আগামী ৬ মাস কোন দলবদলু নেতাকে তৃণমূলে নেওয়া হবে না: মন্তব্য সাংসদ সৌগত রায়ের

    আগামী ৬ মাস কোন দলবদলু নেতাকে তৃণমূলে নেওয়া হবে না: মন্তব্য সাংসদ সৌগত রায়ের

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: আগামী ৬ মাস দলবদলুদের তৃণমূলে কোনও জায়গা নেই। ‘ব্যক্তিগত’ হলেও রবিবার এমনই অভিমত পোষণ করলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তৃণমূলের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ছিলেন সৌগত। ভোটের আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দু অধিকারীকে কড়া ভাষায় জবাব দিয়েছিলেন তিনি। সেইসঙ্গে নির্বাচনী প্রচারেই দলবদলু নেতাদের সমালোচনা করেছিলেন তিনি।

    তৃণমূল সাংসদ স্পষ্টত জানান, ‘‌আমি তো অন্তত ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, আগামী ৬ মাস এই দলবদলুদের কাউকে যেন দলে নেওয়া না হয়।তাঁদের নিলে যাঁরা ভোটের সময় অক্লান্ত পরিশ্রম করে দলের জন্য লড়াই করল, তাঁদের মনোবল ভেঙে যাবে। তাঁদের মনোবলে আঘাত লাগতে দিতে পারি না। এটা আমার ব্যক্তিগত মত। এখন দল যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার নেবে।’‌

    ইতিমধ্যে তৃণমূলে ফেরার ব্যাপারে ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন ভোটের আগে বিজেপিতে যাওয়া সোনালি গুহ, সরলা মুর্মু ও অমল আচার্যের মতো নেতারা। সাতগাছিয়া কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক সোনালি গুহ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখে ক্ষমা চেয়ে তৃণমূলে ফেরার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছেন। পাশাপাশি হবিবপুর কেন্দ্রের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক সরলা মুর্মুও তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন। একইসঙ্গে ইটাহার কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক অমল আচার্যও একই পথে হেঁটেছেন। এরা প্রত্যেকেই ভোটের আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছিলেন।যদিও এই সব দলবদলুদের নিয়ে অবশ্য তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষের বক্তব্য, দল এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত নীতিগতভাবে কোনও সিদ্ধান্তই নেয়নি।