দীর্ঘদিন পর সংখ্যালঘু ও মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তরের পূর্ণমন্ত্রী গোলাম রব্বানী: আশার আলো দেখছে সংখ্যালঘু সমাজ

দীর্ঘদিন পর সংখ্যালঘু ও মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তরের পূর্ণমন্ত্রী গোলাম রব্বানী: আশার আলো দেখছে সংখ্যালঘু সমাজ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার পর আজই তৃণমূল কংগ্রেসের তৃতীয় মন্ত্রীসভার ৪৩ জন সদস্য শপথ গ্রহণ করেছেন। তৃতীয়বারের মধ্যে এবারেই সংখ্যালঘু ও মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তরের পূর্ণমন্ত্রী করা হল একজন শিক্ষিত সংখ্যালঘু বিধায়ককে।গোলাম রব্বানী উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপোখরের বিধায়ক, পেশায় শিক্ষক ও আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনী উচ্চ শিক্ষিত ভদ্র মানুষ।

প্রথম মন্ত্রীসভায় এই দপ্তর ছিল মুখ্যমন্ত্রীর অধীনে। দ্বিতীয়বারের মন্ত্রীসভায়ও এই দপ্তর মুখ্যমন্ত্রীর অধীনে ছিল তবে দ্বিতীয়বারে এই দফতরের একজন প্রতিমন্ত্রী করা হয়। তবে উচ্চমাধ্যমিক পাশ গিয়াসউদ্দিন মোল্লা এই দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী হয়ে একদম কোন কাজ করতে পারে নি বলে ক্ষোভ ছিল সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে। তবে তাকে কাজ করতে দেওয়া হয়নি না তিনি কাজ করতে পারেননি এই নিয়ে অনেক তর্ক বিতর্ক রয়েছে।

তবে বামফ্রন্ট সরকারের শেষ মন্ত্রী সভায় এই দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে ড. আব্দুস সাত্তার উল্লেখযোগ্য ভাবে কাজ করেছিল। আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি থেকে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন, সংখ্যালঘুদের ওবিসি হিসাবে সংরক্ষণ থেকে ইংলিশ মিডিয়াম মাদ্রাসা তৈরি সবই তার হাত দিয়ে হয়েছিল।

গতদুবার মুখ্যমন্ত্রীর হাতে এই দপ্তর থাকায় উল্লেখযোগ্যভাবে এই দপ্তরের কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। তৃতীয়বারের জন্যে এই দপ্তরে একজন উচ্চশিক্ষিত মানুষের হাতে দেওয়ায় সংখ্যালঘু সমাজ ড. আব্দুস সাত্তারের সময়কালের মতো কাজ হবে বলে আশা করছেন।

ইতিমধ্যে সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন, পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা ছাত্র ইউনিয়ন, বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরাম, পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি, পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতি, পশ্চিমবঙ্গ আনএডেড মাদ্রাসা শিক্ষক সংগঠন মন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।