‘জল বাঁচাও দিবস’ উপলক্ষে সাতুলিয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসায় র‍্যালি

    নাইমুল ইসলাম,বঙ্গ রিপোর্ট, ভাঙড়: পৃথিবী জুড়ে জল সংকট হতে চলেছে। জল সংকট থেকে বাঁচতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নয়া উদ্যোগ পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে ১২ ই জুলাই’জল বাঁচাও দিবস’ উপলক্ষে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে প্রতিটি স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসায় শিক্ষক শিক্ষিকা ও ছাত্র ছাত্রীদের উদ্যোগ নিতে দেখা গিয়েছে।

    আজ সাতুলিয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসায় ১২ই জুলাই ‘জল বাঁচাও দিবস’ উপলক্ষে র‍্যালি করে মাদ্রাসার পশ্চিম দিক নুতন হাট ও পূর্বদিক তেতুল তলা পর্যন্ত সাধারণ মানুষকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে মাইকে প্রচার ও স্লোগান দিতে দেখা যায় শিক্ষকসহ ছাত্র-ছাত্রীদের।

    এ দিন ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে ব্লাকার্ড ও ফেস্টুনে লক্ষ্য করা গিয়েছে।
    সেই সঙ্গে স্লোগান দিতে দেখা গিয়েছে “জল বাঁচান প্রাণ বাঁচান”, ‘দাঁত মাজার সময় কল বন্ধ রাখুন’, শাওয়ার নয়, বালতিতে স্নান করুন। আরো বহু স্লোগান দিতে দেখা যায় ছাত্র-ছাত্রীদের।

    জল বাঁচাও র‍্যালি থেকে সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক শেখ গোলাম মইনুদ্দীন বলেন, আজকে পৃথিবীব্যাপী জল সংকট দেখা দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ যাতে ভবিষ্যতে জল সংকট থেকে রক্ষা পায় সেই জন্য সাধারণ মানুষকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে আজকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের যেমন নির্দেশ এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্মে জল সংকট থেকে রক্ষার জন্য এই উদ্যোগ।

    বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আসান আলী বলেন, আমরা যখন স্নান করবো তখন আমাদের খেয়াল রাখতে হবে জল যেন অপচয় খরচ না হয় বরণ বালতিতে জল ভরে স্নান করতে হবে। ঘুম থেকে উঠে ব্রাশ করার সময় মগে জল ভর্তি করে ব্রাশ করতে হবে তাহলে জল অপচয় থেকে আমরা বাঁচতে পারব।

    মাদ্রাসার শিক্ষক শামসুদ্দোহা পূর্কাইট স্যার বলেন, চেন্নাই আজ জল সংকট দেখা দিয়েছে সেখানের মানুষ বুঝতে পারছে আজ জলের কেমন প্রয়োজন।
    আমাদের সচেতন হতে হবে কৃষিকার্যে পুকুর দীঘি বা খাল থেকে ব্যবহারিত জল নিয়ে কৃষি কার্য সম্পন্ন করতে হবে।

    মাদ্রাসার ছাত্রকে র‍্যালি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, আজকে আমাদের এই র‍্যালির উদ্দেশ্য হল মানুষকে সচেতন করা যে কিভাবে জল অপচয় রোধ করা যায়।
    সহ শিক্ষক রবিউল আলম বলেন,
    কৃষি কাজে আমরা জল অপচয় করে থাকি যেমন বোরো ধানে শ্যালো মেশিন চালিয়ে আমরা বাড়ি আসি সেখানে জল অপচয় হয়।

    আমাদের বৃষ্টির দিনে জল সঞ্চয় করতে হবে এবং সেই জল রান্নার কাজে এবং শৌচালয়ের কাজে ব্যবহার করতে হবে।
    এছাড়াও মাদ্রাসার সমস্ত শিক্ষক শিক্ষিকা ও ছাত্র ছাত্রী র‍্যালিতে পা মেলান।