ডা.কাফিল খানের সাসপেনশন ও চিকিৎসকদের উপর প্রশাসনিক সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে নাগরিক কনভেনশন

ডা.কাফিল খানের সাসপেনশন ও চিকিৎসকদের উপর প্রশাসনিক সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে নাগরিক কনভেনশন

নিউজ ডেস্ক, বঙ্গ রিপোর্টঃ  উত্তরপ্রদেশে যোগী সরকারের মিথ্যা অভিযোগের বেড়াজালে আটকে গিয়েছিলেন ডাঃ কাফিল খান। যার প্রতিবাদ স্বরুপ গর্জে উঠেছিল গোটা দেশ। যোগী সরকারের ডা. কাফিল খানের সাসপেনশন ও সমস্ত চার্জ প্রত্যাহার এবং চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের উপর সমস্ত সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মেডিকেল সার্ভিস সেন্টারের এক নাগরিক কনভেনশন আয়োজিত হয়। এই কনভেনশনে উপস্থিত ছিলেন ডাঃ কাফিল খান স্বয়ং (গোরক্ষপুর বি আর ডি মেডিকেল কলেজের বরখাস্ত হওয়া লেকচারার), শ্রীমতী অপর্ণা সেন, ডাঃ বিনায়ক সেন, ডাঃ উদয় নারায়ন সরকার (প্রখ্যাত কার্ডিওথোরাসিক সার্জেন), এডভোকেট পার্থসারথি সেনগুপ্ত( কলকাতা হাইকোর্টের প্রখ্যাত আইনজী), ও বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

কনভেনশন থেকে কয়েকটি দাবি করা হয়

১. অবিলম্বে ডাঃ কাফিল খানের উপর সাসপেনশন সহ সমস্ত চার্জ প্রত্যাহার করতে হবে।

২. স্বাস্থ্যব্যবস্থার বেসরকারিকরণ ও বাণিজ্যিকিকরণ বন্ধ করতে হবে, স্বাস্থ্যের উপর জনগণের অধিকার সুনিশ্চিত করতে হবে।

৩. স্বাস্থ্যকর্মীদের উপর প্রশাসনিক সন্ত্রাস বন্ধ কর।

৪. মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধ কর।

এই সভায় ডাঃ কাফিল খান তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমি শুধু একজন মুসলিম বলে নয়, যে কোন ডাক্তার আজ ভারতবর্ষে যদি অন্যায়ের প্রতবাদ করে তার পরিণতি হবে আমার মতই। ডাঃ বিনায়ক সেন বলেন, ” সিভিল সোসাইটিরই দায়িত্ব ভারতবর্ষে যে জাতপাত-ধর্মের নামে যে অন্যায় চলছে তার প্রতিবাদ করা”। অপর্ণা সেন বলেন, ” ভারতবর্ষে এমন সরকার চলছে যারা মানবশিশুকে বাঁচানোর প্রয়োজন মনে করেনা, গরুর প্রাণ বাঁচানোর জন্যই মরিয়া”।