পুরসভা ভোটে অনিয়মের অভিযোগ! মঙ্গলবার পুনর্নির্বাচনের ঘোষণা কমিশনের

পুরসভা ভোটে অনিয়মের অভিযোগ! মঙ্গলবার পুনর্নির্বাচনের ঘোষণা কমিশনের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ১০৮টি পুরসভার ১১ হাজার ২৮০টি বুথে ভোট হয়েছে। ওয়ার্ড মোটামুটি ২ হাজার ২৭৬। হিংসা, অশান্তির অভিযোগও উঠেছে একাধিক বুথে। তবে নির্বাচন কমিশন সোমবার জানিয়ে দিল, আগামীকাল মঙ্গলবার পুনর্নির্বাচন হবে মাত্র দু’টি বুথে। একটি দক্ষিণ দমদম পুরসভার ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে। এখানকার লেক পয়েন্ট হাইস্কুলে চার নম্বর বুথে ভোট হবে মঙ্গলবার। অন্যদিকে শ্রীরামপুর পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের ৭ নম্বর বুথেও ফের ভোটগ্রহণ হবে। মহেশ কলোনি যুব কিশোর সঙ্ঘে এই বুথে পুনর্নির্বাচন হবে এদিন। জেলাশাসকদের রিপোর্টের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠেছে, প্রায় ২৪টি জায়গা থেকে ইভিএম ভাঙার অভিযোগ আসে। তারপরও কেন ২টি মাত্র বুথে পুনর্নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল? সূত্রের খবর, যে দু’টি বুথে আবারও ভোটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সেই দু’টির ভিডিয়োই ভাইরাল হয়েছে সোশাল মিডিয়ায়। দেদার ছাপ্পার অভিযোগও উঠেছিল। তবে কমিশন সূত্রে খবর, মূলত ভোটগ্রহণে কিছু ত্রুটি থাকার জন্যই ফের এই দুই বুথে ভোট করানো হচ্ছে। তাৎপর্যপূর্ণভাবে সকাল থেকে বিভিন্ন সূত্র মারফৎ জানা যাচ্ছিল, পুনর্নির্বাচনের পথে হাঁটছে না রাজ্য নির্বাচন কমিশন। ঘটনাচক্রে এদিন বিকেলে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসের সাক্ষাতের পরই জানানো হল দক্ষিণ দমদম পুরসভার ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের চার নম্বর বুথ ও শ্রীরামপুর পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের ৭ নম্বর বুথে পুনর্নির্বাচন হবে।

এদিন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় একটি টুইট করেন। সেখানে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসের সঙ্গে তাঁর আলাপচারিতার একটি ক্লিপ শেয়ার করেন। একই সঙ্গে লেখেন, পুরভোট নিয়ে প্রায় ঘণ্টাখানেকের কথাবার্তা হয়েছে দু’জনের। নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সবরকম পদক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। অন্যদিকে রাজ্যপাল ও রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের সাক্ষাৎ নিয়ে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “রাজ্যপাল কী বলেছেন তাঁর বিষয়। কিন্তু সৌরভ দাসকে সরিয়ে দেওয়া উচিত বলেই আমরা মনে করি। নির্বাচন কমিশন তৃণমূলের হয়ে গিয়েছে। কত ইভিএম ভাঙা হয়েছে। ১০৮টি পুরসভা নির্বাচন বাতিল করা উচিত। সৌরভ দাসকে সরানো উচিৎ।”