CAA বিরোধী আন্দোলনে বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে JNU এর গবেষক শারজিল ইমামকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ

CAA বিরোধী আন্দোলনে বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে JNU এর গবেষক শারজিল ইমামকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ

 

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: জেএনইউয়ের  গবেষক শারজিল ইমামকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে বিহারের জেহানাবাদ থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে। দিল্লির শাহিনবাগে বিতর্কিত ভাষণের জন্য জেএনইউয়ের এই প্রাক্তনীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ দায়ের হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বিহারে গিয়ে শারজিলকে গ্রেপ্তার করে দিল্লি পুলিশ।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যাতে দেখা যাচ্ছে জেএনইউ প্রাক্তনী শার্জিল ইমাম অসমকে ভারত থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার ডাক দিচ্ছেন। তিনি বলছেন, “ উত্তরপূর্ব ভারত বিচ্ছিন্ন হলে তবেই কেন্দ্র সরকার আমাদের কথা শুনবে।” আসলে, অসমে এনআরসি বিরোধিতায় মুসলিমদের একত্রিত হয়ে আন্দোলন করার ডাক দিচ্ছিলেন শারজিল। এই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই শারজিলের বিরুদ্ধে মোট ৫ রাজ্যে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের হয়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল বিজেপি শাসিত বিহার, দিল্লি এবং অসম।

শারজিলে খোঁজে দেশের অন্তত পাঁচটি রাজ্যে তল্লাশি চালানো হয়। দিল্লি-বিহার এবং উত্তরপ্রদেশ পুলিশ একটি যৌথ দল তৈরি করে। ওই বিশেষ দলটি অন্য রাজ্যে গিয়েও তল্লাশি চালায়। দিল্লি পুলিশের পাঁচটি দল বেরিয়ে পড়ে বিভিন্ন রাজ্যে। দিল্লি, মুম্বই, পাটনায় শুরু হয় তল্লাশি। সোমবার বিহারের জেহানাবাদে যায় তিন রাজ্যের পুলিশের ওই বিশেষ দল। মঙ্গলবার আটক করা হয় শারজিলের ভাইকে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেই সম্ভব শারজিল সম্পর্কে তথ্য পায় পুলিশ। তারপরই গ্রেপ্তার করা হয়েছে জেএনইউয়ের প্রাক্তন ছাত্রকে। শারজিলের গ্রেপ্তারি প্রসঙ্গে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার বলছেন, কারওরই এমন কোনও কাজ করা উচিত না, যে এই দেশের স্বার্থের বিরোধী।