আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে বিরূপ মন্তব্য: রামদেবের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের

    আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে বিরূপ মন্তব্য: রামদেবের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: বাবা রামদেবের বিরুদ্ধে খড়গহস্ত দেশের চিকিৎসকরা। পতঞ্জলির বিজ্ঞাপনে বাবা রামদেবকে অ্যালোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার বিরুদ্ধাচরণ করতে শোনা যায়। আর তাতেই ক্ষুব্ধ ভারতীয় মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (IMA)। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধনকে চিঠি দিয়ে রামদেবের বিরুদ্ধে মহামারী আইনে মামলার দাবি তুলেছেন চিকিৎসকরা। সংগঠনের তরফে জানানো হয়েছে, অ্যালোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার বিরুদ্ধে রামদেবের এই মন্তব্য মেনে নেওয়া হলে, দেশ থেকে আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা তুলে দেওয়া হোক।

    শনিবার সংগঠনের তরফে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষবর্ধনকে আরও জানানো হয়, যদি সরকারি স্তরে কোনও পদক্ষেপ না নেওয়া হয়, তাহলে গণতান্ত্রিক উপায়ে রামদেবের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে চিকিৎসক মহল। সম্প্রতি একটি বিজ্ঞাপনে রামদেবকে বলতে শোনা যায়, ‘অ্যালোপ্যাথি ওষুধ খেয়ে লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়।’ এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন চিকিৎসকরা। রামদেব এই মন্তব্যের মাধ্যমে DGCI-এর গ্রহণযোগ্যতাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন বলেও বক্তব্য চিকিৎসকদের।

    IMA-র দাবি, মহামারী আইনের তিন নম্বর ধারা প্রয়োগ করে মামলা করা হোক রামদেবের বিরুদ্ধে। সংগঠনের আরও অভিযোগ, ফ্যাভিপিরাভির ওষুধ নিয়ে রামদেবের করা মন্তব্য হাস্যকর এবং শিশুসুলভ। বিজ্ঞান সম্পর্কে তাঁর অজ্ঞানতা প্রকাশ পেয়েছে ওই মন্তব্যে। রামদেবের দাবিগুলো সরাসরি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক, এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ভূমিকার উপরও প্রশ্ন চিহ্ন লাগিয়ে দেয় বলে মত তাঁদের। পাশাপাশি, রামদেব নিজের সংস্থার বিভিন্ন পণ্যের বিষয়ে মিথ্যা প্রচার চালিয়ে মানুষজনকে বিভ্রান্ত করছেন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। কোরোনিল এবং স্বসারি ওষুধের প্রসঙ্গ টেনে IMA বলে, পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে রামদেব সবাইকে বোকা বানিয়ে যেকোনও উপায়ে টাকা উপার্জনের পথ খুঁজছেন।