২৩,০০০ কোটি টাকার ঋণখেলাপ!‌ গুজরাটের শিপিং সংস্থার কর্তাদের ধরতে লুকআউট নোটিস CBI–এর

২৩,০০০ কোটি টাকার ঋণখেলাপ!‌ গুজরাটের শিপিং সংস্থার কর্তাদের ধরতে লুকআউট নোটিস CBI–এর

 

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিজয় মালিয়া, নীরব মোদি, মেহুল চোকসি। তালিকা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়ে তা না চুকিয়েই দেশ ছাড়ার প্রবণতা বাড়ছে। এই তালিকায় যোগ হল এবিজি শিপইয়ার্ড সংস্থার নাম। একটু–আধটু নয়, ২৩ হাজার কোটি টাকার ঋণ খেলাপের অভিযোগ উঠেছে সংস্থার কর্তাদের বিরুদ্ধে। তাঁরা যাতে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন, তাই লুকআউট নোটিস জারি করেছে সিবিআই।

এত বড় অঙ্কের ঋণ নিয়ে তা খেলাপ এর আগে দেশে হয়নি। সেক্ষেত্রে এই সংস্থার কর্তারা বিজয় মালিয়া, নীরব মোদিদেরও টেক্কা দিয়েছেন। মালিয়াদের মতোই যাতে দেশ ছাড়তে না পারেন, তাই লুকআউট নোটিস জারি করা হয়েছে। প্রত্যেক বিমানবন্দরে সতর্কতা জারি হয়েছে। বলা হয়েছে, সংস্থার কর্তা ঋষি আগরওয়াল, সন্তানম মুথুস্বামী এবং অশ্বিনী কুমার যাতে কোনওমতেই দেশের বাইরে পালাতে না পারেন।

স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া সহ ২৮টি ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়েছে সংস্থা। তার পর অধীনস্ত ৯৮টি সংস্থায় সেই টাকা খাটানো হয়েছে। এই এবিজি সংস্থা জাহাজ তৈরি এবং মেরামত করে। গুজরাটের দাহেজ এবং সুরাটে রয়েছে কারখানা এবং সংস্থার দপ্তর। সিবিআই বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ২০১৯ সালের এপ্রিল থেকে ২০২০ সালের মার্চ পর্যন্ত বহু ব্যাঙ্ক এই সংস্থাকে ‘‌জাল’‌ ঘোষণা করেছে।

অভিযোগ, এবিজি শিপইয়ার্ড ঋণ নিয়ে সেই টাকা বহু সংস্থায় ট্রান্সফার করেছে। সহযোগী সংস্থার নামে এই ঋণের টাকায় বহু সম্পত্তি কেনা হয়েছে।