বিজেপিতে যোগ দেওয়া মহাগুরু তো সারদাকাণ্ডে জড়িত: মিঠুনকে আক্রমণ সেলিমের

    বিজেপিতে যোগ দেওয়া মহাগুরু তো সারদাকাণ্ডে জড়িত: মিঠুনকে আক্রমণ সেলিমের

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: এখনও পর্যন্ত বিজেপির পক্ষ থেকে সবচেয়ে বড় ব্রিগেডের সমাবেশ। সেই সমাবেশে বিজেপিতে যোগ দেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী। যা নিয়ে তৃণমূলের তরফ থেকে আক্রমণ করা হয়েছে সব থেকে বেশি। মিঠুনের বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে কটাক্ষ করেছেন সিপিএম পলিটব্যুরোর সদস্য মহঃ সেলিমও।

    একটা সময়ে প্রয়াত সুভাষ চক্রবর্তীর খুব কাছের বলে পরিচিত ছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। একাধিকবার তাঁকে জ্যোতি বসুর সঙ্গেও দেখা করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। সেই মিঠুন যখন বিজেপির মঞ্চে, সেই সময় সিপিএম পলিটব্যুরোর সদস্য মহঃ সেলিম বলেছেন, আজ যাঁদের মহাগুরু, মহান নেতা বলা হচ্ছে, তাঁরাই তো সারদার সঙ্গে যুক্ত।

    মিঠুন চক্রবর্তীকে এদিন সব থেকে বেশি আক্রমণ করে তৃণমূল কংগ্রেস। সৌগত রায় বলেছেন মিঠুন চারবার দলবদল করেছে। প্রথমে ছিল নকশাল, পরে সিপিএম। তারপর তৃণমূল কংগ্রেস, আর এবার বিজেপি। মিঠুনের কোনও বিশ্বাসযোগ্যতা নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি দাবি করেন, মিঠুনকে ইডি দেখিয়ে হুমকি দিয়েছিল বিজেপি। সেই কারণেই রাজ্যসভার পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি। তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ এদিন বলেন, মিঠুন চক্রবর্তী তাঁর অত্যন্ত প্রিয়।

    তিনিই (মিঠুন) একটা সময় মন্তব্য করেছিলেন, ছোট বোন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে রাজ্যসভায় পাঠাল, তিনি সারাজীবন সেই কথা মনে রাখবেন, সেই কথা স্মরণ করিয়ে দেন।প্রসঙ্গত রাজ্যসভায় সদস্য করার আগে-পরে তৃণমূলের হয়ে ভোটের প্রচারে অংশ নিতে দেখা গিয়েছিল মিঠুন চক্রবর্তীকে। কিন্তু বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা থেকে আর্থিক সুবিধা নেওয়ার অভিযোগ ওঠার পরেই তিনি রাজনীতি থেকে সরে যান। তিনি সেই সময় পাওয়া পারিশ্রমিকও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে। পরে ২০১৬-তে রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে সরে দাঁড়ান।