌথ মন্তব্য জানালেন মুর্শিদাবাদের দুই সাংসদ খলিলুর রহমান ও আবু তাহের খান।

এই দুই সাংসদ আরো বলেন একশ্রেণীর সংবাদমাধ্যমে মুর্শিদাবাদকে যেভাবে জঙ্গী কার্যকলাপের ঘাঁটি, অস্ত্র তৈরির মেশিন ও বাংকার পাওয়া গিয়েছে বলে অপপ্রচার করছে তা একেবারেই ভিত্তিহীন। আমরা চ্যালেঞ্জ নিয়েই বলছি মুর্শিদাবাদে জঙ্গী কার্যকলাপের কোনো ঘটনা ঘটেনি। মুর্শিদাবাদের যে তরুণদের ধরা হয়েছে তাদের অনেকেই ঠিকমতো ফোনও চালাতে জানেনা এরা প্রায়ই অশিক্ষিত। তাদেরকে ধরে এই ধরনের কার্যকলাপের ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে হেয় প্রতিপন্ন করা হচ্ছে সমগ্র মুসলিম সমাজকে। এই ঘটনা আমরা সঠিক তদন্তের দাবি করছি। সত্যি কারের তারা যদি দোষী হয় নিশ্চয়ই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে সরকার।

সেখানে দল ধর্ম জাতপাত দেখার প্রয়োজন নেই। কিন্তু নির্বাচনের আগে রং ছড়িয়ে নির্দোষ মানুষদের জঙ্গি তকমা দিলে তার চেয়ে দুর্ভাগ্যের আর কিছু হতে পারে না। ঘরের ভিতরে পায়খানার চেম্বারকে সুরঙ্গ বলা হচ্ছে, লেদ মেশিন অস্ত্র তৈরি মেশিন বলে প্রচার করা হচ্ছে, যা দুর্ভাগ্যের। সরেজমিনে দেখলেই বিষয়টির সত্যতা যাচাই করা যাবে। রং ছড়িয়ে প্রচার করা হচ্ছে। ভুয়া প্রচারের বিরুদ্ধে মুর্শিদাবাদের মানুষ পথে নেমেছে আগামীতে আরোও নামবে।

সৌজন্যে পুবের কলম

Categories
খেলা রাজ্য

অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস মহমেডান সমর্থকদের: ইনভেস্টর পেতে চলেছে শতাব্দী প্রাচীন কলকাতার এই ক্লাব

অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস মহমেডান সমর্থকদের: ইনভেস্টর পেতে চলেছে শতাব্দী প্রাচীন কলকাতার এই ক্লাব

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: মহমেডান সমর্থকদের এত স্বতস্ফূর্ত আবেগ সম্ভবত গত তিন দশকে দেখেনি বাংলার ফুটবলপ্রেমীরা। ইনভেস্টর ইস্যু নিয়ে গত শুক্রবার ক্লাবে মিটিং ছিল। সমর্থকরা বুঝে গেছেন পকেট থেকে টাকা দিয়ে ক্লাব চালালে মহামেডান স্পোর্টিং আগামীদিনে ডালহৌসি বা বাটা ক্লাব হয়ে যাবে।

কিন্তু গুঞ্জন ছিল কিছু কর্তা ক্লাবকে এখনো তাদের মৌরিসিপাট্যা করে রাখতে চান। ইনভেস্টর এলে শেয়ার ছাড়তে হবে,বোর্ড অফ ডিরেক্টরস গঠন হবে,পেশাদার CEO. নিয়োগ হবে।সুতরাং ছড়ি ঘোরানো যাবে না। তাই শেয়ার ইস্যু নিয়ে বাগড়া দেওয়া। আর এটাও অদ্ভুত ইনভেস্টর টাকা দেবে অথচ শেয়ার নেবে না। তাই কি হয় ? যেন তারা ব্যবসা করতে আসছে না,সমাজসেবা করতে আসছে।

সমর্থকদের এইসবের বালাই নেই। তারা চায় ক্লাব ভারতীয় ফুটবলের মুলস্রোতে ফিরে আসুক। তাই একটা “ব্ল্যাক প্যান্থারস মহমেডান ফ্যানস্ ক্লাব” ও “ব্ল্যাক প্যান্থারস মহমেডান স্পোর্টিং আল্ট্রাস” সহ আরো বিভিন্ন ফ্যান ক্লাব সহ বহু মহমেডান সমর্থক হেস্তনেস্ত করতে শুক্রবার সকাল থেকে হাজির ক্লাব প্রাঙ্গণে।

