করোনার বাড়বাড়ন্ত! মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী: লকডাউনের পূর্ববর্তী অভিজ্ঞতা মনে করে বাড়ি ফিরছে পরিযায়ী শ্রমিকরা

    করোনার বাড়বাড়ন্ত! মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী: লকডাউনের পূর্ববর্তী অভিজ্ঞতা মনে করে বাড়ি ফিরছে পরিযায়ী শ্রমিকরা

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: দেশে এক লাখ ছাড়িয়েছে দৈনিক সংক্রমণ। মহারাষ্ট্রে গড়ে ৫৫ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন গত কয়েকদিনে। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল দেশ।এরপরই এদিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী দফতরের তরফে জানানো হয়, আগামী ৮ এপ্রিল দেশের সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। করোনা পরিস্থিতিতে লড়াইয়ের জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করতেই নাকি এই বৈঠক ডাকা হয়েছে।

     

    এই পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্র সরকার করোনা রুখতে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে রবিবার। দিনের বেলা ৫ জনের বেশি মানুষ জমায়েত হতে পারবে না– এমন নির্দেশিকা জারি হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত প্রতি সপ্তাহান্তে শুক্রবার রাত ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৭টা পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন চলবে রাজ্যটিতে। মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে জানিয়েছেন, আপাতত সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করার কোনও চিন্তাভাবনা নেই। মুম্বইসহ শহরগুলিতে জারি হয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ।

    গত বছরের ভয়াবহ স্মৃতি মনে রেখে মহারাষ্ট্রে আংশিক লকডাউনের কারণে ঘরে ফিরতে শুরু করেছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। এর আগে গত বছর যখন লকডাউন শুরু হয় আচমকা তখন অসুবিধায় পড়েছিলেন ভিন রাজ্য থেকে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকরা। দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে তাদের পায়ে হেঁটে বাড়ির ফেরার মর্মান্তিক দৃশ্য দেখেছিল দেশ। তাই ফের মহারাষ্ট্রে লকডাউনের ঘোষণা হতেই বাড়ি ফেরার তোড়জোড় শুরু হয়েছে।

    নাসিক থেকে ফিরছেন মধ্যপ্রদেশ, ইউপি, বিহার ও বাংলার শ্রমিকরা। এই শ্রমিকদের বেশিরভাগই বিভিন্ন রেস্তোরাঁ, নির্মাণকাজ শিল্পের সঙ্গে জড়িত। গ্রামে ফেরার প্রথম ট্রেন খুঁজছেন অনেকেই। ফলে ট্রেনেও ভিড় হচ্ছে প্রচণ্ড।