গোয়ায় সরকার গড়তে তৃণমূল সঙ্গী এমজিপি বিজেপিকে সমর্থন করে চিঠি 

গোয়ায় সরকার গড়তে তৃণমূল সঙ্গী এমজিপি বিজেপিকে সমর্থন করে চিঠি 

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বিকেলে গোয়ার চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। সেখানে দেখা যাচ্ছে ৪০ টি আসনের মধ্যে ২০ টি আসন পেয়ে একক বৃহত্তম দল হয়েছে বিজেপি। তারপরেই রয়েছেন কংগ্রেস। তারা পেয়েছে ১১ টি আসন। নির্দলীয়রা পেয়েছে তিনটি আসন। অন্যদিকে আপ পেয়েছে দুটি আসন। তৃণমূল গোয়ায় খাতা থুলতে না পারলেও তাদের জোটসঙ্গী মহারাষ্ট্রবাদী গোমন্তক পার্টি পেয়েছে ২ টি আসন। এছাড়াও কংগ্রেসের জোটসঙ্গী গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টি এবং রিভলিউশনারি গোয়ানস পার্টি ১ টি করে আসন পেয়েছে।

 

গোয়ায় ভোট গণনার আগে থেকেই ছোট দলগুলি বিশেষ করে আপ, এমজিপি এবং তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিল কংগ্রেস। অন্যদিকে তৃণমূল সঙ্গী এমজিপি এবং নির্দলীয়দের সঙ্গে যএাগাযোগ লরাখছিল বিজেপি। কিন্তু এদিন ফলাফল আসার সঙ্গে সঙ্গে কংগ্রেস পিছিয়ে পড়তেই দ্বিগুণ তৎপরতা শুরু হয়ে যায় বিজেপি শিবিরে। বিজেপির তরফে গোয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ পানাজিতে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান, তৃণমূল সঙ্গী এমজিপি তাদের সমর্থন করে চিঠি দিয়েছে। এছাড়াও ৩ নির্দলীয় বিধায়ক তাদের সমর্থন করবেন। যার জেরে সরকার গড়তে ২০+২+৩= ২৫ জনের সমর্থন জোগার হয়ে যায় এদিনই। এছাড়াও ফড়নবিশ বলেন, আরও অনেকে পরে সরকারে যোগ দিতে পারেন।

 

তৃণমূল জোটসঙ্গীর বিজেপিকে সমর্থনের খবর সামনে আসতেই বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছে তৃণমূল, বিরোধীদের অভিযোগ গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস যে বিজেপিকে সহযোগিতা করতে গিয়েছিল এই ঘটনা তারই প্রমাণ।

 

শতাংশের নিরিখে গোয়ায় বিজেপি পেয়েছে ৩৩.৩১% ভোট। কংগ্রেস পেয়েছে ২৩.৪৬% ভোট। এমজিপি এবং আপ পেয়েছে যথাক্রমে ৭.৬০% এবং ৬.৭৭% ভোট। শতাংশের নিরিখে পঞ্চম স্থানে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তারা পেয়েছে ৫.২১% ভোট। এছাড়াও জিপিএফ ১.৮৪%, এনসিপি ১.১৪% ভোট পেয়েছে। নোটায় পড়েছে ১.১২% ভোট। অন্যরা পেয়েছে ১৯.৩৭% ভোট।