প্রাথমিকে আরও ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ঘোষণা নবান্নের

প্রাথমিকে আরও ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ঘোষণা নবান্নের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: পুজোর আগেই আরও ৭ হাজারেরও বেশি পদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে- এমনটা জানাল রাজ‍্য সরকার। কিছুদিন আগেই রাজ‍্যে ৩২ হাজার শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । যদিও তারমধ্যে প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হলেও আপার প্রাইমারীতে প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষক এখনও পর্যন্ত নিয়োগ হয়নি। যাদের পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল ২০১৪ সালে। এবার আরও ৭ হাজার শিক্ষক নিযুক্ত হতে চলেছেন।

গত ২১ শে জুন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন, ‘মোট ৩২ হাজার শিক্ষককে চাকরির নিয়োগপত্র দেবে রাজ‍্য। তার মধ্যে আপার প্রাথমিক শিক্ষক থাকছে ১৪ হাজার এবং প্রাথমিক শিক্ষক নেওয়া হবে ১০ হাজার ৫০০ জন। পুজোর আগেই এদের নেওয়া হলেও, পুজোর পর মার্চে নিয়োগ করা হবে বাকি সাড়ে ৭ হাজার প্রাথমিক শিক্ষককে’।

মুখ‍্যমন্ত্রীর এমনটা ঘোষণার পর প্রকাশিত উত্তীর্ণ শিক্ষকদের তালিকা নিয়ে নানা সমস্যা দেখা দেয়। সেসব পেরোনোর পর আবার টেট পরীক্ষার প্রশ্ন নিয়েও নানা বিভ্রান্তি দেখা হয়। অভিযোগ ওঠে ভুল প্রশ্ন দেওয়া হয়েছিল পরীক্ষায় এবং এই অভিযোগের সত‍্যতাও প্রমাণিত হয়। এই মামলার রায়ে হাইকোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, প্রত‍্যেক মামলাকারী পরীক্ষার্থীকে ২০ হাজার করে টাকা দেবেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি।

এরপর এই মামলায় আরও বলা হয়, ‘চাকরির ব‍্যবস্থা করতে হবে যোগ্য প্রার্থীদের জন্য। এরা আর কতদিন এভাবে লড়াই করবে। সম্ভব হলে এখনই, নয়তো ভবিষ্যতে শূণ্যপদে তাদের নিয়োগ করতে হবে’।

এই ঘটনায় নবান্নের পক্ষ থেকে নতুন করে শূন্যপদ তৈরির সিদ্ধান্তে সিলমোহর লাগিয়ে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী জানান, স্কুল শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে উত্তর ২৪ পরগনা ও মালদহে ৩১৭৯ শূন্যপদ তৈরি করা হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য। আর ৩৯২৫ শূন্যপদ শীঘ্রই পূরণ করা হবে। সুতরাং আরও ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করবে রাজ‍্য।