আয়ারল্যান্ডে কোন সাপ নেই: কারণ রহস্যময় রূপকথা নাকি বিজ্ঞান!

বঙ্গ রিপোর্ট, ডিজিটাল ডেস্কঃ ইউরোপ মহাদেশের পশ্চিমে প্রায় ৮৪ হাজার বর্গ কি.মি দ্বীপ অঞ্চল নিয়ে গঠিত আয়ারল্যান্ড দেশটি। তবে আপনি এই দেশটির একটি বৈশিষ্ঠ্য শুনলে অবাক হবেন যে এই দেশটিতে চিড়িয়াখানায় ছাড়া কোন সাপ নেই। সে দেশের রুপকথা অনুযায়ী সাপ না থাকার কারণ হচ্ছে, সেইন্ট প্যাট্রিক নামে এক ধর্মতান্ত্রিক মন্ত্রের মাধ্যমে আয়ারল্যান্ডের সমস্ত সাপ সাগরে নিক্ষেপ করেছিলেন।

আয়ারল্যান্ডের সেইন্ট প্যাট্রিক ছিলেন দেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী ধর্ম প্রচারকদের মধ্যে অন্যতম। আইরিশ কল্পকাহিনী অনুযায়ী, সেইন্ট প্যাট্রিক ৪০ দিনের জন্য এক পাহাড়ি স্থানে ধ্যানমগ্ন থাকাকালীন একটি সাপ আক্রমণ করে। সেই সময় তিনি সমস্ত সাপকে সমুদ্রে নিক্ষেপ করে আয়ারল্যান্ডকে সাপ মুক্ত করেন।

আইরিশ এই উপকথাটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হলেও সম্ভবত এটি শুধুই উপকথা। কিন্তু বাস্তবে এই ঘটনার কোনো নির্ভরযোগ্য প্রমাণ নেই। তাছাড়া বিজ্ঞানীদের মতে, সেইন্ট প্যাট্রিকের পক্ষে সাপ নির্বাসিত করা সম্ভবই ছিল না। কারণ আয়ারল্যান্ডে কোনোকালেই সাপ ছিল না।

বিভিন্ন ঐতিহাসিক গবেষকেরা জানিয়েছেন যে আয়ারল্যান্ডে কোন সাপের ফসিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ থেকে প্রমাণিত হয় যে পাক-ঐতিহাসিক যুগেও আয়ারল্যান্ডে কোন সাপ ছিলনা। বিশ্বের সব দেশেই কমবেশি সাপ থাকলেও এই দেশে সাপ না থাজার কারণ হচ্ছে আয়ারল্যান্ড একটি দ্বীপ। আয়ারল্যান্ড থেজেভার পাশাপাশি অন্য স্থলভাগের সবচেয়ে কম দূরত্ব ৭০ কিলোমিটার। কোনো সাপের পক্ষে এতো দূরের পথ সাঁতরে পাড়ি দেওয়া সম্ভব না। সামুদ্রিক সাপ দীর্ঘক্ষণ জলেভথাকতে পারলেও, সামুদ্রিক সাপের বসবাস উষ্ণ জলবায়ুর অঞ্চলগুলোতে। আয়ারল্যান্ডের বরফ-শীতল আটলান্টিক মহাসাগর তাদের বসবাসের জন্য উপযোগী না।

এ হিসেবে অনুযায়ী পাশের রাষ্ট্র ইংল্যান্ডেও সাপ থাকার কথা নয় কিন্তু সেখানে প্রচুর সাপ থাকার কারণ কি?

এর উত্তর নিহিত আছে আয়ারল্যান্ডের সৃষ্টির ইতিহাসে। প্রায় ১০,০০০ বছর আগে যখন সর্বশেষ বরফ যুগের অবসান হতে থাকে এবং বরফ গলতে শুরু করে, তখন প্রথম দিকে আয়ারল্যান্ডের সাথে ইংল্যান্ডের এবং ইংল্যান্ডের সাথে ইউরোপের যাতায়াতের স্থলপথ বিদ্যমান ছিল। বরফের আচ্ছাদনে তৈরি এসব সরু সেতুবন্ধনের মতো স্থলভাগের উপর দিয়েই এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাতায়াত করা যেত। কিন্তু পৃথিবী যত উষ্ণ হতে থাকে, এসব বরফের সংযোগপথ ততোই গলতে থাকে এবং একসময় সমুদ্রে বিলীন হয়ে আয়ারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডকে বিচ্ছিন্ন দ্বীপে পরিণত করে।
শুধু সাপ না, বরফ যুগের পর আয়ারল্যান্ডে কোনো সরীসৃপই প্রবেশ করতে পারেনি, শুধুমাত্র টিকটিকি বাদে। নাইজেল মোনাগানের মতে, আজ থেকে ১০,০০০ বছর পূর্বে প্রবেশ করা এই টিকটিকিগুলোই একমাত্র সরীসৃপ, যা প্রাকৃতিকভাবে আয়ারল্যান্ডে প্রবেশ করতে পেরেছিল।