ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তৃতীয় টি২০ ম্যাচেও বাজিমাত বিরাট বাহিনীর

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তৃতীয় টি২০ ম্যাচেও বাজিমাত বিরাট বাহিনীর

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: ক্লিন স্যুইপ, হোয়াইটওয়াশ। একেবারে একতরফা সিরিজ জয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তৃতীয় টি২০ ম্যাচেও বাজিমাত বিরাট বাহিনীর। সিরিজ আগেই পকেটে পুড়েছিল ভারত। তবে শেষ হাসি হাসাটাই ছিল মূল লক্ষ্য। আর সেই পরীক্ষায় একশোয় একশো পেল তারা।

কিন্তু এরপরও বেশি উল্লাসিত হওয়ার কিন্তু কিছুই নেই। কারণ মাথায় রাখতে হবে যে উলটোদিকের দলটা ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হতে পারে তারা আনপ্রেডিক্টেবল। হতে পারে তারা কুড়ির ক্রিকেটে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন। কিন্তু যে দলকে বিশ্বকাপ খেলার জন্য কোয়ালিফায়ারের বাধা টপকাতে হয়, সেই দলকে হারিয়ে ফুর্তি করার কোনো কারণ আছে বলে তো মনে হয় না। তবে তৃতীয় ম্যাচে প্রাপ্তি হতে পারে ২ টো বিষয়। পন্থের রান পাওয়া আর দীপক চাহার।

পন্থ এই প্রথমবার ৪ নম্বরে নেমে সফল হলেন। হ্যাঁ, সফল এই জন্যই বলা হচ্ছে কারণ ইনিংসের পঞ্চম ওভারে নেমে ২০ তম ওভারে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন দিল্লির তরুণ। যা ওডিআই সিরিজের আগে মানসিকভাবে সাহায্য করবে তাকে। অন্তত একটা বিষয় বুঝতেই হবে পন্থকে। মাঠে গিয়ে ব্যাট চালালেই হয় না। ক্রিজে থিতু হয়ে মাটি, পরিবেশ, বোলার, সমর্থক সবাইকে বুঝতে হয়। নইলে হঠকারিতায় পা পিছলে পড়বেই।

আজ ৪২ বলে ৬৫ রানের ইনিংস খেলেছেন। ঝুলিতে ছিল ৪টে বাউন্ডারি ও ৪টে ওভার বাউন্ডারি। তবে তার থেকেও বড় কথা বিরাটের সঙ্গে ১০৬ রানের পার্টনারশিপ গড়েছেন ও সময় কাটিয়েছেন। পন্থকে এটাও বুঝতে হবে যে ক্রিজে চার নম্বর ব্যাটসম্যানের ডাক তখনই আসে যখন টপ অর্ডারে ভাঙন ধরে। তাই ভাঙন মেরামত করতে হবে, আরও ভাঙন ধরাতে নয়। সামনেই ওডিআই সিরিজ। সেখানেই হয়ত আসল পরীক্ষা।

দীপক চাহারের বোলিং প্রশংসা কুড়িয়েছিল ধোনির। ১৪০, ১৫০ কিমি গতিতে বল করতে পারেন না। কিন্তু স্লোয়ার, কাটার ছাড়তে নাকি ওস্তাদ। ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফর্ম করেছেন। এবার জাতীয় দলের অভিষেক ম্যাচেই নিজের নামের প্রতি সুবিচার করলেন। স্বপ্নের স্পেল ৩-১-৪-৩। শিকার হলেন লিউইস, নারিন, হেটমায়ের। তিনজনই বড় শট মারতে ওস্তাদ। চাহার সেই চান্সই দিলেন না তাদের। নিজের জাল ফেলে দিলেন ২২ গজে। যেখানে তিনজনই একের পর এক আটকে গেলেন। সাইনি সিরিজের শুরুতে অভিষেকে ম্যাচের সেরা হয়েছিলেন।

সিরিজের শেষে চাহার এদিন ম্যাচের সেরা হলেন অভিষেক ম্যাচে। ফিটনেস ধরে রাখতে পারলে ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল উত্তরপ্রদেশের এই বোলারের। মঙ্গলবারের শেষ মঙ্গল কাজটা করেছেন বিরাট নিজে। ৪৫ বলে ৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৯ রান। ভারত অধিনায়কের রান পাওয়াটাও কিন্তু দলে অতিরিক্ত অক্সিজেনের যোগান দেবে আগামীর জন্য।