হাওড়া, বসিরহাট,বনগাঁ,বারুইপুর, মহেশতলা থেকে নিউ টাউন রাজারহাট,খিদিরপুরের সবার মিলনক্ষেত্র হয়ে দাঁড়াল ক্লাব প্রাঙ্গন। দীর্ঘক্ষণ মিটিং চলল,বাইরে উৎকন্ঠিত সমর্থকরা। মিটিং শুরু হওয়ার আগে দাবি জানিয়ে স্লোগান হল। মিটিং শেষ,সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক কে ঘিরে জানতে চাওয়া হল। আজ সিদ্ধান্ত হয়নি। আট জনের একটি কমিটি গঠন করে কাল শনিবার সন্ধে ৭.৩০ এ মিটিং ডাকা হয়। ক্লাবের পক্ষ থেকে CA এবং লিগ্যাল advisor নিয়ে আইনি পর্যালোচনা করে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শেষ পর্যন্ত সফল ওয়াশিম আক্রম এন্ড কোং! লন্ডনের এক স্পোর্টস ম্যাগাজিন কোম্পানি ইনভেস্টর হতে চলেছে ১২৯ বছরের ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবে। সমর্থকদের আন্দোলনে পিছু হটেছে বেগড়া দেওয়া কিছু পরিচালন সমিতির সদস্যরা। আজ বুঝে গেছে বাংলার ফুটবল মহল মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে আবার সমর্থকদের যুগ ফিরে আসছে। আজ তার নতুন করে সূচনা হল।

Categories
রাজ্য

শিল্প ও কর্মসংস্থানে নজর না দিয়ে বিজেপির সঙ্গে হিন্দুত্বের প্রতিযোগিতায় নেমেছে তৃণমূল সরকার: অধীর চৌধুরী

শিল্প ও কর্মসংস্থানে নজর না দিয়ে বিজেপির সঙ্গে হিন্দুত্বের প্রতিযোগিতায় নেমেছে তৃণমূল সরকার: অধীর চৌধুরী

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: প্রথমে পুরোহিতদের জন্য মাসে হাজার টাকা ভাতা, তারপর পুজো কমিটিগুলির জন্য সাহায্যের টাকা দ্বিগুণ করা, মমতার সরকারের এই দুই পদক্ষেপ নিয়ে আক্রমণ করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। তিনি আরও বলেন, তৃণমূল কংগ্রেস নিজেদেররে বিজেপির থেকে হিন্দুত্বের বড় ব্র্যান্ড হিসেবে দেখাতে চাইছে।

অধীর চৌধুরী তৃণমূলের উদ্দেশে বলেছেন, বিজেপির সঙ্গে হিন্দুত্বের প্রতিযোগিতায় না গিয়ে তাদের উচিত ছিল শিল্প ও কর্মসংস্থান তৈরির দিকে নজর দেওয়া।

প্রসঙ্গত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ৮ হাজার ব্রাহ্মণের জন্য ১ হাজার টাকা করে মাসিক ভাতর কথা ঘোষণা করেছেন। পাশাপাশি ৩৭ হাজার পুজো কমিটির জন্য সাহায্য ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করার কথা ঘোষণা করেছেন। তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পরেই ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের ভাতা দেওয়া শুরু করেছিল রাজ্যে।

অধীর চৌধুরী বলেন, বিজেপিকে কাউন্টার করতে হিন্দুত্বের প্রতিযোগিতায় নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তা করতে গিয়ে হিন্দু ব্রাহ্মণ এবং দুর্গা পুজোর কমিটিগুলিকে টাকা দিচ্ছেন তিনি। অধীর চৌধুরীর অভিযোগ হিন্দুদের ঘুষ দিতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বর্তমান পরিস্থিতিতে মুসলিম ভোটের পরোয়া করছে না তৃণমূল। বলেছেন অধীর। তারা হিন্দু ভোট নিয়ে বিজেপির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমেছে। এখন প্রতিযোগিতা মূলক হিন্দুত্বে সামিল হয়েছে তৃণমূল। বলেছেন তিনি।