অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস মহমেডান সমর্থকদের: ইনভেস্টর পেতে চলেছে শতাব্দী প্রাচীন কলকাতার এই ক্লাব

অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস মহমেডান সমর্থকদের: ইনভেস্টর পেতে চলেছে শতাব্দী প্রাচীন কলকাতার এই ক্লাব

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: মহমেডান সমর্থকদের এত স্বতস্ফূর্ত আবেগ সম্ভবত গত তিন দশকে দেখেনি বাংলার ফুটবলপ্রেমীরা। ইনভেস্টর ইস্যু নিয়ে গত শুক্রবার ক্লাবে মিটিং ছিল। সমর্থকরা বুঝে গেছেন পকেট থেকে টাকা দিয়ে ক্লাব চালালে মহামেডান স্পোর্টিং আগামীদিনে ডালহৌসি বা বাটা ক্লাব হয়ে যাবে।

কিন্তু গুঞ্জন ছিল কিছু কর্তা ক্লাবকে এখনো তাদের মৌরিসিপাট্যা করে রাখতে চান। ইনভেস্টর এলে শেয়ার ছাড়তে হবে,বোর্ড অফ ডিরেক্টরস গঠন হবে,পেশাদার CEO. নিয়োগ হবে।সুতরাং ছড়ি ঘোরানো যাবে না। তাই শেয়ার ইস্যু নিয়ে বাগড়া দেওয়া। আর এটাও অদ্ভুত ইনভেস্টর টাকা দেবে অথচ শেয়ার নেবে না। তাই কি হয় ? যেন তারা ব্যবসা করতে আসছে না,সমাজসেবা করতে আসছে।

সমর্থকদের এইসবের বালাই নেই। তারা চায় ক্লাব ভারতীয় ফুটবলের মুলস্রোতে ফিরে আসুক। তাই একটা “ব্ল্যাক প্যান্থারস মহমেডান ফ্যানস্ ক্লাব” ও “ব্ল্যাক প্যান্থারস মহমেডান স্পোর্টিং আল্ট্রাস” সহ আরো বিভিন্ন ফ্যান ক্লাব সহ বহু মহমেডান সমর্থক হেস্তনেস্ত করতে শুক্রবার সকাল থেকে হাজির ক্লাব প্রাঙ্গণে।

হাওড়া, বসিরহাট,বনগাঁ,বারুইপুর, মহেশতলা থেকে নিউ টাউন রাজারহাট,খিদিরপুরের সবার মিলনক্ষেত্র হয়ে দাঁড়াল ক্লাব প্রাঙ্গন। দীর্ঘক্ষণ মিটিং চলল,বাইরে উৎকন্ঠিত সমর্থকরা। মিটিং শুরু হওয়ার আগে দাবি জানিয়ে স্লোগান হল। মিটিং শেষ,সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক কে ঘিরে জানতে চাওয়া হল। আজ সিদ্ধান্ত হয়নি। আট জনের একটি কমিটি গঠন করে কাল শনিবার সন্ধে ৭.৩০ এ মিটিং ডাকা হয়। ক্লাবের পক্ষ থেকে CA এবং লিগ্যাল advisor নিয়ে আইনি পর্যালোচনা করে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শেষ পর্যন্ত সফল ওয়াশিম আক্রম এন্ড কোং! লন্ডনের এক স্পোর্টস ম্যাগাজিন কোম্পানি ইনভেস্টর হতে চলেছে ১২৯ বছরের ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবে। সমর্থকদের আন্দোলনে পিছু হটেছে বেগড়া দেওয়া কিছু পরিচালন সমিতির সদস্যরা। আজ বুঝে গেছে বাংলার ফুটবল মহল মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে আবার সমর্থকদের যুগ ফিরে আসছে। আজ তার নতুন করে সূচনা হল।