জিআরপিতে রাজ্যে প্রথম মহিলা ওসি পদে যোগ দিলেন বনগাঁর রূপসিনা পারভিন

  • জিআরপিতে রাজ্যে প্রথম মহিলা ওসি পদে যোগ দিলেন বনগাঁর রূপসিনা পারভিন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: মহাকাশ গবেষণা থেকে মহাশূন্যে যাত্রা। সেনাবাহিনীতে গুরু দায়িত্ব। বহুজাতিক সংস্থায় উচ্চপদ। সমাজের সবক্ষেত্রে নিজেদের অবস্থান পোক্ত করে চলেছেন নারীরা। ‘অর্ধেক আকাশ’ বলা হয় তাঁদের। এই রাজ্যের এক মহিলাও সেই আকাশের ছোট একটি অংশের অংশীদার হলেন সম্প্রতি। রাজ্যের প্রথম মহিলা অফিসার ইন চার্জ (ওসি) হিসেবে বনগাঁ জিআরপি থানার দায়িত্বভার পেলেন রূপসিনা পারভিন।

নজরুল কবেই লিখে গিয়েছিলেন, ‘বিশ্বের যা কিছু মহান সৃষ্টি, চির কল্যাণকর, অর্ধেক তার রচিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর।’ দেশের অধিকাংশ ক্ষেত্রে নজরুলের কথার প্রতিফলন চোখে পড়ে। ভারতীয় রেলও অনেক আগেই নারী শক্তিকে প্রথম সারিতে নিয়ে এসেছে। ট্রেন চালক থেকে গার্ড— সবেতেই কর্মরত মহিলারা। এবার জিআরপি থানার ওসি পদে দায়িত্ব দেওয়া হল এক মহিলাকে। গত মাসে বনগাঁ জিআরপি থানার ওসি পদের দায়িত্ব পান এসআই পদমর্যাদার এই আধিকারিক। জিআরপি সূত্রে জানা গিয়েছে, তিনিই রাজ্যের প্রথম মহিলা ওসি (জিআরপি)।

রূপসিনা বলেন, পুরুষরা পারলে আমি মেয়ে হয়ে পারব না কেন ? পুলিসের চাকরিটা চ্যালেঞ্জিং জব। আমি সেটা সফলতার সঙ্গে করতে চাই। শিয়ালদহ রেল পুলিস জেলার এসআরপি বরুণ চন্দ্রশেখর বলেন, জিআরপিতে কর্মরত মহিলারা যথেষ্ট যোগ্য। থানা চালানোর কাজেও তাঁরা সফল হবেন। এই ভাবনা থেকেই মহিলা ওসি নিয়োগের সিদ্ধান্ত। এটি অন্য মহিলা কর্মীদের কাজে উৎসাহ দেবে।
বাণিজ্য বিভাগে মাস্টার ডিগ্রির পর চাকরির পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি শুরু করেন রূপসিনা।

২০০৮ সালে পিএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০১২ সালে জিআরপি-র সাব ইনসপেক্টর পদে চাকরিতে যোগ দেন। হাওড়া ও বারাসতে কয়েক বছর কাজ করার পর গত জুন মাসে বনগাঁ জিআরপি থানায় সেকেন্ড অফিসার হিসেবে দায়িত্ব নেন। গত ১৮ নভেম্বর ওসি হিসেবে থানার দায়িত্ব পান।
স্বরূপনগর থানার চারঘাট এলাকায় বাপের বাড়ি। বনগাঁর গাঁড়াপোতায় শ্বশুর বাড়ি। স্বামী ও একমাত্র মেয়ের সঙ্গে বারাসতে থাকতেন। বর্তমানে বনগাঁতে থাকছেন কর্মসূত্রে। স্বামী একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী। মেয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। পরিবার সামলে দপ্তরের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।