বাংলার দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস! কবে কোথায় ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা জানাচ্ছেন আবহাওয়া দফতর

বাংলার দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস! কবে কোথায় ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা জানাচ্ছেন আবহাওয়া দফতর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: সুপার সাইক্লোন আম্ফানের বর্ষপূর্তিতে বাংলায় হানা দিতে চলছে আর এক ঘূর্ণিঝড় ইয়াস। এই ইয়ায় সিভিয়ার সাইক্লোনের রূপ নিতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। এখন পর্যন্ত বাংলার উপকূলের দিকেই ইয়াসের অভিমুখ। এই অবস্থায় কেমন যাবে বাংলার আবহাওয়া। রবিবার থেকে বুধবারের দৈনিক আবহাওয়া একনজরে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে ২৪ মে অর্থাৎ সোমবার থেকেই ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাব পড়তে চলছে বাংলার উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে। তার আগে ২৩ মেও বজ্র-বিদ্যুৎসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ২২ মে শনিবার বিকেলে কলকাতা ভিজেছে বৃষ্টিতে। ইয়াসের আসার সংকেত দিচ্ছে এই বৃষ্টি। রবিবারও তা জারি থাকতে পারে।

হাওয়া অফিস জানিয়েছে, ইয়াসের গতিপথ বাংলার অভিমুখেই রয়েছে। গতিবেগ বেশি না হলেও ইয়াস ধ্বংসাত্মকরূপ নেবে। ইয়াস যত উপকূলের দিকে এগিয়ে আসবে, ততই দুর্যোগ বাড়বে। ২৪ মে ইয়াসের প্রভাবে ঘণ্টায় ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে উপকূলবর্তী এলাকায়। সেইসঙ্গে বজ্র-বিদ্যুৎসহ বৃষ্টির সম্ভাবনার জোরদার।

মঙ্গলবার অর্থাৎ ২৫ মে থেকে ইয়াসের প্রভাব আরও বেশি করে পড়বে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে। হাওয়া অফিস পূর্বাভাস দিয়েছে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, কলকাতা ও দুই ২৪ পরগনায় অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকী উত্তরবঙ্গেও অতি ভারী বৃষ্টি হবে। দার্জিলিং, কালিম্পং থেকে শুরু করে ঝাড়গ্রাম বাঁকুড়াতেও অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। সেইসঙ্গে বাড়বে ঝোড়ো হাওয়ার দাপট। উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইবে।

ঘূ্র্ণিঝড় ইয়াসের আছড়ে পড়ার কথা বুধবার অর্থাৎ ২৬ মে। ওইদিন উপকূলবর্তী এলাকায় ঘণ্টায় ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইবে। ঝড় উত্তরোত্তর গতি বাড়াবে। ইয়াসের উপকূল ছোঁয়ার সঙ্গে সঙ্গে গতিবেগ বেড়ে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার হবে ঝড়ের গতি। ইয়াসের প্রভাবে উত্তাল হবে সমুদ্র। জলোচ্ছ্বাসও সাংঘাতিক মাত্রা নেবে উপকূলে। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি চলবে বাংলার প্রায় সমস্ত জেলায়।

ইয়াসের প্রভাবে বুধবার অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত জেলা অর্থাৎ কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, নদিয়ায়। ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়াতেও ২০ সেন্টিমিটারের বশি বৃষ্টি হতে পারে। হিমালয়ের পাদদেশের জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং থেকে শুরু করে মালদহ ও দুই দিনাজপুরে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। ৭ থেকে ২০ সোন্টিমিয়ার বৃষ্টি হতে পারে। মু্র্শিদাবাদ থেকে শুরু করে পুরুলিয়া, দুই বর্ধমান, বীরভূমেও অতি ভারী বৃষ্টি হবে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় ইয়াস এমনই প্রকৃতির যে গতিবেগ ১২০ কিলোমিটার হলেও তা ১৭০ কিলোমিটারের মতো ধ্বংসাত্মক রূপ নিতে পারে। ফলে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আম্ফানের থেকেও বেশি ক্ষতিসাধন করতে পারে। পূর্ণিমার ভরা কোটালে ইয়াসের আছড়ে পড়ার সম্ভাবনায় আয়লার স্মৃতি উসকে দিয়েছে।