‘রাম ঐতিহাসিক না পুরানের চরিত্র?’ অযোধ্যা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের-রায়কে কটাক্ষ প্রাক্তন বিচারপতি কাটজুর

‘রাম ঐতিহাসিক না পুরানের চরিত্র?’ অযোধ্যা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের-রায়কে কটাক্ষ প্রাক্তন বিচারপতি কাটজুর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: শনিবার অযোধ্যা মামলায় ঐতিহাসিক রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি হিন্দু মামলাকারীকে দেওয়ার পক্ষে রায় দিয়েছে। অন্যদিকে, সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে অযোধ্যার অন্যত্র ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। মন্দির বানাতে তিন মাসের মধ্যে ট্রাস্ট বানানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

অধিকাংশই সেই রায়কে স্বাগত জানালেও প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে। তাৎপর্যপূর্ণভাবে সেই রায় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রাক্তন বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিও। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি মার্কণ্ডেয় কাটজু।

সোমবার অযোধ্যা রায় মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘রামের নির্দিষ্ট জন্মস্থান বলে দেওয়াটা হাস্যকর। এমনকী যদি ধরে নিই পুরানের বদলে রাম ঐতিহাসিক চরিত্রই ছিল, তাহলেও কি বলে দেওয়া সম্ভব হাজার বছর আগে সে কোথায় জন্মেছিল?’

অযোধ্যা রায়ের পরই প্রাক্তন বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন, ‘একটি বিতর্কিত ইস্যুর সমাধান হয়তো হল, কিন্তু এএসআইয়ের রিপোর্ট আর আদালতের এদিনের রায় দু’টি এক কথা বলছে না। ফলে কীসের ভিত্তিতে এই রায়, তা বোধগম্য নয়। জমির মালিকানা প্রমাণ করা শক্ত। ১৯৯২ সাল পর্যন্ত সেখানে মসজিদ ছিল, ১৯৪৯ সাল থেকে সেখানে নমাজ পড়া হত। ধর্মীয় অধিকার রক্ষার প্রতি সম্মান জানানো হয়েছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকবে।’

এমনকী মুম্বই হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি চিত্ততোষ মুখোপাধ্যায় রায়কে স্বাগত না জানিয়েই বলেন, ‘আদালতের এই রায় দীর্ঘদিনের এক বিতর্কের অবসান করল। সুপ্রিম কোর্টের রায় দেওয়ার পরে তা সঠিক না বেঠিক, তা নিয়ে কিছু বলার জায়গা নেই। আদালত যখন রায় দিয়েছে, তা মানতে হবে সবাইকে।’

এবার সুপ্রিম-রায় নিয়ে প্রশ্ন তুলে এগিয়ে এলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি মার্কণ্ডেয় কাটজু।