ইসরাইল আর কতো অপরাধ করলে ওআইসি’র বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে?: তুরস্কের পর এবার হুঙ্কার ইরানের

ইসরাইল আর কতো অপরাধ করলে ওআইসি’র বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে?: তুরস্কের পর এবার হুঙ্কার ইরানের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিচারবিভাগের মানবাধিকার বিষয়ক দফতরের মহাসচিব আলী বাকেরি কানি প্রশ্ন করেছেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল আর কত অপরাধ করলে মুসলিম দেশগুলোকে নিয়ে গঠিত ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসি’র জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে? অধিকৃত ফিলিস্তিন বিশেষ করে অবরুদ্ধ গাজায় ইসরাইলি অপরাধযজ্ঞের বিষয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ প্রশ্ন করেন।

আলী বাকেরি কানির এ বক্তব্য কেবলই একটি প্রশ্ন নয় বরং তিনি এমন এক তিক্ত বাস্তবতার দিকে ইঙ্গিত করেছেন যা সম্প্রতি গাজা ও কুদস শহরে আমরা দেখতে পাচ্ছি। ইসরাইল গাজায় যে বর্বরোচিত আগ্রাসন চালাচ্ছে তা মানবতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধ এবং বংশ নিধনযোগ্য ছাড়া আর কিছুই নয়। দখলদার ইসরাইল বর্তমান যুগের সবচেয়ে অত্যাধুনিক যুদ্ধাস্ত্র দিয়ে গাজার আবাসিক এলাকা একের পর এক ধ্বংস করে চলেছে। বড় বড় ভবনে বোমা হামলা চালিয়ে এক জায়গায় নারী, শিশু, বয়স্ক মানুষকে হত্যা করছে। গাজার পানি, বিদ্যুত ও যোগাযোগ ব্যবস্থার মতো গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগুলো মাটির সাথে মিশিয়ে দিচ্ছে।

ইসরাইলের মানবাধিকার লঙ্ঘনের মাত্রা এতটাই ছাড়িয়ে গেছে যে, মুসলিম দেশগুলোর পক্ষ থেকে এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নেয়া দরকার হয়ে পড়েছে। তারা সর্বনিম্ন যে কাজ করতে পারে সেটা হচ্ছে মজলুম ফিলিস্তিনিদের সমর্থনে ওআইসির জরুরি বৈঠক ডাকা যাতে করে তারা গাজায় ইসরাইলের অপরাধযজ্ঞের বিষয়টি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরতে পারে।