তৃণমূল নেতা খুনে অভিযুক্ত বিজেপি নেতা আনিসুরের উপর থেকে মামলা প্রত্যাহার করল রাজ্য সরকার

তৃণমূল নেতা খুনে অভিযুক্ত বিজেপি নেতা আনিসুরের উপর থেকে মামলা প্রত্যাহার করল রাজ্য সরকার

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: মুকুল ঘনিষ্ঠ বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করল রাজ্য সরকার। তাও আবার তৃণমূল নেতা খুনে অভিযুক্ত ছিলেন পাশকুড়ার এই দাপুটে নেতা আনিসুর রহমান। ভোটের মুখে হঠাৎ কেন এই বিজেপি নেতার উপর থেকে মামলা প্রত্যাহার করতে চলেছে রাজ্য? তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা।

তৃণমূল নেতা কুরবান শাহ খুনের মামলায় জেলে থাকা বিজেপি নেতা আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করল রাজ্য সরকার। ২০১৯ সালে দুর্গাপুজোর নবমীর দিন রাতে খুন হন পাঁশকুড়ার তৃণমূল ব্লক সভাপতি কুরবান শাহ। এই মামলায় অভিযুক্ত হিসাবে উঠে আসে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়ার বিজেপি নেতা আনিসুরের নাম। গ্রেফতার হন মুকুল ঘনষ্ঠ এই নেতা। এরপর থেকে জেলেই রয়েছেন আনিসুর। কিন্তু হঠাৎ কেন ভোটের মুখে আনিসুরের উপর থেকে সমস্ত মামলা রাজ্য সরকার প্রত্যাহার করে নিচ্ছে তা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা!

জানুয়ারি মাসে নন্দীগ্রামের তেখালিতে বিশাল একটি জনসভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে তীব্র আক্রমণ শানান তিনি। আর সেই সময় নেত্রীর মুখে উঠে আসে আনিসুরের নাম। মমতা বলেছিলেন, ‘‘আনিসুরকে অত্যাচার করে জেলে রেখে দিয়েছে।’ এহেন মন্তব্য ঘিরে তৈরি হয় বিতর্ক। প্রশ্ন উঠতে থাকে তাঁর হাতে প্রশাসন। তিনি পুলিশমন্ত্রী। এমনকি তাঁর দলের কর্মীর খুনের ঘটনায় গ্রেফতার আনিসুর। বিজেপি নেতার প্রশংসা শুনে মৃত কুরবানের পরিবারও সেদিন বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন। তবে রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা ছিল আনিসুরকে অত্যাচার এবং তাঁকে জেলে বন্দি রাখার বিষয়ে তৃণমূল নেত্রী নাম না করে আসলে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকেই নিশানা করেছেন। আনিসুর মুকুল-ঘনিষ্ঠ হলেও শুভেন্দু বিরোধী! শুভেন্দুর সঙ্গে একাধিক বিষয়ে মতানৈক্য আছে তাঁর। সেখানে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিশানায় যে শুভেন্দুই সে আর বলার অপেক্ষা রাখে না।