বাসন্তীতে গণপিটুনিতে নিহত রফিকুলের বাড়িতে যুব ফেডারেশনের প্রতিনিধি দল

বাসন্তীতে গণপিটুনিতে নিহত রফিকুলের বাড়িতে যুব ফেডারেশনের প্রতিনিধি দল

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী চড়াবিদ্যায় গেরুয়া সন্ত্রীসের হাতে গণপিটুনিতে নিহত জীবনতলা থানার গাববুনির রফিকুল মোল্লার বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহঃ কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল। রফিকুলের পরিবার সূত্রে খবর, মঙ্গলবার রাতে বাড়ি ফেরার সময় বাসন্তী থানার চড়বিদ্যা এলাকায় মারধর করা হয় তাকে। মারের চোটে তার হাত-পা ভেঙে যায়। ঘটনাস্থালেই লুটিয়ে পড়ে রফিকুল। এলাকারই লোকজন রফিকুলকে ভর্তি করে বাসন্তী গ্রামীণ হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসা চলাকালীন তার মৃত্যু হয়। পরেরদিন সকালে রফিকুলের বাড়ির লোকজন খবর পেয়ে হাসপাতালে পৌঁছায়।

রফিকুলের বাড়ির লোকজন ও এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলে মহঃ কামরুজ্জামান জানান ইতিপূর্বে বাসন্তীর ঐ এলাকায় গত দু-তিন বছরের মধ্যে একই রকম কৌশলে গেরুয়া শিবিরের হাতে ৫-৭ জন নিহত হয়েছে। এবং প্রতি ক্ষেত্রেই অপরাধীরা আড়াল হয়েছে শাস্তি পায় না বললেই চলে। এবারেও এমন একটি গণপিটুনির ঘটনাকে প্রশাসন নিজের গা বাঁচাতে নিহতের ভাইকে দিয়ে চুরির ঘটনা লিখিয়ে নিয়েছে। যা অত্যন্ত নিন্দনীয়। এই ঘটনায় সংখ্যালঘু কমিশনের হস্তক্ষেপ চেয়ে গতকাল আমরা চেয়ারম্যান ডাঃ মমতাজ সংঘমিত্রাকে ডেপুটেশন দিয়েছি। আমরা চাই অপরাধীরা কোনমতে রেহাত না পায়। প্রকৃত অপরাধীরা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি পাক।

ভিডিওটি দেখুন

এদিন যুব ফেডারেশনের পক্ষ থেকে নিহতের মেয়ের পড়াশোনা ও পরিবারের ইনসাফের লড়াইয়ে আইনী সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়। প্রতিনিধি দলে ছিলেন সংগঠনের সহ সম্পাদক মাওঃ আনোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ বাবর হোসেন, আইনজীবী আব্দুল হান্নান, একেএম গোলাম মোর্তজা, গোলাম রহমান, মহম্মদ আলি, ওহিদুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান, আবু হোসেন সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।