এক দেশ, এক ভোট! মোদি সরকারের উদ্যোগ বাস্তবায়নে সায় নির্বাচন কমিশনের

এক দেশ, এক ভোট! মোদি সরকারের উদ্যোগ বাস্তবায়নে সায় নির্বাচন কমিশনের

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: অভিন্ন দেওয়ানি বিধি, এক দেশ, এক রেশন কার্ড আর এক দেশ, এক ভোট । প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েই এই তিনটি উদ্যোগকে বাস্তবায়িত করতে সওয়াল করছেন নরেন্দ্র মোদী । এবার এই এক দেশ, এক ভোট আয়োজনে প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন। সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুশীল চন্দ্র (CEC)। একসঙ্গে সব ভোট করানোর পরিকল্পনা ভালো প্রস্তাব মন্তব্য করে সুশীল চন্দ্র বলেন, ‘একসঙ্গে লোকসভা ও বিধানসভাগুলির ভোট করাতে নির্বাচন কমিশন প্রস্তুত।’

তবে এই প্রস্তাবকে বাস্তবায়িত করতে সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজন। তাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে সংসদকেই। এমনটাই জানান তিনি। তাঁর দাবি, ‘স্বাধীনতার পর থেকে মোট তিনবার একসঙ্গে সব ভোট হয়েছে। পরের দিকে কখনও বিধানসভা, কখনও লোকসভা ভেঙে দেওয়া হয়েছে। ফলে এই পদ্ধতি আর অনুসরণ করা সম্ভব হয়নি।’

তাঁর পরামর্শ, ‘কোনও বিধানসভা মেয়াদ পূরণ করতে না পারলে দেখতে হবে। সংবিধান মোতাবেক তা ভেঙে দেওয়া হবে, নাকি একসঙ্গে ভোট করানোর জন্য সংসদের মেয়াদ বাড়ানো হবে।’ চন্দ্র বলেন, ‘এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে পার্লামেন্ট। মোট বিধানসভার অর্ধেক নির্বাচন একসঙ্গে, বাকি অর্ধেকের নির্বাচন পরে। না পুরোটাই একসঙ্গে?

এভাবেও বিষয়টি ভাবা যেতে পারে। তবে চূড়ান্ত যা-ই হোক, নির্বাচন কমিশন সমস্ত ভোট একসঙ্গে করতে সক্ষম।’

এ প্রসঙ্গে উল্লেখ্য, অর্থ সাশ্রয় করতে প্রধানমন্ত্রী লোকসভা-বিধানসভার সঙ্গে পঞ্চায়েত-পুরভোটও একসঙ্গে করার পক্ষে একাধিকবার সওয়াল করেছেন। কেন্দ্রের প্রধান শাসক দলের যুক্তি, এভাবে একছাতার তলায় নিয়ে এসে সব নির্বাচন করলে বিপুল খরচ বাঁচবে।

তবে এক দেশ, এক ভোট ব্যবস্থা কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব আরও বাড়াবে। একদলীয় শাসনব্যবস্থায় পরিণত হতে পারে দেশ। এভাবেই সমালোচনায় সরব বিরোধী দলগুলো।