একবার ভাইজানকে পাঠাও বাকিটা আমরা দেখে নেবো: কর্মী সমর্থক প্রার্থীদের আবদার সামলাতে হিমসিম আলিমুদ্দিন

একবার ভাইজানকে পাঠাও বাকিটা আমরা দেখে নেবো: কর্মী সমর্থক প্রার্থীদের আবদার সামলাতে হিমসিম আলিমুদ্দিন

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: রাজ্য সিপিএমের সদর দপ্তর আলিমুদ্দিন স্ট্রিট অতিষ্ঠ, ভোট বাকি থাকা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ফোন আসছে আমরা ভাইজানকে চাই। একশো ফোন এলে নব্বইটা ফোন আসছে এই বলে একবার ভাইজানকে পাঠাও। পাশাপাশি আরও একজনের মারাত্মক চাহিদা তিনি হলেন নন্দীগ্রামের প্রার্থী মীনাক্ষী মুখার্জি যেহেতু ভোট হয়ে গিয়েছে তাই এখন তাকে রাজ্য চষে বেড়াতে হচ্ছে অনেকের মতে একুশের ভোটে বামেদের তথাকথিত প্রচার কমিটির নেতারা ম্লান হয়ে গিয়েছে আব্বাস-মীনাক্ষীর সামনে এমনকি মোহাম্মদ সেলিম সুজন চক্রবর্তী দের এই চাহিদা নেই এবারের নির্বাচনে।

শেষ কবে এমন বক্তা নিয়ে ঝক্কি পোহাতে হয়েছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটকে , মনে করতে পারছে না কেউ। সিপিএম রাজ্য দপ্তরের এক কর্মী বলেন দশ বছর আগে গৌতম দেব এবং আরো দশ বছর আগে সুশান্ত ঘোষের যে চাহিদা ছিল একুশের নির্বাচনে আব্বাস ভাইজান ও মীনাক্ষীর বক্তা হিসেবে চাহিদা পিছনের সমস্ত রেকর্ড ছাপিয়ে দিয়েছে।

ভোটবাক্সে প্রান্তিক হয়ে যাওয়া বামেদের মধ্যে আলোড়ন তৈরি করতে পেরেছেন যুব নেত্রী মীনাক্ষী আর ধর্মগুরু জায়গা থেকে সরে এসে সবার জন্য রুটিরুজি স্বাস্থ্য শিক্ষার কথা বলে আব্বাস নিজেকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। আব্বাস সিদ্দিকী যেখানেই যাচ্ছেন মাঠ ভরে যাচ্ছে কানায় কানায়। তারুণ্যের ঢেউ উপছে পড়ছে প্রত্যেকটি জনসভায়। তাই বিভিন্ন জায়গায় সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের কাছে সমর্থক ও ভোটারদের একটাই আবেদন যেকোন প্রকারে একবার আমাদের কাছে আব্বাস ভাইজানকে নিয়ে আসুন বাকিটা আমরা দেখে নেবো।