এড়ানো গেল না রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ! শুরু হলো রাশিয়া ইউক্রেনের যুদ্ধ

এড়ানো গেল না রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ! শুরু হলো রাশিয়া ইউক্রেনের যুদ্ধ

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: এড়ানো গেল না রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ। রাষ্ট্রপুঞ্জের হুঁশিয়ারি অগ্রাহ্য করে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান ঘোষণা করল রাশিয়া। ক্রিমিয়া দিয়ে ইউক্রেনে ঢুকল রুশ সেনা। রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগে ভারত। রাতে পুতিনের সঙ্গে কথা বলতে পারেন নরেন্দ্র মোদি।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ, ওডেসা-সহ ইউক্রেনের একাধিক জায়গায় বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছে। তারইমধ্যে আমেরিকা-সহ পশ্চিমী দুনিয়াকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানিয়েছেন, যে দেশ সেই ‘সামরিক অভিযানে’ হস্তক্ষেপ করবে, তাদের ফল ভুগতে হবে। পালটা আমেরিকাও হুঁশিয়ারি দিয়েছে, রাশিয়ার ‘সামরিক অভিযানের’ জবাব দেওয়া হবে।

আরআইএ সংবাদসংস্থাকে উদ্ধৃত করে ‘হিন্দুস্তান টাইমস’ গ্রুপের ‘লাইভ মিন্ট’ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের ৭৪ টি প্রতিরক্ষা কাঠামো ধ্বংস করেছে বলে দাবি করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। সংবাদসংস্থা এএফপি জানিযেছে, কিয়েভের কাছে একটি বায়ুঘাঁটির জন্য লড়াই চলছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন।

বৃহস্পতিবার সকালেই ইউক্রেনে যুদ্ধ ঘোষণা করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ইউক্রেনের পূর্ব সীমানার দুটি বিচ্ছিন্নতাবাদী অঞ্চল দোনেৎস্ক এবং লুহানস্ক অঞ্চলকে পুতিন স্বাধীন রাষ্ট্র ঘোষণা করার পর থেকেই যুদ্ধের আশঙ্কা আরও ঘনীভূত হচ্ছিল। আজ সেই দামামা বেজেই গেল। একের পর এক হামলা চলছে। ইতিমধ্যেই যুদ্ধের বলি হয়েছেন ৫০ জন। ইউক্রেনের তরফে দাবি করা হয়েছে ৪০ জন রাশিয়ার নাগরিক মারা গিয়েছেন সংঘর্ষে। রাশিয়ার হামলায় ইউক্রেনের নাগরিক সহ ১০ জন মারা গিয়েছেন। একের পর এক বিস্ফোরণের আওয়াজ ভেসে আসছে। এই পরিস্থিতিতে ভারতের কাছে সাহায্য় চাইল ইউক্রেন। রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের মাঝে ইউক্রেনের দূত ইগর পোলিখা এই সংঘাতে ভারতের হস্তক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যেতে পারে এই আশঙ্কায় পোলিখা বলেছেন, “মোদীজি বিশ্বনেতাদের মধ্যে অন্যতম শক্তিশালী এবং সম্মানীয় নেতা। আপনার রাশিয়ার সঙ্গে বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত, কৌশলগত সম্পর্ক রয়েছে। আমরা আশাবাদী যে যদি মোদীজি পুতিনের সঙ্গে কথা বলেন তিনি সাড়া দেবেন। ”