ইয়াসের সাথে ভরা কোটাল, পূর্ণিমা ও চন্দ্রগ্রহণ: ৫০ বছরের রেকর্ড জলোচ্ছ্বাস দেখল দীঘা

ইয়াসের সাথে ভরা কোটাল, পূর্ণিমা ও চন্দ্রগ্রহণ: ৫০ বছরের রেকর্ড জলোচ্ছ্বাস দেখল দীঘা

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ইয়াসের ল্যান্ডফল থেকে রেহাই পেলেও যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাংলা। দক্ষিণ ২৪ পরগনার সঙ্গে জলের তলায় পূর্ব মেদিনীপুরও। সাইক্লোনের রূপ কতটা সাংঘাতিক তা প্রত্যক্ষ করল দিঘা। দিঘার সমুদ্রে যে জলোচ্ছ্বাস দেখল সারা বাংলা, তা গত ৫০ বছরেও দেখা যায়নি বলে জানা গেছে। শুধু ইয়াস নয়, এদিন জলোচ্ছ্বাসের নেপথ্যে ছিল ভরা কোটাল এবং পূর্ণিমাও। আজ আবার চন্দ্রগ্রহণও পড়েছে। এই ত্র্যহস্পর্শে ঢেউ উঠল নারকেল গাছের মাথা ছাড়িয়ে।

বহু অর্থ খরচ করে দিঘাকে নতুন করে সাজিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বিশেষ করে ওল্ড দিঘাকে মনোমুগ্ধকর বানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। ইয়াসের দাপটে সেই সমুদ্র শহরের বিপর্যস্ত অবস্থা। কন্ট্রোল রুম থেকে দিঘার মানুষের জন্য বার্তা দিলেন মমতা ব্যানার্জি।

তিনি বললেন, ‘বাংলায় বন্যা পরিস্থিতি। সব মিলিয়ে ১৫ লক্ষ মানুষকে বের করতে পেরেছি। ভরা কোটালে ডুবে যাচ্ছে বহু এলাকা। জলের তোড় ভয়াবহ। দিঘা থেকে লোক সরাচ্ছি। দিঘার ২০ হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত। চারদিকে নজর রাখা হচ্ছে। আজকের দিনটা কষ্ট করে সাইক্লোন সেন্টারে থাকতে হবে।’

বুধবার সকাল ৯টা ১৫ নাগাদ বালেশ্বরের কাছে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস। কিন্তু দিঘায় তাঁর আগে থেকেই ফুলে ফেঁপে ওঠে জলস্তর।