প্রশান্ত কিশোর ও তার সংস্থার ফোন তৃণমূলের নেতাকর্মীদের

    প্রশান্ত কিশোর ও তার সংস্থার ফোন তৃণমূলের নেতাকর্মীদের

    নিউজ ডেস্ক, বঙ্গ রিপোর্ট: শনিবার বেলা সাড়ে দশ এগারোটা নাগাদ ফোন আসে তৃণমূলের গোয়ালতোড় ব্লক সভাপতি ভাস্কর চক্রবর্তীর কাছে। তিনি দাবি করেন ‘‘ফোনটা ধরতেই ফোনের ও প্রান্ত থেকে ভাঙা বাংলা গলায় বলে ওঠেন, ‘আমি প্রশান্ত কিশোর বলছি।’ সত্যি আমি হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলাম।’’ ভাস্কর জানালেই, মিনিট দশেক কথা বলেছেন প্রশান্ত। সংগঠনের অবস্থা, জনসংযোগ কেমন এগোচ্ছে, তা নিয়ে খোঁজখবর নেন। ভাস্করের কথায়, ‘‘প্রশান্ত বলেন, কালকের মধ্যেই ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি নিয়ে জনসংযোগে ঝাঁপিয়ে পড়তে।’’

    ফোন পেয়েছেন গড়বেতা ব্লক সভাপতি সেবাব্রত ঘোষও। তবে প্রশান্তের না তার সংস্থা থেকে। তিনি বলেন,‘‘বৃহস্পতিবার সন্ধে সাড়ে ৭টা নাগাদ মোবাইলে ফোন করে এক জন বলেন, ‘প্রশান্ত কিশোরের টিম থেকে বলছি’।

    জানতে চান সাংবাদিক বৈঠক করে জনসংযোগ শুরু হয়েছে কিনা। শুরু করলে তার ছবি নির্দিষ্ট হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে পাঠাতেও বলা হয়।’’

    তবে ভাস্কর ছাড়া আর কাউকে প্রশান্ত নিজে ফোন করেছেন বলে যানা‌যায়নি।’’ পর্যবেক্ষকদের ধারণা, নীচুতলায় দলীয় সংগঠনে ঝাঁকুনি দিতেই সম্ভবত নিজে খোঁজ নিচ্ছেন ভোটকুশলী পিকে।
    যেখানে ভোটে বড় ধাক্কা খেয়েছে তৃণমূল, সম্ভবত সেখানেই বাড়তি নজর দিচ্ছেন তিনি।

    প্রশান্তের ফোন পেয়ে আর দেরি করেননি ভাস্কর বাবু। শনিবার সকালেই সাংবাদিক বৈঠক ডাকেন তিনি। তার পর ব্লক নেতাদের সঙ্গে নিয়ে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচির স্টিকার, কার্ড, গেঞ্জি, লিফলেট বিলি করেন। ভাস্কর বলছেন, ‘‘প্রশান্তের নম্বর সেভ করে রেখেছি। দরকারে পরামর্শ নেব।’’