খোদ মহিশূরের কর্নাটকে পাঠ্য থেকে টিপু সুলতান বাদ বিজেপি সরকারের: সমালোচনা দেশজুড়ে

খোদ মহিশূরের কর্নাটকে পাঠ্য থেকে টিপু সুলতান বাদ বিজেপি সরকারের: সমালোচনা দেশজুড়ে

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: কিছুদিন আগেই CBSE’র সিলেবাস থেকে নাগরিকত্ব-ধর্মনিরপেক্ষতা-গণতান্ত্রিক অধিকারের মতো বিষয়গুলি বাদ পড়ায় বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার নয়া বিতর্ক কর্ণাটকে। করোনা মহামারীর জেরে সপ্তম শ্রেণির পাঠ্যক্রম কমানোর অজুহাতে এবার সমাজ বিজ্ঞানের পাঠ্যবই থেকে টিপু সুলতানের (Tipu Sultan) অধ্যায়টাই বাদ দিয়ে দিল কর্ণাটকের শিক্ষাদপ্তর। যা নিয়ে তুমুল হইচই দক্ষিণী রাজ্যে। এর আগেও টিপু সুলতানকে নিয়ে ব্যাপক সংঘাত তৈরি হয়েছিল জেডিএস-কংগ্রেস জোটের সঙ্গে বিজেপির। এবার করোনা মহামারীর জেরে আরও একবার সংঘাত প্রকট হল।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের রিপোর্ট অনুযায়ী, পরিবর্তিত সিলেবাসে সপ্তম শ্রেণির সমাজ বিজ্ঞানের পাঠ্যবইয়ের পঞ্চম অধ্যায়ে মহীশূরের রাজা হায়দার আলি ও টিপু সুলতান, মহীশূরের ঐতিহাসিক স্থানের বর্ণনা এবং প্রশাসনিক কার্যকলাপ সংক্রান্ত বিষয় বাদ দেওয়া হয়েছে। চলতি শিক্ষাবর্ষের জন্য পাঠ্যক্রম ছোট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্ণাটকের শিক্ষাদপ্তর। আর তার জন্য সিলেবাস কমানো হয়েছে বলে জানানো হয়েছে সরকারের তরফে। তবে বিতর্কের জেরে শিক্ষাদপ্তরের সাফাই, ষষ্ঠ ও দশম শ্রেণির পাঠ্যবইয়ে টিপু সুলতানের অধ্যায় বাদ দেওয়া হয়নি।

মাস দুয়েক আগে বিজেপি নেতাদের বার বার দাবির জেরে পাঠ্যবই থেকে টিপু সুলতানকে গৌরবান্বিত করার বিষয় বাদ দেওয়ার ব্যাপারে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করে সরকার। তবে কমিটি রিপোর্ট দেয়, অষ্টাদশ শতকে মহীশূরের রাজার অধ্যায় পাঠ্যবই থেকে বাদ দেওয়া যাবে না। কিন্তু টিপু সুলতানকে সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার অপবাদ দিয়ে তাঁকে গৌরবান্বিত করার বিপক্ষে বিজেপি। অন্যদিকে, প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি ডি শিবাকুমার জানিয়েছেন, ‘ইতিহাস পালটে দেওয়ার চেষ্টা করছে বিজেপি। রাজনৈতিক অভিসন্ধি থেকেই এমন নোংরামি করছে রাজ্য সরকার। ইতিহাস পালটানো যায় না।’