সাড়ে চারবছর পর মঙ্গলকোর্টে গিয়েও সভা করতে দেওয়া হচ্ছে না: অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সিদ্দিকুল্লাহ

সাড়ে চারবছর পর মঙ্গলকোর্টে গিয়েও সভা করতে দেওয়া হচ্ছে না: অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সিদ্দিকুল্লাহ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ফের বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মঙ্গলকোটের তৃণমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। অভিযোগ করলেন মঙ্গলকোটে তাঁকে সভা করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এর কয়েকদিন আগে তিনি অভিযোগ করেছিলেন যে নিজের অনুগামীদের গাঁজা কেস সহ বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছে অনুব্রত মণ্ডল। এদিন সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীর কথায়, দলেরই একাংশের বাধায় গত সাড়ে চার বছর তিনি মঙ্গলকোটে যাননি। সম্প্রতি দলের নির্দেশে তিনি বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন মঙ্গলকোটে। কিন্তু তিনি সভা করে আসার পরই তাঁর অনুগামীদের, দলীয় কর্মীদের নানাভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

শুক্রবার একটি কর্মসূচিতে যোগ দিতে বর্ধমানে গিয়েছিলেন সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। সেখান থেকেই বীরভূমের দাপুটে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলকে নিশানা করেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলেন তিনি। বলেন, মঙ্গলকোটে তাঁকে সভা করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। সভা করলে তাঁর অনুগামীদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। সেটা অনুব্রত মণ্ডল করাচ্ছেন বলেই দাবি তৃণমূল বিধায়ক।

বীরভূমের তৃণমূলের সভাপতিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “অনুব্রত মণ্ডল বীরভূমে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ঠিক আছে। কিন্তু বীরভূমের গরম হাওয়া এনে পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটকে গরম করবেন, তা চলবে না। উনি বীরভূম জেলাতে নেতৃত্ব দিন। কিন্তু পূর্ব বর্ধমানের তিনটি বিধানসভা, আউশগ্রাম, কেতুগ্রাম ও মঙ্গলকোট তাঁর হাত থেকে নিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূলের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হোক।”