অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ভারত: এই নিয়ে পর পর পাঁচ বার অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জিতল ভারত

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ভারত: এই নিয়ে পর পর পাঁচ বার অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জিতল ভারত

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ওয়েস্ট ইন্ডিজে আয়োজিত ২০২২ আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হল ভারত। এই নিয়ে পর পর পাঁচ বার অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জিতল ভারত।

শনিবার ম্যাচের শুরুতে টসে জিতে অ্যাডভান্টেজ পেয়েছিল ইংল্যান্ড। প্রথমে ব্যাট করে ১৯০ রান করে তারা। পরে ব্যাট করতে নামলেও লক্ষ্যপূরণ করতে বেশি সময় লাগেনি ভারতের। ২.২ ওভার বাকি থাকতেই ইংল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ক্রিকেটে বিশ্ব খেতাব জিতে নেয় যশ ধুলের টিম।

অ্যান্টিগুয়ার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডকে ছয় উইকেটে পরাজিত করল যশ ঢুলের নেতৃত্বাধীন অনূর্ধ্ব-১৯ টিম ইন্ডিয়া। ফাইনাল ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারতের নায়ক রাজ বাওয়া।

দু’শোর ও কম লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে খুব বেশি সমস্যা হয়নি অনূর্ধ্ব-১৯ ভারতীয় দলের। ৬ উইকেট হারিয় এবং ২.২ ওভার বাকি থাকতেই জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় টিম ইন্ডিয়া।

শুরুটা যদিও প্রত্যাশা মতো হয়নি ভারতীয় ইনিংসের। দ্বিতীয় বলেই ওপেনার অঙ্গকৃষ রঘুবংশী ০ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান, অপর ওপেনার হার্নুর সিং করেন ২১ রান। দুই ওপেনার তাড়াতাড়ি প্যাভিলিয়নে ফিরলেও তার কোনও প্রভাব দলের উপর পড়তে দেননি শেখ রশিদ, নিশান্ত সিন্ধুরা।

শেষ চারের ফর্ম বজায় রেখে ফাইনালেও ভাল ছন্দে পাওয়া গিয়েছে রশিদকে। এ দিন গুরুত্বপূর্ণ পঞ্চাশ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। রশিদ ছাড়াও বড় রান পেয়েছেন নিশান্ত সিন্ধু। তাঁর ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ৫০ রানের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস। বল হাতে পাঁচ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও নিজের দক্ষতার ছাপ রেখেছেন রাজ বাওয়া (৩৫)। মূলত নিশান্ত এবং রাজের কারণে আকস্মিক তৈরি হওয়া বিপদ থেকে এই ম্যাচে বেরিয়ে আসতে পেরেছিল ভারত। জেমস সেলসের ওভারে পর পর দুই সেট ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যাওয়া ভারতীয় দলকে ম্যাচে ফেরায় রাজ এবং নিশান্তের জুটি।

ফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে পঞ্চমবারের মতো যুব বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। ইংল্যান্ডকে রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। আফগানিস্তানকে হারিয়ে তিন নম্বরে থেকে বিশ্বকাপ অভিযান শেষ করে অস্ট্রেলিয়া।

শুরু হয়েছিল ১৪ জানুয়ারি। শেষ হল ৫ ফেব্রুয়ারি। তিন সপ্তাহের লড়াই শেষে খুঁজে পাওয়া গেল যুব বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। ফাইনাল ম্যাচের পর ১৬ দলের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের স্ট্যান্ডিংও নির্ধারিত হয়ে যায়। সুপার লিগের যোগ্যতা অর্জন করা আটটি দল থাকে প্রথম আটে। প্লেটের ৮টি দল পারফর্ম্যান্সের নিরিখে জায়গা করে নেয় ৯ থেকে ১৬ নম্বর স্থানে। যদিও করোনার জন্য ১৫-১৬তম স্থান নির্ণায়ক প্লে-অফ আয়োজন করা যায়নি

পাকিস্তান পাঁচ নম্বরে থেকে এবারের যুব বিশ্বকাপ অভিযান শেষ করে। গতবারের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ টুর্নামেন্ট শেষ করে আট নম্বরে থেকে। শ্রীলঙ্কা ভালো খেলেও ছয় নম্বরে থাকে। আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে প্লেট চ্যাম্পিয়ন হয় আমিরশাহি।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ২০২২-এর চূড়ান্ত ক্রমতালিকা:-চ্যাম্পিয়ন: ভারত
রানার্স: ইংল্যান্ড
তৃতীয়: অস্ট্রেলিয়া
চতুর্থ: আফগানিস্তান
পঞ্চম: পাকিস্তান
ষষ্ঠ: শ্রীলঙ্কা
সপ্তম: দক্ষিণ আফ্রিকা
অষ্টম: বাংলাদেশ

প্লেট চ্যাম্পিয়ন: সংযুক্ত আরব আমিরশাহি
প্লেট রানার্স: আয়ারল্যান্ড
একাদশ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ
দ্বাদশ: জিম্বাবোয়ে
ত্রয়োদশ: উগান্ডা
চতুর্দশ: স্কটল্যান্ড
পঞ্চদশ: কানাডা
ষষ্ঠদশ: পাপুয়া নিউ গিনি