ভাতা নয়, চাকরি চাই! মুখ্যমন্ত্রীর তৈরি যুবশ্রীদের বিদ্রোহ রাজপথে

ভাতা নয়, চাকরি চাই! মুখ্যমন্ত্রীর তৈরি যুবশ্রীদের বিদ্রোহ রাজপথে

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: যুবশ্রীদের দেড় হাজার টাকা বেকারভাতা দেওয়ার ঘোষণার পর তাদের একবছরের মধ্যে চাকরি দেওয়া হবে। এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তৃণমূল সরকার। কিন্তু সাত বছর কেটে গেলেও বেকারদের অধিকাংশই চাকরিহীন। তাই “ভাতা নয় চাকরি চাই” এই দাবিতে মঙ্গলবার বালুরঘাট শহরে মিছিল ও ডেপুটেশন কর্মসূচির অল বেঙ্গল ইয়ুথ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন।

তারা জানিয়েছেন রাজ্য সরকার যুবশ্রী ভাতা প্রদান করবার পর থেকে দীর্ঘ সাত বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত রাজ্য সরকার এই সমস্ত যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারেনি। সংগঠনের পক্ষ থেকে সদস্যরা বালুরঘাট বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে মিছিল করে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার জেলাশাসকের অফিসের সামনে এসে জেলাশাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দেন।

তাদের দাবি বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়েও তা রাখা হচ্ছে না। শুধুমাত্র দেড়হাজার টাকা ভাতা ছাড়া তাদের হাতে কিছুই নেই। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বিভিন্ন সভায় দাবি করেন রাজ্যে চল্লিশ শতাংশ কর্মসংস্থান হয়ে গেছে, তাই যদি হবে তাহলে রাজ্যের যুবকরা এখনও বেকার কেন?

তারা বারবার বিষয়টি নিয়ে লোকাল কাউন্সিলর থেকে বিধায়ক এবং সাংসদের কাছে দরবার করেছেন কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি কেউ তাদের চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে পারেননি। শুধুমাত্র কয়েকটা টাকা ভাতা নিয়ে বেকার জীবনযাপন করতে পারছেন না তাঁরা। তাদের যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তা পূরণের দাবি করেছেন এই সংগঠনের সদস্যরা।

তাদের দাবি যুবশ্রীদের চাকরি দেওয়ার পর পরবর্তী পর্যায়ে এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কের মাধ্যমে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি মিলেছিল। কিন্তু সে কথা কথাই রয়ে গেছে। যেখানে এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক থেকে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার এমনকি শিক্ষক নিয়োগের কথা বলা হয় সেখানে একটিও চাকরি ব্যাঙ্ক থেকে হয়নি।

এই সদস্যদের দাবি দক্ষিণ দিনাজপুরে প্রায় ৩২০০ যুবশ্রী ভাতাপ্রাপক রয়েছেন। তিন দফা দাবিতে এদিন জেলাশাসকের কাছে তারা স্মারকলিপি জমা দেন। অবিলম্বে তারা চাকরি না পেলে কলকাতায় এসে অনশন ধরণায় বসার হুমকিও দিয়েছে।