অযোধ্যায় মসজিদ, হাসপাতাল, পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে আদিত্যনাথকে আমন্ত্রণ জানাবে সুন্নি বোর্ড

    অযোধ্যায় মসজিদ, হাসপাতাল, পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে আদিত্যনাথকে আমন্ত্রণ জানাবে সুন্নি বোর্ড

    নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: অযোধ্যায় মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে আমন্ত্রণ জানানো হবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে। একথা জানিয়েছে উত্তরপ্রদেশের ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন। সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের রাজ্য শাখা মসজিদ গঠনের কাজ দেখভালের জন্য ১৫ সদস্যের ট্রাস্ট গঠন করেছে।
    গত বছর রাম মন্দির-বাবরি মসজিদ মামলায় সুপ্রিম কোর্ট মসজিদ স্থাপনের জন্য ৫ একর জমি দিতে নির্দেশ দিয়েছিল।

    সেই নির্দেশ মেনে মসজিদ তৈরির জন্য ধান্নিপুর গ্রামে ওই জমি দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। তবে পাঁচ একর জমিতে শুধু মসজিদ নয়, থাকবে গবেষণা কেন্দ্র, হাসপাতাল, পাঠাগার, ও কমিউনিটি কিচেন। ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশনের( আই আই সি এফ) সম্পাদক তথা মুখপাত্র আতহার হুসেন বলেছেন, জনসাধারণের জন্য এই কাজে, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের দিন আমন্ত্রণ জানানো হবে। মুখ্যমন্ত্রী শুধু অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন তা নয়, এর নির্মাণ কাজেও সহায়তা করবেন বলে জানিয়েছেন আতহার। তবে আদিত্যনাথ মসজিদের শিলান্যাস করবেন কিনা সে প্রশ্নের উত্তরে আই আই সি এফ-এর সম্পাদক জানিয়েছেন ইসলাম ধর্মের চারটি মতবাদের কোনওটিতেই মসজিদের শিলান্যাসের কথা বলা নেই।

    মসজিদের নাম কি বাবরি মসজিদ রাখা হবে? হুসেন বলেছেন, ” এমন কোনও ভাবনা এখনও নেই। নাম নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি।” তবে নামের বিষয়টিকে তাঁরা তেমন গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন না বলে হাবেভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন হুসেন।

    মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠান ঘিরে ইতিমধ্যেই বিতর্ক দেখা দিয়েছে। শুক্রবার যোগী আদিত্যনাথ জানিয়ে দিয়েছেন, অযোধ্যায় মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি যাবেন না। যোগী বলেছেন, ” মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যদি আমায় বলেন, তাহলে আমার কোনও অসুবিধা নেই। কোনও ধর্ম, বা ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ে আমার সমস্যা নেই। কিন্তু যোগী হিসেবে যদি জিজ্ঞেস করেন,. তা হলে একজন হিন্দু হয়ে কোনওমতেই আমি ওই কর্মসূচিতে যাব না।” মুখ্যমন্ত্রীর এ ধরনের মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে সমাজবাদী পার্টি, কংগ্রেস।