অল ইন্ডিয়া হোমিওপ্যাথি এম ডি প্রবেশিকা পরীক্ষায় রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থান পেল দেগঙ্গার ডাঃ মেহেদী আরিফ

    অল ইন্ডিয়া হোমিওপ্যাথি এম ডি প্রবেশিকা পরীক্ষায় রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থান পেল দেগঙ্গার ডাঃ মেহেদী আরিফ বিল্লাহ

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: অল ইন্ডিয়া আয়ুষ পোষ্ট গ্র্যাজুয়েট এন্টাস টেস্ট অর্থাৎ অল ইন্ডিয়া হোমিওপ্যাথি এম ডি প্রবেশিকা পরীক্ষা রাজ্যের মধ্যে প্রথম ও সারাদেশে সপ্তম স্থান পেল দেগঙ্গার ছেলে ডাঃ মেহেদী আরিফ বিল্লাহ। ভারতবর্ষের মধ্যে সপ্তম স্থান দখল করল সে। বেড়াচাঁপা মুদিপাড়ার বাসিন্দা আরিফের বাবা পেশায় লোকো পাইলট মেন ইস্টার্ন রেল শিয়াদহ শাখার কর্মী আব্দুল মান্নান মুদি। ছেলের এই সাফল্যে খুশি।

    আরিফ জানায়, এই রাজ্যে থেকে সে এম ডি পড়তে চায়। তাই দিল্লীতে ডাক পেলেও সল্টলেকের ন্যাশানাল ইন্সটিউট অফ হোমিপ্যাথিতে সে পড়তে চায়। তার লক্ষ্য গ্রামের গরীব মানুষের হোমিপ্যাথি চিকিৎসা করে সুস্থ করে তোলা। কারণ গ্রামের মানুষের আর্থিক অবস্থা নেই বিপুল টাকা ব্যায়ে অ্যালাপেথিক চিকিৎসা করানোর।

    আরিফের পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে, স্থানীয় রহমত আলম মিশনের পড়া আরিফ ২০১৩ সালে জয়েন্ট এনন্টাস পরীক্ষায় পাশ করে কলকাতার ডাঃ দেবেন্দ্রনাথ দে হোমিওপ্যাথি মেডিকেল কলেজ এণ্ড হসপিটাল ভর্তি হয় সে। ২০১৮ সালে বি এইচ এম এস পাশ করে। ২০১৯ সালে ইন্টানসিফ ( জুনিয়ার ডাক্তার)-র কাজে যোগ দেন কলকাতার শম্ভুনাথ পন্ডিত হসপিটাল, চিত্তরঞ্জন শিশু ও সেবা সদনে। বর্তমানে কর্মরত মেডিসিন বিভাগে হাউস ফিজিসিয়ান ডাঃ দেবেন্দ্রনাথ দে হোমিওপ্যাথি কলেজে।

    ২০২০ সালে ২৮ শে সেপ্টেম্বর A I A P G E T অল ইন্ডিয়া আয়ুষ পোষ্ট গ্রাজুয়েট এনন্টাস টেস্ট M D পরীক্ষায় বসে। গোটা ভারতবর্ষ থেকে ২৬ হাজার ডাক্তার পরীক্ষায় বসে । ৪ঠা নভেম্বর ফল প্রকাশ হয়। সেখানে রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে আরিফ। ভারতের মধ্যে সপ্তম সে।

    শুক্রবার বেড়াচাপার নন্দীপাড়ায় আরিফের বাড়িতে ছেলের সাফল্যে আত্মীয় স্বজনের নিমন্ত্রন করে খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করে আরিফের বাবা আব্দুল মান্নান।

    এদিন আরিফের মা রওশানারা বিবি বলেন, গ্রামের মানুষ আর্থিক অনটনে অনেক সময় চিকিৎসা করাতে পারে না কঠিন রোগের। আমি চাই আমার ছেলে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা করে তাদের সুস্থ করে তুলুক।