পাঞ্জাবে যাওয়ার পথে কৃষকদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন কঙ্গনা রানাওয়াত: উঠলো মুর্দাবাদ স্লোগান

পাঞ্জাবে যাওয়ার পথে কৃষকদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন কঙ্গনা রানাওয়াত: উঠলো মুর্দাবাদ স্লোগান

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: আন্দোলন চলাকালীন কৃষকদের উদ্দেশে নেতিবাচক মন্তব্য করেছিলেন কঙ্গনা রানাওয়ত। কেন্দ্র শেষমেশ কৃষি আইন প্রত্যাহার করলে তা নিয়েও বিতর্কিত মন্তব্য করেন অভিনেত্রী। সঙ্গত কারণেই পাঞ্জাবের চণ্ডীগড়-উনা এক্সপ্রেসওয়েতে কৃষকদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন তিনি। শুক্রবার এই ঘটনা ঘটে কিরতপুর সাহিবের বুঙ্গা সাহিব এলাকায়। ছবিতে দেখা গেছে, কঙ্গনার গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন বহু কৃষক। তাঁদের গলায় ‘মুর্দাবাদ’ স্লোগান। পরিস্থিতি সামলে দিয়েছে পুলিশ। পাঞ্জাবের কৃষকদের খলিস্তানিদের সঙ্গে তুলনা করায় তীব্র অসন্তোষের সৃষ্টি হয় শিখ সম্প্রদায়ের কৃষকদের মধ্যে। আজ সেই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাওয়ার পরেই কঙ্গনার গাড়ি যেতে দেন তাঁরা।

কঙ্গনা বলছেন, ‘পুলিশকর্মীরা না থাকলে আমি গণধোলাইয়ের শিকার হতাম। এই সব লোকগুলোর লজ্জা হওয়া উচিত।’ এই ঘটনার একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করে অভিনেত্রী বলেন, ‘পাঞ্জাব ঢোকার পর এক ভিড় আমার গাড়িকে আক্রমণ করে। ওরা বলছে ওরা নাকি কৃষক। নিজেদের কৃষক বলছে এদিকে আমায় আক্রমণ করছে, নোংরা গালাগাল দিচ্ছে, প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছে। এই দেশে এভাবে প্রকাশ্যে গণধোলাই চলছে।’

নিরাপত্তা রক্ষীরা না থাকলে কী হত, তা ভেবেই আতঙ্কে কাঁপছেন কঙ্গনা। জানা গেছে, তাঁর গাড়ি আটকে দেওয়ার পর এক বৃদ্ধা পাঞ্জাবি ভাষায় কঙ্গনাকে উপদেশ দিয়ে বলেন, ‘যা বলবে ভেবেচিন্তে বলবে।’ অন্য আর এক মহিলাকে উত্তরে কঙ্গনা বলেন, ‘আমি তো আপনাদের কিছু বলিনি, শাহিনবাগে যারা প্রতিবাদ করছিল তাদের বলেছি।’ প্রসঙ্গত, কৃষক আন্দোলন নিয়ে ক্রমাগত নেতিবাচক মন্তব্যের পর থেকেই হুমকি পাচ্ছিলেন কঙ্গনা। তিনি এও জানিয়েছেন, ভাতিন্দার এক ব্যক্তি তাঁকে খুন করার হুমকি দিয়েছেন।