যে পাড়ার লোক ভোট দেয়নি, সেখানে উন্নয়ন হবে না, সদর্পে ঘোষণা অনুব্রত মণ্ডলের

যে পাড়ার লোক ভোট দেয়নি, সেখানে উন্নয়ন হবে না, সদর্পে ঘোষণা অনুব্রত মণ্ডলের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ফের বেলাগাম অনুব্রত মণ্ডল৷ এবার সরাসরি ভোট না দিলে উন্নয়ন হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিলেন বীরভূমের দাপুটে তৃণমূল নেতা৷

আজ খয়রাশোলে কর্মীসভায় অংশ নিয়েছিলেন অনুব্রত মণ্ডল৷ সেখানে বুধ ভিত্তিক ফলাফল জানতে চান তিনি৷ এক নেতাকে দাঁড় করিয়ে অনুব্রত মণ্ডল জানতে চান, কোন পাড়ায় ভোট পায়নি তৃণমূল? অনুব্রতর এহেন প্রশ্নের শুনে কিছুটা থতমত খেয়ে যান তৃণমূল কর্মী৷ কিছুটা অপ্রস্তুত হয়ে জানিয়ে দেন গ্রামের নাম৷ এরপর মঞ্চ থেকে মাইক হাতে অনুব্রত মণ্ডল ঘোষণা, যে পাড়ার লোক ভোট দেয়নি, সেখানে কাজ বন্ধ রাখ৷ দেখি বিজেপি কাজ করে দেয় কিনা৷

নিজের স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গীতে অনুব্রত বলেন, ‘‘যে পাড়া থেকে ভোট আসেনি, সেই পাড়ায় কাজ পুরোপুরি বন্ধ রাখ৷ ওখানে আমরা কোন কাজ করব না৷ দেখি বিজেপি কাজ করে দেয় কি না৷ উন্নয়ন করবে বিজেপি? আমি কি অন্যায় বলছি? দেখি কোন বিজেপি নেতা উন্নয়ন করে দেয়৷’’ এরপর অনুব্রত মণ্ডলের মন্তব্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাজ করেননি? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উন্নয়ন করেনি? তাহলে কেন ভোট এল না কেন?’’

যদিও এর আগে নিজের কেন্দ্রে উন্নয়ন নিয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন অনুব্রত মণ্ডল৷ এলাকায় বেহাল রাস্তা নির্মাণের দাবি তুলেছিলেন এক স্থানীয় তৃণমূল নেতা৷ ভরা মঞ্চে উন্নয়নের দাবি জানানো তৃণমূল নেতাকে কার্যত অপদস্থ করে ছেড়েছিলেন অনুব্রত৷ এর পর একাধিক কর্মী সভায় উন্নয়নসংক্রান্ত প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় ‘রাস্তায় উন্নয়ন’ দাঁড় করিয়ে রাখা অনুব্রত মণ্ডলকে৷ এবার আর প্রশ্ন নয়, বরং সরাসরি তৃণমূলকে ভোট না দিলে উন্নয়ন বন্ধ করার হুমকি দিয়ে বসলেন তৃণমূলের এই দাপুটে নেতা, যার ওপরে রয়েছে তৃণমূলের অগাধ আস্থা৷

ভোট না দিলে উন্নয়ন হবে না, অনুব্রত মণ্ডলের এহেন মন্তব্য ঘিরে নতুন করে তৈরি হয়েছে বিতর্ক৷ গণতান্ত্রিক দেশে ভোট না পেলে উন্নয়ন আদৌ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া যায় কি না তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ অনুব্রত এহেন হুমকির বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই মুখ খুলেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব৷

কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্প নিজেদের নামে চালানোর চেষ্টা করছে তৃণমূল৷ তৃণমূল সরকার বিগত ৯ বছরে তাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পালন করেনি৷ এখন কেন্দ্রের প্রকল্প রাজ্য নিজের নামে চালিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ তুলেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব৷