মমতা ব্যানার্জির নির্বাচনী প্রচারে নিষেধাজ্ঞা কমিশনের: গণতন্ত্রের কালো দিন বলল তৃণমূল

    মমতা ব্যানার্জির নির্বাচনী প্রচারে নিষেধাজ্ঞা কমিশনের: গণতন্ত্রের কালো দিন বলল তৃণমূল

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ভোট প্রচারে আপত্তিকর মন্তব্য করে আদর্শ আচরণ বিধি ভাঙার অভিযোগ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে উপর ২৪ ঘণ্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন৷ আজ, ১২ এপ্রিল রাত ৮টা থেকে আগামিকাল, মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে৷ ফলে এই সময়ের মধ্যে ভোট প্রচারে অংশ নিতে পারবেন না তৃণমূলনেত্রী৷

    গত ৭ এবং ৮ এপ্রিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শো-কজ করে দু’টি নোটিস পাঠিয়েছিল নির্বাচন কমিশন৷ সেই নোটিসের জবাবও দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর জবাবে সন্তুষ্ট না হয়েই তাঁর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন৷

    আগামিকাল বিধাননগর সহ উত্তর চব্বিশ পরগণায় তিনটি সভা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর৷ কিন্তু কমিশনের সিদ্ধান্তে মঙ্গলবার কোনও প্রচারই করতে পারবেন না মুখ্যমন্ত্রী৷

    ১২ এপ্রিল নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত গণতন্ত্রের কালো দিন বললেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন।

    এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, ‘BJP-র শাখা সংগঠন নির্বাচন কমিশন কুৎসিতভাবে এই কন্ঠরোধের চেষ্টা করল। কুৎসিত করে ব্যবহার করা হচ্ছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। তার প্রতিবাদ করায় এই পদক্ষেপ করা হচ্ছে। এই অপচেষ্টা সফল হবে না।’

    সুজন চক্রবর্তী বলেন নির্বাচন কমিশন মমতা ব্যানার্জির প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে, পাশাপাশি বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ, সায়ন্তন বসু, রাহুল সিনহা দের ধারাবাহিক উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার জন্য তাদের উপর দ্রুত নিষেধাজ্ঞা জারি করুক।