নির্বাচনী প্রচারে বিতর্কিত উস্কানিমূলক মন্তব্য: সুজাতা মন্ডল ও সায়ন্তন বসুর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা কমিশনের

নির্বাচনী প্রচারে বিতর্কিত উস্কানিমূলক মন্তব্য: সুজাতা মন্ডল ও সায়ন্তন বসুর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা কমিশনের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: তৃতীয় দফার ভোটের দিন বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন একজন। হিন্দি ছবির ডায়লগ আউড়ে শীতলকুচিকাণ্ডে সরব হয়েছিলেন আর একজন। শোকজের মুখে পড়েছিলেন দু’জনেই। জবাব সন্তোষজনক নয়, আরামবাগের তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মণ্ডল খাঁ ও বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর প্রচারে এবার ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন। রবিবার সন্ধে ৭টা থেকে সোমবার সন্ধে ৭টা পর্যন্ত বলবৎ থাকবে এই নিষেধাজ্ঞা।

বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু শীতলকুচি গুলিকাণ্ড নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য করে বিপাকে পড়লেন তিনি। উত্তরবঙ্গের ধূপগুড়িতে প্রচারে গিয়ে সায়ন্তন বলেছিলেন, ‘বেশি খেলা খেলতে যেও না,শীতলকুচির খেলা খেলে দেব। সকাল বেলা আনন্দ বর্মনকে মেরে দিল। প্রথম ভোট দিতে গিয়েছিল। বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি, ৪ ঘণ্টার মধ্যেই ৪টে কে রাস্তা দেখিয়ে দেওয়া হয়েছে’। এমনকী, শোলে-র ডায়লগ উদ্ধৃতি টেনে তাঁর মন্তব্য, ‘এক মারোগে তো চার মারেঙ্গে, শীতলকুচিতেও তাই হয়েছে।’ এরপর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যাখ্যা চেয়ে সায়ন্তনকে শোকজ করে কমিশন। আর এবার ২৪ ঘণ্টার জন্য প্রচারে জারি হল নিষেধাজ্ঞা।

তৃতীয় দফায় ভোট ছিল আরামবাগে। সেদিন এলাকার একটি বুথে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মণ্ডল খাঁ। বাঁশ, চেলা কাঠ হাতে নিয়ে তাঁকে তাড়া করতে দেখা যায় গ্রামবাসীদের। তখনই সুজাতাকে বলতে শোনা যায়, ‘সব শিডিউল কাস্ট ভিখারি এরা। এদের কেবল দাও দাও। আমি বলেছিলাম, মমতাদি এত কিছু দিয়েছেন, তোমরা ভোটটা দেবে না কেন। কথায় বলে না, কেউ অভাবে ভিখারি, আর কেউ স্বভআবে ভিখারি।’ এই বক্তব্যের প্রতিবাদে কমিশনের দ্বারস্থ হন কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়নমন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি। সেই আবেদন খতিয়ে দেখার পর প্রথমে শোকজ, শেষপর্যন্ত সুজাতা মণ্ডল খাঁ-র প্রচারে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন।