ভারত পাকিস্তান ম্যাচের পর পাঞ্জাবের দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আক্রান্ত কাশ্মিরী পড়ুয়ারা

ভারত পাকিস্তান ম্যাচের পর পাঞ্জাবের দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আক্রান্ত কাশ্মিরী পড়ুয়ারা

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: টি-২০ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ভারত-পাকিস্তানের খেলাকে কেন্দ্র করে অশান্তি ছড়াল পঞ্জাবের দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। কাশ্মীরি পড়ুয়াদের অভিযোগ, খেলায় পাকিস্তান জেতার পর তাঁদের উপর চড়াও হন একদল গেরূয়া ভক্ত। তাঁদের হস্টেলে ঢুকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ ওঠে।

পঞ্জাবের ভাই গুরুদাস ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ও রায়ত ভারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। জম্মু কাশ্মীর ছাত্র সংগঠনের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘‘পঞ্জাবের সঙ্গুর ও মোহালি জেলার দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাশ্মীরি পড়ুয়ারা ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের পর আক্রান্ত হয়েছেন।”

সংগঠনটির দাবি, মূলত উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা ও বিহারের পড়ুয়ারা রবিবার রাতে আক্রমণ চালান। হামলার হাত থেকে স্থানীয় মানুষেরাই তাঁদের উদ্ধার করেছেন বলে দাবি করা হয়েছে। কাশ্মীরি পড়ুয়াদের হস্টেলের ঘরেও ভাঙচুর চালানো হয় বলেও অভিযোগ।

এই নিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন আক্রান্ত পড়ুয়ারা। তাঁরা দাবি করেন, নিরাপত্তারক্ষীরা হস্টেলে হামলাকারীদের ঢুকতে দেয়। তার পর মূলত উত্তরপ্রদেশের পড়ুয়াদের নেতৃত্বে হামলাকারীরা হস্টেলের ঘরে ঢুকে তাণ্ডব চালান।

পরে পঞ্জাব পুলিশের একটি দল এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। একই ঘটনা ঘটেছে মোহালির একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও। সেখানেও চার কাশ্মীরি পড়ুয়া আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর। সঙ্গুরের এক পুলিশ আধিকারিক ইঞ্জিনিয়রিং কলেজ সম্পর্কে জানিয়েছেন, ‘‘ওই প্রতিষ্ঠানটিতে মোট ৯০ জন কাশ্মীরি পড়ুয়া রয়েছেন আর ৩০ জনের মতো ছাত্র বিহার ও উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা।”